ঢাকা, বুধবার, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

কলকাতায় বাড়ছে তাপমাত্রা, সতর্কতা জারি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ১০, ২০২৩
কলকাতায় বাড়ছে তাপমাত্রা, সতর্কতা জারি

কলকাতা: পহেলা বৈশাখের আগেই বাড়ছে তাপমাত্রা পশ্চিমবঙ্গে। চৈত্র সংক্রান্তি ও বাংলা বর্ষবরণে তাপপ্রবাহের আশঙ্কা।

কলকাতায় তাপপ্রবাহের সতর্কতা জারি করেছে হাওয়া অফিস।

কলকাতা আবহাওয়া দফতরের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার (১০ এপ্রিল) থেকে আরও বাড়বে তাপমাত্রা। আগামী বুধবার (১২ এপ্রিল) থেকে শনিবার কলকাতাতে তাপপ্রবাহের পরিস্থিতি তৈরি হবে। ইতোমধ্যেই কলকাতার তাপমাত্রা ৪০ ডিগ্রির আশেপাশে রয়েছে।  

হাওয়া অফিসের তথ্য মতে, এদিন (১০ এপ্রিল) কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রয়েছে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস থাকলেও অনুভূতি হবে ৪২ ডিগ্রির মতো। ফলে এই গরমে ত্বকে জ্বলুনি ভাব আসবে।  

চিকিৎসকরা বলছেন, তাপমাত্রা ৪০ এর বেশি অনুভূতি হলেই সকাল ১১টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত খুব প্রয়োজন ছাড়া রাস্তায় না বেরোনোই ভালো। রাস্তায় বেরিয়ে অসুস্থবোধ করলে সঙ্গে সঙ্গে ঠাণ্ডা জায়গায় গিয়ে বিশ্রাম নিতে হবে। শিশুদের গরমে বাইরে বের না করাই ভালো।
 
আবহাওয়া দফতরের আশঙ্কা ১০ থেকে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যের দক্ষিণবঙ্গের জেলাসহ উপকূল সংলগ্ন গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে এবং উত্তরবঙ্গের মালদহ ও দক্ষিণ দিনাজপুরে তাপমাত্রা আরও বাড়বে।

বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) থেকে শনিবার (১৫ এপ্রিল) তাপপ্রবাহের আশঙ্কা করছেন আবহাওয়াবিদরা। রাজ্যের ৬ থেকে ৭ জেলায় স্বাভাবিকের থেকে ৫ ডিগ্রি বা তারও বেশি থাকতে পারে তাপমাত্রা। ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা প্রায় নেই, গরম ও শুকনো আবহাওয়া থাকবে বলেই জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। কলকাতায় বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। তাপমাত্রাও ক্রমশ বাড়বে। আগামী কয়েকদিন শুকনো গরম থাকবে।

বিকেলের পর থেকে তাপমাত্রা কমলেও অস্বস্তি সূচক বিন্দুমাত্র কমছে না। দিনে শুকনো গরম থাকায় ঘাম না হলেও শরীরে জ্বালা ধরাচ্ছে। মনে হচ্ছে আকাশ থেকে যেনো আগুন ঝরছে। বিকেলে পরিস্থিতি পাল্টে অঝোরে ঘাম হচ্ছে। এরইমধ্যে রমজানে চুটিয়ে চলছে কেনাকাটা।  

রাকিব হাসান বাংলোদেশ থেকে কলকাতায় কেনাকাটা করতে এসেছেন।  

তিনি বলেন, এবার ধারণার বাইরে কলকাতায় গরম পড়েছে। ঢাকাতেও এত গরম নেই। দিনে যেনো হোটেল রুমের এসিও ঠিকঠাক কাজ করছে না। আর ইফতারের পর পথে বের হলে অস্বাভাবিক ঘাম হচ্ছে। কেনাকাটা করব কি অসুস্থ হয়ে পড়ব।  

মারকুইস স্ট্রিটের হোটেল ব্যবসায়ী জানাচ্ছে, এমনিই রমজান তার ওপর অস্বাভাবিক গরম। দিনের বেলায় কলকাতার পথঘাট এক ধরনের ফাঁকা। যারা হোটেল বুকিং করছেন তাদের মধ্যেও অনেকে জানতে চাইছেন কলকাতায় গরম কেমন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৩ ঘণ্টা, এপিল ১০, ২০২৩
ভিএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।