ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীদের চট্টগ্রামে বিনিয়োগের আহ্বান চেম্বার সভাপতির

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০২২
যুক্তরাজ্যের ব্যবসায়ীদের চট্টগ্রামে বিনিয়োগের আহ্বান চেম্বার সভাপতির

চট্টগ্রাম: শতবর্ষী বাণিজ্য সংগঠন চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেছেন, বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য অংশীদার যুক্তরাজ্য। চলতি বছরে বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৩ দশমিক ১ বিলিয়ন পাউন্ড যুক্তরাজ্যে রপ্তানি করা হয়েছে এবং যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশে ৯০১ মিলিয়ন পাউন্ড আমদানি করা হয়েছে।

উভয়দেশের মধ্যে বিনিয়োগ এবং পণ্য আমদানি রপ্তানির দারুণ সুযোগ রয়েছে। সরকার দেশের অর্থনীতিকে বেগবান করতে ১০০টি বিশেষায়িত শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলার ঘোষণার ফলে চট্টগ্রাম দেশের ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবে পরিণত হয়েছে।
 

বাংলাদেশে সফররত যুক্তরাজ্যের চেম্বার ওয়েলস্’র নির্বাহী সভাপতি পিটার পল স্লেভিনের নেতৃত্বে প্রতিনিধিদলের সঙ্গে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী নেতাদের মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর) আগ্রাবাদের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে সভাটি অনুষ্ঠিত হয়। চেম্বার সভাপতি চট্টগ্রামের ভৌগোলিক সুবিধা কাজে লাগিয়ে যুক্তরাজ্যের চেম্বার ওয়েলস’র প্রতিনিধিদলকে বিনিয়োগ করার আহবান জানান।  

প্রতিনিধিদল নেতা পিটার পল স্লেভিন বলেন, ভৌগোলিক কারণে চট্টগ্রাম গুরুত্বপূর্ণ। এখানে ব্যবসায়ের ক্রমাগত পরিসর বৃদ্ধি, কর্মসংস্থান এবং অংশীদারিত্বমূলক বিনিয়োগের কারণে চেম্বার ওয়েলসের বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগে আগ্রহী।  

তিনি চট্টগ্রামে শিক্ষা, টেকনোলজি, হেলথ কেয়ার, শিপিংসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিনিয়োগ সম্ভাবনার উল্লেখ করেন।  

চেম্বার সিনিয়র সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের সম্ভাবনাকে উপলব্ধি করে প্রায় ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের অবকাঠামোগত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছেন। যার মধ্যে দেশের বৃহত্তম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর, মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দর, বঙ্গবন্ধু টানেল অন্যতম।  

তিনি চট্টগ্রামে হেলথ এবং এডুকেশন সেক্টরের সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে যৌথ বিনিয়োগের আহবান জানান।  

ইন্টারলিংক বিজনেস কনসালটেন্সি মাহবুব নূর বলেন, বাংলাদেশ এবং যুক্তরাজ্য চেম্বার ওয়েলসের মধ্যে এসএমই সেক্টরে বিনিয়োগের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। এ ধরনের বিটুবি আলোচনার মাধ্যমে উভয়দেশের মধ্যে বিনিয়োগ সম্ভাবনা বাড়বে।  

এছাড়া শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগের সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।  

বাংলাদেশ সময়: ২০২৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০২২
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa