ঢাকা, শুক্রবার, ৪ ভাদ্র ১৪২৯, ১৯ আগস্ট ২০২২, ২০ মহররম ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

রেহনুমার খুনিদের বিচার দাবিতে সমাবেশ

নিউজ ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৯ ঘণ্টা, জুলাই ৬, ২০২২
রেহনুমার খুনিদের বিচার দাবিতে সমাবেশ বক্তব্য দেন দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান।

চট্টগ্রাম: খেলাঘর কর্মী রেহনুমা ফেরদৌস মিতুল হত্যার বিচারের দাবিতে আয়োজিত প্রতিবাদী সমাবেশে বক্তারা মিতুল হত্যাকাণ্ডের তদন্ত ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার দুঃসাহস না করতে প্রশাসনের প্রতি হুঁশিয়ারি জানিয়েছেন।  

জাতীয় শিশু কিশোর সংগঠন খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির উদ্যোগে বুধবার (৬ জুলাই) বিকেল ৫টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে এ প্রতিবাদী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

 

খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সভাপতি নাট্যজন মুনির হেলালের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিৎ বসুর সঞ্চালনায় মিতুল হত্যার বিচারের দাবিতে বক্তব্য দেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, খেলাঘর কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য প্রকৌশলী রথীন সেন, চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য জামশেদুল আলম চৌধুরী, মহিলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সীতারা শামীম, বাংলাদেশ কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি চট্টগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক রঞ্জন বণিক, খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অধ্যাপক রোজী সেন, প্রদীপ চৌধুরী, মহানগর কমিটির সহ-সভাপতি গোপাল কৃষ্ণ লালা, দেবাশীষ রায়, চন্দন পাল, মিতুলের বাবা তারেক ইমতিয়াজ ইমতু, মাহবুবুল হক সুমন, অ্যাডভোকেট আনোয়ার হোসেন আজাদ,

শওকত হোসাইন, চৌধুরী জহির উদ্দিন মোহাম্মদ বাবর, মহিউদ্দিন শাহ, চসিক সাবেক কাউন্সিলর রেহানা বেগম রানু, উদীচী চট্টগ্রাম জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অসীম বিকাশ দাশ, খেলাঘর চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার সাধারণ সম্পাদক শৈবাল আদিত্য, আসর নাট্য সম্প্রদায়ের দল প্রধান শাহ তামরাজুল আলম, খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য পার্থ প্রতিম নাহা রনি, শরণ বড়ুয়া, ইসরাত সুলতানা সুইটি, প্রীতম দাশ, জয়ন্ত রাহা, লিটন শীল, রবি শংকর সেন নিশান, বাবলু দাশ, আজিজুল হাকিম ইমরান, অরিত্র চৌধুরী, ফয়সাল উদ্দিন রাব্বি, নিশান রায় প্রমুখ।  

বক্তারা বলেন, ঘুণে ধরা সমাজব্যবস্থা, আত্মকেন্দ্রিকতা ও ভোগবাদী সমাজ ব্যবস্থার কারণে মানুষ যেকোনো অপরাধমূলক কাজে সরাসরি জড়িয়ে যাচ্ছি। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বিচারহীনতা বা বিচার দীর্ঘসূত্রতার সংস্কৃতি। আমাদের নৈতিক অবক্ষয় ও সামাজিক অবক্ষয়, দুর্বৃত্তায়নের কারণে খেলাঘর কর্মী মিতুলের মতো অনেক নারী হত্যা-নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।  

বক্তারা আরো বলেন, বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সামাজিক দুর্বৃত্তায়নের বিরুদ্ধে স্ব-স্ব অবস্থান থেকে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। প্রশাসনের কাছে দাবি- খেলাঘর কর্মী মিতুল হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। তদন্ত ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। এ ধরনের দুঃসাহস দেখানো হলে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ২১২২ ঘণ্টা, জুলাই ০৬, ২০২২
এআর/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa