ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

ক্রিকেট

ইংল্যান্ডকে হারাতে দুই দিনও লাগলো না ভারতের

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১
ইংল্যান্ডকে হারাতে দুই দিনও লাগলো না ভারতের ছবি: সংগৃহীত

আহমেদাবাদ টেস্টের দ্বিতীয় দিনের তৃতীয় সেশনের খেলা অনেকটা বাকি থাকতেই বিশাল জয় তুলে নিয়েছে ভারত। ১৯৩৫ সালের পর এটাই সবচেয়ে কম দৈর্ঘ্যের টেস্ট।

বৃহস্পতিবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) গুজরাটের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে দিনরাতের টেস্টে রবিচন্দ্রন অশ্বিন ও অক্ষর প্যাটেলের ঘূর্ণিঝড়ে কুপোকাত ইংল্যান্ডকে ১০ উইকেটের বিশাল ব্যবধান হারিয়েছে বিরাটবাহিনী। ইংলিশদের ছুড়ে দেওয়া মাত্র ৪৯ রানের লক্ষ্য কোনো উইকেট না হারিয়েই পেরিয়ে যায় স্বাগতিকরা। পুরো ম্যাচ শেষ হয় মাত্র ১৪০.২ ওভারে।

১৯৩৫ সালে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যকার একটি টেস্ট ম্যাচ এরচেয়েও দ্রুত শেষ হয়। তবে ওই ম্যাচের কম দৈর্ঘ্যের পেছনে ছিল বৃষ্টি আর অল্প রানে ইনিংস ডিক্লেয়ার করার অদ্ভুত কারণ। আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ১৯৪৬ সালের মার্চে ওয়েলিংটনে নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার টেস্ট ম্যাচ শেষ হয়েছিল প্রায় ১৪৫ ওভারে।  

ইংল্যান্ডের অধিনায়ক জো রুটের প্রথমবারের মতো ৫ উইকেট শিকারের কীর্তিতে ৩ উইকেটে ৯৯ রান থেকে দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরুর কিছুক্ষণ পর ১৪৫ রানেই থামে ভারতের ইনিংস। এই পার্টটাইম বোলার এক ইনিংসে ৫ উইকেট তুলে নেওয়া স্পিনারদের ক্ষেত্রে সবচেয়ে কম রান খরচ করেছেন। ৪ উইকেট নেন জ্যাক লিচ। ইংল্যান্ডের ইতিবাচক সময় ওইটুকুই।

এরপর ইংল্যান্ডও দ্রুত অলরাউট হলে দিনের প্রথম দুই সেশনেই পতন ঘটে ১৭ উইকেটের।  প্রথম ইনিংসের মতো নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসেও ভারতীয় স্পিনে বিধ্বস্ত হয়েছে ইংল্যান্ড। অক্ষর প্যাটেল ও অশ্বিনের তোপে মাত্র ৮১ রানেই গুটিয়ে গেছে সফরকারীরা। টেস্টে ভারতের বিপক্ষে এটাই তাদের সর্বনিম্ন ইনিংস। এর আগে ১৯৭১ সালে ওভালে ১০১ রান করেছিল ইংলিশরা।  

শেষ পর্যন্ত ইংল্যান্ডের লিড দাঁড়ায় মাত্র ৪৮ রানে। আর রুটবাহিনীর এই দুর্দশার কারণ অশ্বিন ও অক্ষর। ইংল্যান্ডের দ্বিতীয় ইনিংসের প্রথম বলেই ওপেনার জ্যাক ক্রলিকে গোল্ডেন ডাক উপহার দেন অক্ষর। এক বল পরেই জনি বেয়ারস্টোকেও ডাক উপহার দেন এই বাঁহাতি স্পিনার। পরে ডম সিবলিকে ৭ রানে বিদায় করেন তিনি।

৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা ইংলিশদের আরও বিপদে ফেলে দেন অশ্বিন। বেন স্টোকসকে টেস্টে ১১বারের মতো নিজের শিকার বানান এই ডানহাতি ক্যারম বোলার। ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করতে থাকা রুট (১৯) বিদায় হন অক্ষরের বলে। এরপর ২ রানের ব্যবধান ওলে পোপ এবং আর্চারকে তুলে নিয়ে ৪০০ উইকেট মাইলফলকে পৌঁছান অশ্বিন।  

ভারতীয়দের মধ্যে চতুর্থ বোলার হিসেবে এবং সবমিলিয়ে দ্বিতীয় দ্রুততম সময়ে এই ক্লাবে প্রবেশ করলেন অশ্বিন। অশ্বিনের আগে ৪০০ বা তার বেশি উইকেট শিকার করা ভারতীয় বোলার- অনিল কুম্বলে (৬১৯), কপিল দেব (৪৩৪) এবং হরভজন সিং (৪১৭)। ৪০০ উইকেটের চূড়ায় দ্রুততম সময়ে পৌঁছানোর ক্ষেত্রে মুরালির পরেই এখন অশ্বিনের নাম শোভা পাচ্ছে। শ্রীলঙ্কার কিংবদন্তি স্পিনার মুরালি ৭২ টেস্টেই ওই উচ্চতায় পৌঁছান। অশ্বিনের লেগেছে ৭৭ টেস্ট।

অশ্বিনের মাইলফলক ছোঁয়ার ম্যাচে রেকর্ড গড়েছেন অক্ষর প্যাটেলও। প্রথমবারের মতো এক টেস্টে ১০ উইকেট পাওয়া এই স্পিনার পুরো ম্যাচে ৭০ রান খরচে তুলে নিয়েছেন ১১ (৬+৫) উইকেট, যা দিনরাতের টেস্টে এখন পর্যন্ত সেরা বোলিং ফিগার। ইংলিশদের শেষ উইকেটটি গেছে আরেক স্পিনার ওয়াশিংটন সুন্দর। অশ্বিন নেন ৪ উইকেট, দুই ইনিংস মিলিয়ে ৯ উইকেট।

এর আগে ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস শেষ হয় মাত্র ১১২ রানে।  

সংক্ষিপ্ত স্কোর: 

ইংল্যান্ড (১ম ইনিংস): ১১২ (জ্যাক ক্রলি ৫৩; অক্ষর প্যাটেল ৩৮/৬, অশ্বিন ২৬/৩)

ইংল্যান্ড (দ্বিতীয় ইনিংস): ৮১ (বেন স্টোকস ২৫; অক্ষর প্যাটেল ৩২/৫, অশ্বিন ৪৮/৪)

ভারত (প্রথম ইনিংস): ১৪৫ (৬৬; জো রুট ৮/৫, জ্যাক লিচ ৫৪/৪)

ভারত (দ্বিতীয় ইনিংস): ৪৯/০ (রোহিত শর্মা ২৫)

ফলাফল: ভারত ১০ উইকেটে জয়ী

সিরিজ: ৪ ম্যাচের সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে ভারত

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa