ঢাকা, বুধবার, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১০ মহররম ১৪৪৬

ক্রিকেট

বাংলাদেশের কাছে হেরে আক্ষেপ হচ্ছে শ্রীলঙ্কার

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫২ ঘণ্টা, জুন ১৬, ২০২৪
বাংলাদেশের কাছে হেরে আক্ষেপ হচ্ছে শ্রীলঙ্কার

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলার আগে ছন্দে ছিল শ্রীলঙ্কা। ঘরের মাটিতে আফগানিস্তানকে হারানোর পর বাংলাদেশের মাটিতে এসে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জেতে তারা।

কিন্তু বিশ্বকাপে এসে বদলে গেল এই চিত্র। শেষ ম্যাচের খেলার আগেই তাদের জন্য বন্ধ হয়ে যায় সুপার এইটে ওঠার দরজা।

লঙ্কানরা বিশ্বকাপ শুরু করে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে বিধ্বস্ত হয়ে। পরের ম্যাচে বাংলাদেশের কাছে দুই উইকেটে হারে তারা। বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেওয়ার বেলায় সেই হার নিয়ে আক্ষেপ করে গেলেন ম্যাথিউস।

লঙ্কান অলরাউন্ডার বলেন, 'এটা (বাংলাদেশের কাছে হার) নিয়ে আক্ষেপ হচ্ছে আমাদের। কারণ যেভাবে আমরা আফগানিস্তান, জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলেছি, তাতে আমার মনে হয় এই টুর্নামেন্টে আমরা আমাদের সামর্থ্যের প্রতিদান দিতে পারিনি। ' 

'বিশ্বকাপে কোনো দলকেই হালকাভাবে নেওয়া যায় না। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে সেই দলগুলোর বিপক্ষে বিশ্বকাপের আগে যেভাবে খেলেছি, আর বিশ্বকাপের পর যেভাবে খেললাম...। অবশ্যই উইকেট ভিন্ন ছিল কিন্তু আমারা নিজেদের নামের প্রতি সুবিচার  করতে পারিনি।

প্রথম দুই ম্যাচ হারের পরও কিছুটা আশা ছিল লঙ্কানদের। কিন্তু নেপালের বিপক্ষে ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেসে গেলে ভেঙে যায় তাদের স্বপ্ন। তাই সুপার এইটে উঠতে পারার ব্যর্থতা পুরো দেশকে হতাশ করেছে বলে মনে করেন ম্যাথিউস।  

নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে আসরের শেষ ম্যাচটি খেলার আগে লঙ্কান অলরাউন্ডার বলেন, 'প্রথমত আমি মনে করি, আমরা পুরো দেশকে হতাশ করেছি এবং আমরা খুবই দুঃখিত। কারণ নিজেদেরকে হতাশ করেছি আমরা। এমনটা প্রত্যাশা করিনি। আমরা অনেক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছি, সেগুলো নিয়ে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই। তবে এটা দুর্ভাগ্যজনক যে, আমরা দ্বিতীয় রাউন্ডে উঠতে পারিনি। '

'টুর্নামেন্টে আর এক ম্যাচ আছে এবং আমরা সেটা আমাদের গর্বের জন্য খেলব। আমরা নিজেদের প্রতি সুবিচার করতে পারিনি, বিশেষ করে প্রথম দুই ম্যাচে যেভাবে খেলেছি। তাই এটা খুবই দুঃখজনক। আমাদের হৃদয় ভেঙে গেছে এবং ভেতরে ভেতরে অনেক কষ্ট পাচ্ছি। '

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৯ ঘণ্টা, জুন ১৬, ২০২৪
এএইচএস


 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।