ঢাকা, সোমবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৯, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২, ২৮ সফর ১৪৪৪

উপকূল থেকে উপকূল

জোয়ারে ভেসে গেছে ঘর, নৌকাতেই প্রসব

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ৪, ২০২১
জোয়ারে ভেসে গেছে ঘর, নৌকাতেই প্রসব

সাতক্ষীরা: ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের সময় জলোচ্ছ্বাসের প্রভাবে খোলপেটুয়া নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে এখনো জোয়ার-ভাটায় ভাসছে সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার পদ্মপুকুর ইউনিয়নের বন্যতলা গ্রাম।  

জোয়ার-ভাটার প্রভাবে ১৫ দিন আগে বসবাসের ঘর নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায় বন্যতলার ইয়াকুব আলীর।

সেই থেকেই থাকার জায়গা না পেয়ে জীবিকার অবলম্বন মাছ ধরার নৌকায় সাত সদস্যের পরিবার নিয়ে বসবাস করছেন তিনি।

এরই মধ্যে মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা ৫০ মিনিটে নৌকাতেই একটি ফুটফুটে ছেলে সন্তান জন্ম দেন ইয়াকুব আলীর স্ত্রী মিনারা খাতুন।

শ্বশুর বাড়িও একই গ্রামে হওয়ায় সন্তান সম্ভবা স্ত্রীকে নিয়ে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে পারেননি ইয়াকুব আলী। তাই নৌকাতেই পৃথিবীর মুখ দেখলো নবজাতক।  

ইয়াকুব আলী জানান, মা-ছেলে দু'জনই সুস্থ আছেন। ছেলের নাম রেখেছেন ওমর ফারুক।

তিনি আরো বলেন, উপার্জনের একমাত্র অবলম্বন নৌকাতেই এখন বাস করতে হচ্ছে, মাছ ধরতে পারছি নে। ফলে পরিবারে খাদ্যাভাব দেখা দিয়েছে। সন্তান আর তার মাকে যে কোন ঘরে রাখবো, তারও কোনো ব্যবস্থা নেই। আগে দরকার মাথা গোঁজার একটা জায়গা। টেনশনে আছি, খাবাবো কি, আর রাখবো কনে?

স্থানীয় বাসিন্দা মাসুম বিল্লাহ জানান, আল্লাহ সহায় ছিলেন বলে নরমল ডেলিভারিতে সন্তান হয়েছে। তা না হলে দুর্ঘটনা ঘটার ঝুঁকি ছিল। বর্তমানে পরিবারটি মানবেতর জীবনযাপন করছে। দ্রুত তাদের খাদ্য ও বাসস্থান প্রয়োজন।
 
ঘূর্ণিঝড় আম্পান ও ইয়াসের পর এখনো জোয়ার-ভাটার সঙ্গে সংগ্রাম করে বসবাস করছেন উপকূলের মানুষ। অনেকইে বাড়ি ঘর ভেঙে এলাকা ছেড়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪১ ঘণ্টা, নভেম্বর ৪, ২০২১
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa