ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

ব্যাংকিং

সিএসএমইখাতে ঋণ সুবিধা বাড়লো

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৭০১ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৬, ২০২০
সিএসএমইখাতে ঋণ সুবিধা বাড়লো

ঢাকা: করোনাভাইরাসে সিএসএমইখাতের ক্ষতিগ্রস্ত উদ্যোক্তাদের সুবিধা দিতে ব্যবসা (ট্রেডিং) উপখাতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের বাৎসরিক ঋণ/বিনিয়োগের আনুপাতিক হার ৩০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে সর্বোচ্চ ৩৫ শতাংশ পুনঃনির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বৃহস্পতিবার (২৬ নভেম্বর) এ বিষয়ে একটি সার্কুলার জারি করে সব তফসিলি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের কাছে পাঠিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এতে বলা হয়েছে, বিদ্যমান তথ্য-উপাত্ত পর্যালোচনায় ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের ঋণ/বিনিয়োগের বড় অংশ ট্রেডিং খাতে বিনিয়োগ করা হয়েছে বলে দেখা যায়। এই খাতে বিনিয়োগের আনুপাতিক হার বৃদ্ধি করা হলে আরও অধিক সংখ্যক ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহককে ওই প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় অন্তর্ভুক্তিকরণ সহজ হবে। একই সঙ্গে এ বিষয়টিও পরিলক্ষিত হচ্ছে যে, আলোচ্য প্যাকেজের আওতায় কিছু ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঋণ/বিনিয়োগ বিতরণ কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে পৌঁছাতে সক্ষম হয়নি। উৎপাদন ও সেবা শিল্পে কর্মসংস্থান বহাল রাখার পাশাপাশি ব্যবসায় (ট্রেডিং) নিয়োজিত প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্ত উদ্যোক্তাদের ক্ষতি হ্রাসকল্পে ওই উপখাতে ঋণ চাহিদা পূরণের লক্ষ্যে চলতি মূলধন বাবদ ঋণ/বিনিয়োগ সুবিধা দেওয়ার জন্য এবং আলোচ্য প্যাকেজের সুষ্ঠু বাস্তবায়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নিন্মোক্ত সিদ্ধান্ত গৃহীত হলো:

অত্র প্রণোদনা প্যাকেজের আওতায় ব্যবসা (ট্রেডিং) উপখাতে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান কর্তৃক প্রদত্ত/প্রদেয় বিনিয়োগ এর অনুপাত বাৎসরিক ঋণ/বিনিয়োগের ৩০ শতাংশের বেশি হলে (যা কোনোভাবেই ৩৫ শতাংশের অধিক হতে পারবে না) সমানুপাতিক হারে উৎপাদন ও সেবা উপখাতে প্রদত্ত/প্রদেয় ঋণ/বিনিয়োগের অনুপাত হ্রাস পাবে। তবে, ওই উৎপাদন ও সেবা উপখাতে প্রদত্ত/প্রদেয় সামগ্রিক ঋণের অনুপাত ৬৫ শতাংশের কম হবে না।

এসএমইএসপিডি সার্কুলার নং-১/২০২০ এর ৪(খ), ৪(গ) ও ৪(ঘ) এবং এসএমইএসপিডি সার্কুলার লেটার নং০৭/২০২০ এর ২(খ) নং অনুচ্ছেদে বর্ণিত ঋণসীমা নির্ধারণে উৎপাদন, সেবা ও ব্যবসা উপখাতে গ্রাহকের ক্ষতির মাত্রা বিবেচনা করে বিদ্যমান/নতুন ঋণ/ নিয়োগ গ্রহীতা প্রতিষ্ঠানের অনুকূলে প্রদেয় ঋণ/বিনিয়োগের পরিমাণ (চলতি মূলধন) সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের বিদ্যমান ঋণ-নীতিমালার আওতায় ব্যাংকার গ্রাহক সম্পর্কের ভিত্তিতে নির্ধারিত হবে। তবে, বিদ্যমান গ্রাহকের ক্ষেত্রে উল্লিখিত সীমা পূর্ববর্তী বছরে প্রদত্ত চলতি মূলধন ঋণ/বিনিয়োগ সুবিধার অধিক হবে না; এবং আলোচ্য প্যাকেজের আওতায় ঋণ/বিনিয়োগ বিতরণ লক্ষ্যমাত্রা বাস্তবায়নের সময়সীমা ডিসেম্বর ৩১, ২০২০ তারিখ পুনঃনির্ধারণ করা হলো। এতদ্ব্যতীত বর্ণিত সাকুর্লার ও সার্কুলার লেটারের অন্যান্য নির্দেশনা অপরিবর্তিত থাকবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৬, ২০২০
এসই/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa