ঢাকা, সোমবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

ব্যাংকিং

তথ্য নিরাপত্তার ঝুঁকিতে ৫২ শতাংশ ব্যাংক

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৯ ঘণ্টা, মে ৪, ২০১৭
তথ্য নিরাপত্তার ঝুঁকিতে ৫২ শতাংশ ব্যাংক আইটি অপারেশনস অব ব্যাংক’ শীর্ষক কর্মশালায়। ছবি: সুমন শেখ

ঢাকা: দেশে কার্যরত ব্যাংকগুলোর ৫২ শতাংশই তথ্য নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে। এর মধ্যে ১৬ শতাংশ খুব উচ্চ নিরাপত্তা ঝুঁকিতে এবং ৩৬ শতাংশ  উচ্চ নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রয়েছে বলে বিআইবিএমের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৪ মে) রাজধানীর মিরপুরে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ব্যাংক ম্যানেজমেন্ট (বিআইবিএম) অডিটোরিয়ামে ‘আইটি অপারেশনস অব ব্যাংক’ শীর্ষক কর্মশালায় এক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।
 
প্রতিবেদনটি উপস্থাপন করেন বিআইবিএমের সহযোগী অধ্যাপক মো. শিহাব উদ্দিন খান।

  দেশের ব্যাংকগুলোর আইটি বিভাগের সংশ্লিষ্টদের মতামত নিয়ে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছেন বিআইবিএম’র সহযোগী অধ্যাপক মো. শিহাব উদ্দিন খান, মাহবুবুর আলম খান, কানিজ রাব্বী ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের ফার্স্ট ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ ইমদাদুল হক খান।
 
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৬ শতাংশ ব্যাংক মনে করে তাদের বর্তমান তথ্য নিরাপত্তা যথেষ্ট নয়। তারা খুবই উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। ৩৬ শতাংশ ব্যাংক মনে করে, যে কোনো মুহূর্তে তাদের তথ্য চুরি হতে পারে। এছাড়া ৩২ শতাংশ ব্যাংক কিছুটা কম ঝুঁকিতে রয়েছে। তবে ১২ শতাংশ ব্যাংক কম ঝুঁকিতে রয়েছে। আর ৪ শতাংশ মনে করছে, তথ্য প্রযুক্তিতে তাদের ব্যাংক কোন ঝুঁকিতে নেই।
 
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১০ শতাংশ ব্যাংক সম্পূর্ণ আইটি সুশাসন বাস্তবায়ন করেছে। আংশিকভাবে বাস্তবায়ন করেছে ২২ শতাংশ ব্যাংক। ৬০ শতাংশ ব্যাংক আইটি সুশাসন বাস্তবায়নের উদ্যোগ নিয়েছে। তবে কবে নাগাদ শেষ হবে তার কোন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেনি। আর এখনো উদ্যোগই নেয়নি ৮ শতাংশ ব্যাংক।
 
বিআইবিম’র প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোর আইটি ব্যবস্থাপনায় কর্মরতদের মধ্যে সন্তোষজনক কার্যক্রম ৫২ শতাংশ কর্মীর। ভালো ২৮ শতাংশ। খুব ভালো ৮ শতাংশ। দুর্বল ১২ শতাংশ। চমৎকার কোন কর্মীই নাই।
 
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোর ১ নম্বর ক্যাটাগরির অবকাঠামো আছে ৮৮ শতাংশ ব্যাংকের। ২ নম্বর ক্যাটাগরির ৫ শতাংশ। ১ ও ২ নম্বর ক্যাটাগরি মিলে আছে ৭ শতাংশ ব্যাংকের অবকাঠামো।
 
কর্মশালা উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর আবু হেনা মোহা. রাজী হাসান। স্বাগত বক্তব্য দেন, বিআইবিএমের মহাপরিচালক ড. তৌফিক আহমেদ চৌধ‍ুরী।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৬ ঘণ্টা, মে ৪, ২০১৭
এসই/জেডএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।