ঢাকা, বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৯ মে ২০২৪, ২০ জিলকদ ১৪৪৫

আওয়ামী লীগ

শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৪৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৮
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ উন্নয়নের মহাসড়কে

নীলফামারী: সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এখন উন্নয়নের মহাসড়কে। ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় এসে দেশের উন্নয়ন না করে হাওয়া ভবন নামে একটি অফিস খুলে বসে। সেখানে পয়সা না দিলে ব্যবসায়ীরা ব্যবসা করতে পারেনি। আর এখন জামায়াত-বিএনপিসহ সবস্তরের ব্যবসায়ী স্বাধীনমত ব্যবসা করছে।

শনিবার (১৫ নভেম্বর) দুপুরে জেলা জাতীয় পার্টির কার্যালয় চত্বরে মহাজোটের নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সংস্কৃতিমন্ত্রী বলেন, ১০ লাখ রোহিঙ্গা মুসলমানদের খাওয়া-দাওয়ার দায়িত্ব নিলেন শেখ হাসিনা।

কিন্তু পৃথিবীতে অনেক বড় বড় ধনী মুসলিম দেশ আছে কেউ তাদের খোঁজ খবর ও খাওয়ার দায়িত্ব নিলো না। কারণ তিনি সব সময়ে একজন মমতাময়ী মায়ের ভূমিকা পালন করেন।

তিনি বলেন, আমরা এখন উন্নয়নের মহাসড়কে চলছি। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে উত্তরাঞ্চলের মানুষের মঙ্গা দূর করার জন্য উত্তরা ইপিজেড প্রতিষ্ঠা করেন। কারণ এই অঞ্চলের মানুষের হাতে আশ্বিন-কার্তিক মাসে কাজ থাকে না। তখন মানুষের অভাব বেশি হয়। শুরু হয় মঙ্গা। আর এই মঙ্গাকে ইপিজেড তৈরি করে চিরতরে বিদায় করে দেন শেখ হাসিনার সরকার।

তিনি আরো বলেন, ২০০১ সালে খালেদা জিয়া ক্ষমতায় এসে উত্তরা ইপিজেড বন্ধ করার ষড়যন্ত্র শুরু করেন। খালেদা জিয়া বলে ছিল প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলে এই ইপিজেড চলতে পারে না। এখানে বিদেশিরা আসবেনা। আর এখন সেই ইপিজেডে ২১ টি কারখানায় ৩২ হাজার শ্রমিক (নারী পুরুষ) সেখানে কাজ করে আর্থ সামাজিক উন্নয়ন করেছে। আগামী দেড় থেকে দু’বছরের মধ্যে সেখানে কাজ পাবে ৫০ হাজার শ্রমিক।  

জেলা জাতীয় পার্টির নেতা ওমেদ আলীর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুজার রহমান, জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ পরভেজ প্রমুখ।

বাংলােদশ সময়: ১৮৪০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৮
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।