ঢাকা, বুধবার, ২ ভাদ্র ১৪২৯, ১৭ আগস্ট ২০২২, ১৮ মহররম ১৪৪৪

আওয়ামী লীগ

বিএনপিপ্রার্থীরা এলাকায় না গিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৫২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০১৮
বিএনপিপ্রার্থীরা এলাকায় না গিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন নির্বাচনী পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন তোফায়েল আহমেদ। ছবি: বাংলানিউজ

ভোলা: ভোলা-১ (সদর) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ও বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, বিএনপি প্রার্থীরা জনরোষের ভয়ে আছেন। তারা ১০ বছর ধরে এলাকায় আসেননি। এখন ঢাকায় বসে খবরের কাগজে বিবৃতি দিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন।

বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) বিকেলে ভোলা সদরের পশ্চিম ইলিশা ইউনিয়নের চর জাঙ্গালিয়া স্কুল অ্যান্ড কলেজের মাঠে নির্বাচনী পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তোফায়েল বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গরিব, দুঃখী ও মেহনতি মানুষের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন তার পিতা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মতো।

আজ তাই তিনি আন্তর্জাতিক বিশ্বের সম্মানিত ও মর্যাদাশীল নেতা। তার নেতৃত্বের প্রতি আস্থা রেখে ৩০ ডিসেম্বর নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে আবারও বিজয়ী করতে হবে। ’

তিনি বলেন, ‘অসহায় মানুষের জন্য ভিজিএফ কার্ড, বৃদ্ধ ভাতা, বয়স্ক ভাতা, স্বামী পরিত্যক্তা ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতাসহ অনেক সুযোগ-সুবিধা দিয়ে যাচ্ছে এ সরকার। এতে করে মানুষের অনেক উপকার হচ্ছে। জীবনমান আগের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। ’

গত ১০ বছরের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে যেই স্কুলের মাঠে সভা হচ্ছে সেটি এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। এখনে কলেজ ভবন নির্মাণ করে দিয়েছে এ সরকার। গ্রামের কাঁচা রাস্তা পাকা করে দিয়েছি। অন্ধকার গ্রামে বিদ্যুৎ এনে দিয়েছি। মেঘনার নদীর ভাঙন রোধসহ অনেক উন্নয়ন হয়েছে। নির্বাচনের পরে ভোলা-বরিশাল সেতু নির্মাণ কাজ আরম্ভ হবে। ’

২০০১ সালের নির্বাচনের পরে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ওপর অত্যাচার–নির্যাতনের প্রসঙ্গও উল্লেখ করে বর্ষীয়ান এ নেতা বলেন, ‘আব্দুল মালেক নামে এক লোকের দু’টি চোখ তুলে নেওয়া হয়েছে। মায়ের সামনে মেয়েকে পাশবিক নির্যাতন করেছে। মরিচের গুড়া নিক্ষেপ করে আওয়ামী লীগের মিটিংয়ে পণ্ড করে দিয়েছে। মিলাদ পড়তে দেওয়া হয়নি। কিন্তু আমরা ১০ বছরের ক্ষমতায় একজন মানুষের ওপরেও অত্যাচার করিনি। আমরা কোনো মারামারি-হানাহানি করে ভোটে জয়লাভ করতে চাই না। আমরা জনগণের ভোটে নির্বাচিত হতে চাই। ’

সবাইকে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে সবার প্রতি অনুরোধ জানান তোফায়েল আহমেদ।

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি মো. ছগির মাস্টারের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- জেলা আওয়ামী লীগ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আব্দুল মমিন টুলু, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোশারেফ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগ সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুল হোসেন বিপ্লব, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো, ইউনুছ প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২০৫২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
জিপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa