ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ মাঘ ১৪২৯, ০৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৫ রজব ১৪৪৪

আওয়ামী লীগ

মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২, ২০১৮
মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান মুছে ফেলার চেষ্টা হয়েছে আলোচনা সভা বক্তব্য রাখেছেন দীপু মনি/ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি ইসলামের কথা বলে মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান অস্বীকার ও মুছে ফেলার চেষ্টা করেছিল বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক পরারাষ্ট্রমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ডা. দীপু মনি।

মঙ্গলবার (০২ জানুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লাবে মিলনায়তনে 'মুক্তিযুদ্ধে নারীর অবদান' শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ এ আলোচনা সভার আয়োজন করে।

 

দীপু মনি বলেন,  মুক্তিযুদ্ধে নারীদের ভূমিকা ছিলো স্মরণীয়। তবে ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে মুক্তি নারীর অবদান মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়। মুক্তিযুদ্ধে নারীর সাহসী ভূমিকাকে প্রধান্য দেওয়া হয়নি। শেখ হাসিনা সরকার ক্ষমতা এসে নারী মুক্তিযোদ্ধাদের সব সুযোগ সুবিধা ও প্রাপ্য সম্মান দিয়েছে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতাবিরোধী শক্তি যেন আর ক্ষমতায় আসতে না পারে,  এজন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে হবে।  

জাতীয় নির্বাচনে জয় নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলে মুক্তিযোদ্ধারা সম্মানিত হয়। আর সাধারণ মানুষ ভালো থাকে। তাই আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার ভোট দিয়ে জয় নিশ্চিত করতে। বাংলাদেশের মানুষ দেশের অব্যাহত উন্নয়ন চায়, গণতন্ত্রকে টিকিয়ে রাখতে চায়। এজন্য শেখ হাসিনাকে ভোট দেওয়ার বিকল্প নেই।

তিনি বলেন, নারীর এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিরোধ, বাধার দেয়াল তুলবেন না। তাহলে দেশ পিছিয়ে যাবে। নারী-পুরুষের অবদানে একটি দেশ এগিয়ে যায়। নারীর পথের প্রতিবন্ধকতা দূর করতে হবে। তাহলে যে নারী মুক্তিযুদ্ধ স্বাধীনতা আন্দোলনে অবদান রেখেছে সে নারী দেশকে এগিয়ে নেওয়ার ক্ষেত্রে অবদান রাখবে।  

বিএনপি-জামায়াত নারী উন্নয়ন বিরোধী শক্তি বলে জানিয়ে এই নারী নেত্রী বলেন, দুর্নীতিবাজ, জঙ্গিবাদ ও লুটেরা দল বিএনপি-জামায়াত। জামায়াত ও অনেক ইসলামী দল নারীকে ভোগের বস্তু মনে করেন। নারীর অগ্রযাত্রায় বাধা হয়ে দাঁড়ান। আর খালেদা জিয়া তাদের দোসর। আসুন আমরা তাদের রুঁখে আওয়ামী লীগের জয় নিশ্চিত করি।  

আয়োজক সংগঠনের নারী সম্পাদক হালিমা আক্তার লাবণ্যের সভাপতিত্বে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি বেনজীর আহমদ, ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ, জাতীয় মহিলা সংস্থার সভাপতি মমতাজ বেগম, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন, মুক্তিযোদ্ধা মুকুল মজুমদার প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০২, ২০১৭
এমসি/এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa