ঢাকা, শনিবার, ১৪ মাঘ ১৪২৯, ২৮ জানুয়ারি ২০২৩, ০৫ রজব ১৪৪৪

আওয়ামী লীগ

ফেনীতে ফের রক্তপাতের শঙ্কা জেলা আ’লীগের

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২০৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ২২, ২০১৭
ফেনীতে ফের রক্তপাতের শঙ্কা জেলা আ’লীগের ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সংবাদ সম্মেলন। ছবি: বাংলানিউজ

ফেনীঃ এক সময় সন্ত্রাসের জনপদ নামে পরিচিতি পেয়েছিলো ফেনী। এই শহরকে তখন তুলনা দেওয়া হতো যুদ্ধ জর্জরিত লেবাননের সঙ্গে। বলা হতো বাংলার লেবানন। সেই কুখ্যাতি কাটিয়ে ধীরে ধীরে শান্তির জনপদ হয়ে উঠেছে ফেনী। কিন্তু ফের এ জনপদে রক্তপাতের আশঙ্কা করছে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগ।

বুধবার (২২ নভেম্বর) বিকালে শহরের এক অভিজাত রেস্টুরেন্টে জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এমন আশঙ্কার কথা জানান জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও ফেনী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুর রহমান বিকম।

লিখিত বক্তব্যে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘আমরা আশঙ্কা করছি, জয়নাল হাজারী এবং তার দোসররা ফেনীর রাজনীতি অস্থিতিশীল করার লক্ষে এবং তাদের ব্যক্তিগত স্বার্থ হাসিল করার জন্য যে কোনো ধরনের রক্তপাতের ঘটনা ঘটিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের উপর দোষ চাপাতে পারেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, গত ২১ ও ১৩ নভেম্বর ঢাকা প্রেসক্লাবে ফেনীর কথিত গড়ফাদার জয়নাল হাজারীর শীর্ষ ক্যাডার আজহারুল হক আরজু ও ডাইল শাখাওয়াত সংবাদ সম্মেলন করেন। ওই সম্মেলনে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগকে কিছু বিষয়ে দায়ী করে আলাউদ্দিন চৌধুরী নাসিম ও নিজাম উদ্দিন হাজারীকে দোষারোপ করে বক্তব্য দেন। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

আওয়ামী লীগ সভাপতি আরো বলেন, জয়নাল হাজারীর এ দুই দোসর ফেনীতে খালেদা জিয়ার গাড়ি বহরে হামলা নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে। কিন্তু আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক এম.কে.এম এনামুল হক শামীম ও ফেনী জেলা আওয়ামী লীগ বিষয়টি পরিষ্কার করেছেন।

তিনি আরো বলেন, ঢাকায় ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন আহবানকারী আজহারুল হক আরজু ও ডাইল সাখাওয়াত নিজেদের যুবলীগের নেতা পরিচয় দিলেও তারা দলের কেউ নন। আগেও তাদের কোন-পদবি ছিলো না, বর্তমানেও নেই। তারা জয়নাল হাজারীর পালিত সন্ত্রাসী।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন- ফেনীর প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজ আহম্মদ চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আক্রামুজ্জামান, প্রিয় রঞ্জন দত্ত, হাফেজ আহম্মদ, মাস্টার আলী হায়দার, ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, ফুলগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল আলীম, পরশুরাম উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল মজুমদার, সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান জেডএম কামরান, দাগনভুঞাঁ উপজেলা চেয়ারম্যান দিদারুল কবির রতন, সোনাগাজী পৌরসভা মেয়র অ্যাডভোকেট রফিক, ফেনী পৌরসভার প্যানেল মেয়র নজরুল রইসলাম স্বপন মিয়াজী, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্রশীলসহ জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭৪৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২২, ২০১৭
এসএইচডি/জেডএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa