ঢাকা, শনিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৮ মে ২০২৪, ০৯ জিলকদ ১৪৪৫

কৃষি

গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন সালথার কৃষক

হারুন-অর-রশীদ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২২৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ৭, ২০২৪
গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন সালথার কৃষক

ফরিদপুর: ফরিদপুরের সালথা উপজেলার কৃষকদের একসময় গম চাষে আগ্রহ থাকলেও দিনদিন গম চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন এ উপজেলার চাষিরা। তুলনামূলক কম দাম পাওয়ায় আর বেশি লাভবান হওয়ার আশায় কৃষকরা গম চাষ থেকে ঝুঁকছেন পেঁয়াজ আবাদে।

তবে উপজেলা কৃষি অফিসের তথ্য বলছে, লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় এ বছরে সালথা উপজেলায় গম চাষ বেশি হয়েছে। তাদের দেওয়া তথ্যমতে দেখা যায়, উপজেলাটিতে গম চাষের লক্ষ্যমাত্রা ছিল- ৮৫০ হেক্টর। তবে, আবাদ হয়েছে ৮৮০ হেক্টর জমিতে। লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৩০ হেক্টর জমিতে বেশি চাষ করা হয়েছে গম।

স্থানীয় কয়েকজন গম চাষি জানান, কয়েক বছর আগে মাঠে মাঠে দেখা যেত গম আর গম। কম খরচে বেশি লাভবান হওয়ায় গম চাষে আগ্রহ থাকতো কৃষকের। তবে, সম্প্রতি বছরগুলোতে বেশি লাভের আশায় পেঁয়াজ চাষে ঝুঁকছেন কৃষক। তাইতো, গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন এ উপজেলার কৃষক।

এ ছাড়া উপজেলাটিতে গম চাষে সরকারি তেমন প্রণোদনা না থাকায় ও উৎসাহের অভাবে কৃষক গম চাষ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। ফলে কয়েক বছরে ধীরে ধীরে এ উপজেলায় কমেছে গম চাষ।

গম লাভজনক ফসল হলেও কৃষকেরা বলছেন- 'আগ্রহ হারানোর পেছনে অন্যতম কারণ উৎপাদন খরচের তুলনায় মুনাফা না পাওয়া। এদিকে কৃষি অধিদপ্তর মনে করছে- অল্প সময়ে, স্বল্প খরচে পেঁয়াজ আবাদে অধিক ফলন ও মুনাফা হওয়ায় গম চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন কৃষক। '

সালথা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সুদর্শন শিকদার বাংলানিউজকে বলেন, 'অধিক লাভের আশায় উপজেলাটির কৃষকরা পেঁয়াজ চাষে বেশি ঝুঁকছেন। তবে উপজেলাটিতে এ বছরে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় বেশি গমের আবাদ হয়েছে। আমরা প্রণোদনাও দিয়ে আসছি। তবে গম চাষে কৃষকদের মাঝে আরও বেশি প্রণোদনা দিয়ে ধীরে ধীরে এ আবাদে আরও বেশি আগ্রহ সৃষ্টি করা হবে। '

বাংলাদেশ সময়: ১২২৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৭, ২০২৪

আরএ

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।