ঢাকা, বুধবার, ৭ আশ্বিন ১৪২৮, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৩ সফর ১৪৪৩

প্রবাসে বাংলাদেশ

একুশের প্রথম প্রহরে জাতিসংঘের সামনে মানুষের ঢল

বিশ্বজিত সাহা, নিউইয়র্ক থেকে | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৪৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১২
একুশের প্রথম প্রহরে জাতিসংঘের সামনে মানুষের ঢল

নিউইয়র্ক: প্রাণের টানে প্রচণ্ড ঠাণ্ডা উপেক্ষা করে একুশের প্রথম প্রহরে নিউইয়র্কে জাতিসংঘ ভবনের সামনে নেমেছিলো মানুষের ঢল। এর মধ্যে ছিলেন লেখক, সাংবাদিক, কবি, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবী, সংসদ সদস্যসহ শতাধিক রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব।



রাত ১২টা ০১ মিনিটে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর মাধ্যমে দিবসের সূচনা করা হয়।

মুক্তধারা ফাউন্ডেশন ও বাঙালির চেতনা মঞ্চের উদ্যোগে গত বিশ বছরের পরম্পরায় উপস্থিত চার বছরের শিশু শাহাদিরের ফুল দেওয়ার মাধ্যমে শহীদ বেদিতে পুষ্পস্তবক প্রদান শুরু হয়। এরপর একে একে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংসদ সদস্য তহুরা আলী, নিউজার্সির কাউন্সিলম্যান ও বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ড. নূরুন নবী, প্রাবন্ধিক হাসান ফেরদৌস, টরন্টো থেকে আগত কবি ইকবাল হাসান, ম্যানহাটান পার্ক অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট শ্যারন, সাংবাদিক ও বইমেলা ২০১২ এর আহ্বায়ক নাসিমুন নাহার নিনি, কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক  দ্বিজেন ভট্টাচার্য ও যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।

এর আগে ২০ ফেব্রুয়ারি রাত সাড়ে ১০টা থেকে শহীদ মিনারের বাম দিকে নিউইয়র্কের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের শিল্পীরা একুশের গান ও দেশাত্মবোধক সংগীত পরিবেশন করেন।

রাত ১১টা ৪৫ মিনিটে মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা বিশ্বজিত সাহা একুশের প্রথম প্রহরের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের জন্য যুক্তরাষ্ট্রের সকল সংবাদ মাধ্যম, প্রবাসী বাঙালি ও অংশ্রগহণকারী সকল সংগঠনকে ধন্যবাদ জানান।

এছাড়া ১৯৯২ সালে জাতিসংঘের সামনের শহীদ মিনার নির্মাণের প্রধান শিল্পী ও বাঙালির চেতনা মঞ্চের সদস্য সজল পালের অকাল মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করা হয়।

এ সময় ভাষা শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এর পরপরই রাত ১২টা ১ মিনিটে শুরু হয় ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর কর্মসূচি।

এর আগে ২০ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ ও আমেরিকার ২১টি জাতীয় পতাকা এবং ভাষা শহীদদের স্মরণে বিভিন্ন ফেস্টুনে জাতিসংঘ ভবনের সামনের গুরুত্বপূর্ণ স্থানটি গভীর রাতে আলোকিত করে তোলা হয়। সন্ধ্যা ৬টার পর থেকেই ছোট্ট শিশুদের নিয়ে তাদের বাবা মায়েরা শহীদ মিনারে আসতে থাকেন। ভিড় দেখে অনেক আমেরিকানই থমকে দাঁড়িয়েছে। তারা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ইংরেজি পোস্টার পড়ে জানতে চায় ভাষা শহীদদের কথা।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী লীগের পর পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন যুক্তরাষ্ট যুবলীগ, জাসদ যুক্তরাষ্ট্র শাখা, নর্থ আমেরিকা আওয়ামী লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ যুক্তরাষ্ট্র শাখা, স্বাধীনতা চেতনা মঞ্চ, গণতন্ত্রী পার্টি, যুক্তরাষ্ট্র শাখা, বৃহত্তর নোয়াখালী সমিতি, জাতীয় শ্রমিক লীগ, যুক্তরাষ্ট্র ছাত্রলীগ, আবাহনী ক্রীড়াচক্র, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, জাতীয় সমন্বয় কমিটি যুক্তরাষ্ট্র শাখা, সাপ্তাহিক আজকাল, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, ফ্রেন্ড সোসাইটি, বৃহত্তর বরিশাল সমিতি, নিউইয়র্ক স্টেট জাসদ, এডাব বাংলাদেশ, ফেঞ্চুগঞ্জ সমিতি, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক গোষ্ঠী, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট যুক্তরাষ্ট্র শাখা, লাগার্ডিয়া কলেজ ছাত্র সংসদ, বৃহত্তর সিলেট সমিতি, সাহিত্য পরিষদ, আবৃত্তি একাডেমি, শরীয়তপুর সমিতি, বাংলাদেশ হিন্দু মন্দির, মুক্তধারা ফাউন্ডেশন, বাঙালির চেতনা মঞ্চসহ বিভিন্ন সংগঠন।

বাংলাদেশ সময়: ০৮২৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১২

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa