[x]
[x]
ঢাকা, বুধবার, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ১৪ নভেম্বর ২০১৮
bangla news

এখানে তরুণীরা 'ওপ্পা' বলতে অজ্ঞান

মাজেদুল নয়ন, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০৯-২৬ ৯:৫৫:২৩ এএম
লি‘র পোস্টার ও তার ভক্তরা। ছবি: মাজেদুল নয়ন

লি‘র পোস্টার ও তার ভক্তরা। ছবি: মাজেদুল নয়ন

সিঙ্গাপুর থেকে: গত কদিন ধরেই অরচার্ড রোডে ব্যস্ততা ছিল আইফোন এইট এবং আইফোন এইট প্লাস কিনতে আসা মানুষের। দুটি ফ্লোর নিয়ে এটা বিশাল শো রুম এ্যাপলের। তবে অন্য যে কোনো দিনের তুলনায় মঙ্গলবার বিকেলে এখানে ভিড় কম।

অরচার্ড প্লাজা থেকে ৩০০ মিটার দূরে আইওএন মল। সেখানে এসেছেন কোরিয়ান ড্রামা স্টার লি ডং উক। তরুণীদের মিছিল আজ সেদিকেই।

বাংলাদেশেও এখন কোরিয়ান ড্রামার ভক্ত রয়েছে শুনি। তবে তাদের উপস্থিতি জানা যায় না খুব বেশি।

’৯০ দশকের মাঝামাঝি বাংলাদেশে ডিশ কেবল সংযোগ সহজ হয়ে গেলে শাহরুখ খান আর সালমান খানরা জায়গা করে নেয় তরুণীদের মনে। তবে নিজ অভিজ্ঞতায় মনে হচ্ছে সেই ক্রেজটা ২০০০ এর পর অনেকটাই কমে এসেছে।

লি’র জন্য ভক্তদের অপেক্ষা। ছবি: মাজেদুল নয়ন ভারতের বেঙ্গালুরুর ফ্রন্টলাইন ম্যাগাজিনের সাংবাদিক ভিকার আহমেদ সাঈদ এবং মুম্বাই মিররের চৈতন্য মারপেকার, এমনকি নেপালের গিরিশ গিরি সকলেই জানালেন তাদের দেশে কোরিয়ান মুভি বা ড্রামার চাহিদা এখনো তেমন গড়ে উঠেনি। এ থেকে অনুমান করা যায় দক্ষিণ এশিয়ায় কোরিয়ান ওপ্পারা খুব বেশি জায়গা করে নিতে পারেনি এখনো।

ওপ্পা? প্রথমে থাই নিউজ নেটওয়ার্কের সাংবাদিক কালনালাওই ওয়াকেলহংয়ের মুখে এই ওপ্পা ডাক শোনা যায়। ইন্দোনেশিয়ার জাকার্তা পোস্টের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক দামার হারসানতোকে এই নামেই ডাকে সে। দামারও সহজাত জবাব দেয়। এটা কি তবে 'ভাই' এর মতো ডাক থাইল্যান্ডে?
লি’র জন্য ভক্তদের অপেক্ষা। ছবি: মাজেদুল নয়নধীরে ধীরে জানতে পারলাম, দক্ষিণ কোরিয়ার ড্রামাগুলোতে বয়সে বড় পুরুষদের ওপ্পা বলে ডাকা হয়। কোরিয়ান ড্রামার নায়ক বা সুদর্শন পুরুষরা সকলেই তার ওপ্পা। কানালাই কোরিয়ান ড্রামার অন্ধ ভক্ত।

চায়নার সাউদার্ন মেট্রোপলিসের সাংবাদিক সোফিয়া সুয়াং সুয়েচিন, মালয়েশিয়ার সিন চু পত্রিকার সাংবাদিক কো চিহ হোয়াং-এ সব তরুণীরাই ওপ্পা বলতে অজ্ঞান। কোরিয়ান ড্রামা একবার দেখা শুরু করলে থামা কঠিন হয়ে যায়।

দামার বললেন, পুরো দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার বাজার এখন কোরিয়ান বিনোদন শিল্পের হাতে। তিনি বলেন, তার অফিসের অনেক কর্মী এখন কোরিয়ান ড্রামায় অভিনীত তরুণীদের মতোই পোশাক-আশাক পরে। এমনকি অফিসেও অাজগুবি সব বেশে আসে। একেবারে 'ম্যাড' যাকে বলে।

থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর, ইন্দোনেশিয়া এবং মালয়েশিয়ার গণমাধ্যমগুলোর বিনোদন পাতায় ধীরে ধীরে হলিউডের রিপোর্ট কমে আসছে, জায়গা করে নিচ্ছে কোরিয়ান ড্রামা আর ফিল্মের গল্প।

যাই হোক, ফিরি আইওন শপিং মলে। আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ড জেন্টেল মনস্টোরের নতুন শো রুমের উদ্বোধন করতে এসেছেন লি ডং উক। সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় উদ্বোধন। বিকেল ৪টা থেকেই মলের বিভিন্ন ফ্লোরে অপেক্ষা করছেন ভক্তরা। তার মধ্যে আটানব্বই ভাগই তরুণী ও কিশোরী। অনেকেই হাতে ফুল নিয়ে এসেছেন। যদিও তারা নিশ্চিত নন, লি ডংকে দেখতে পাবেন কি না।

আমার বন্ধু কানালাই যেন থরথর করে কাঁপছেন। ওপ্পাকে সামনা সামনি দেখার উত্তেজনা সামলাতে পারছেন না। ছবি তুলবেন, নাকি ভিডিও করবেন, নাকি শুধু চোখে দেখবেন, মার্কেটের কোন পথ ব্যবহার করতে পারে এসব সিদ্ধান্ত নিতে নিতে যেন ঘামছে সে।

তরুণীদের এদিক সেদিক ঘোরাফেরা থামাতে বেশ বেগ পেতে হচ্ছে নিরাপত্তা রক্ষীদের। অনেকেই জানতে চাচ্ছে কোন পথ দিয়ে আসবেন লি। কিন্তু রক্ষীরা সঠিক উত্তর জানে না বলে জানাচ্ছেন। বাংলাদেশে যেমন শাহরুখ, সালমানরা এলে আমাদের বিনোদন জগতের তারকারা দেখতে যান, এখানেও তাই। তবে স্থানীয় স্টাররা হাত নাড়লেও সেদিকে চোখ নেই লি ভক্তদের। লি'কে একনজর দেখার আশায় ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে হাঁটু ব্যথা করে দাঁড়িয়ে আছে তারা।

এর মধ্যে মালয়েশিয়ার কো চিন বলেছেন, তার পক্ষ থেকে যেন ওপ্পার উদ্দেশ্যে 'ভালবাসি' ধরনের শব্দ উচ্চারণ করা হয়। যত জোরে পারা যায়।
লি’র জন্য ভক্তদের অপেক্ষা। ছবি: মাজেদুল নয়ন ছত্রিশ বছর বয়সী লি ২০ টিরও বেশি ড্রামায় অভিনয় করেছেন। ছয়টির মতো সিনেমায় অভিনয় করেছেন। প্রচুর স্টেজ শো করেছেন। কোরিয়ায় বিভিন্ন ধরনের অ্যাওয়ার্ডও পেয়েছেন তিনি।

হঠাৎ করেই কিচির মিচির চিৎকার বেড়ে গেলো লেভেল ওয়ানে। ভাগ্যবান আমরা সেই ফ্লোরেই আছি। আর ঠিক জেন্টাল মনস্টারের সামনে। মুহুর্তে মেয়েরা যেন উন্মাদ হয়ে গেলো। 'ওপ্পা ওপ্পা সারাং হে ও, ওপ্পা ওপ্পা সারাং হে ও...' বলে চিতকার করতে থাকলো। 'সারাং হে ও' এর মানে হচ্ছে 'ভালবাসি।' ওপ্পা বড় নিষ্ঠুর, মুহুর্তে ঢুকে গেলেন স্টোরে। ২ সেকেন্ডের বেশি দেখা গেলো না।

আশেপাশের মেয়েদের দেখলাম বেহাল অবস্থা। কয়েকজনের তো অজ্ঞান হয়ে পড়ার অবস্থা। 'ওপ্পা ওপ্পা' বলেই যাচ্ছে। নিজেদের চোখকে অনেকে বিশ্বাস করতে পারছেন না যে তারা লি ডং উককে দেখেছেন।

অনেকেই ফুলের দিকে তাকিয়ে আছেন, দেয়া হলো না লি'কে।

বাংলাদেশ সময়: ১০৫০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৭
এমএন/জেডএম

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
db