ঢাকা, রবিবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ১২ রবিউস সানি ১৪৪২

নিউইয়র্ক

নারীদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ‘পিপল অ্যান্ড টেক’র বর্ণাঢ্য আয়োজন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০২২৩ ঘণ্টা, মার্চ ১৫, ২০১৭
নারীদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে ‘পিপল অ্যান্ড টেক’র বর্ণাঢ্য আয়োজন ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: ‘বি বোল্ড ফর চেঞ্জ’ স্লোগানকে সামনে রেখে বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালন করেছে বাংলাদেশি মালিকানাধীন আমেরিকার স্বনামধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ‘পিপল অ্যান্ড টেক’। 

নারীর ক্ষমতায়ন, তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে নারীদের কাজের সম্ভাবনা এবং নতুন প্রজন্মকে উৎসাহিত করতে স্থানীয় সময় শনিবার (১১ মার্চ) যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন ডিসি সংলগ্ন ভার্জিনিয়ায় এ বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভয়েজ অব আমেরিকা বাংলা সার্ভিসের চিফ রোকাইয়া হায়দার, পিপল অ্যান্ড টেক এর সিইও প্রকৌশলী আবুবকর হানিপ, প্রেসিডেন্ট ফারহানা হানিপসহ দেশি-বিদেশি বরেণ্য ব্যক্তিরা।

আরও উপস্থিত ছিলেন আমেরিকায় বসবাসকারী বাংলাদেশি অভিবাসী ও ১২ জনেরও বেশি সফল নারী।

প্রেসিডেন্ট ফারহানা হানিপ উদ্বোধনী বক্তব্যে বলেন, ‘নারীদের আইটি সেক্টরে মেইন স্ট্রিমে নিয়ে আসার জন্য আমরা ‘পিপল অ্যান্ড টেক’ থেকে এ পর্যন্ত দুই হাজারেরও বেশি নারীকে বেসিক কম্পিউটার প্রশিক্ষণ দিয়েছি। প্রতি দুই মাস পরপর আমরা এ প্রশিক্ষণ পরিচালনা করি। ’  

ঢাকা ইউনিভার্সিটি অ্যালামনাই ফোরামের ফাউন্ডার প্রেসিডেন্ট শাহানাজ ফারুক, কো-ফাউন্ডার অব ফরওয়ার্ড হোপ রেহানা পারভিন, ড.  সীমা খান,  আগামী সাউথ ইস্ট চ্যাপ্টার এর প্রেসিডেন্ট  ফারজানা ক্লারা, মেট্রো ওয়াশিংটন মহিলা আওয়ামী লীগ এর সাবেক সভাপতি মহসিনা রিমি, হৃদয়বীণা সংগঠনের প্রেসিডেন্ট  রুমা ভৌমিক প্রমুখ সফল নারী তাদের গল্প শোনান।  

এছাড়া নিজেদের অভিজ্ঞতার কথা বলেন ‘পিপল অ্যান্ড টেক’ থেকে ট্রেনিং নিয়ে এখন উচ্চ বেতনে চাকরিপ্রাপ্ত ও প্রতিষ্ঠিত নুসরাত চৌধুরি, রোজিনা আক্তার রুনি, তানিয়া আক্তার, উমা মেরি, বেবি বিউটি; বক্তব্য রাখেন ‘পিপল অ্যান্ড টেক’ এর ফ্যাকাল্টি আয়েশা আক্তার।  

অনুষ্ঠানে  বিশিষ্টজন মেট্রো ওয়াশিংটন আওয়ামী লীগের সেক্রেটারি মাহমুদুন নবী বাকি, প্রকৌশলী মাজহারুল হক, গ্রেটার ওয়াশিংটন ডিসির বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট অ্যাটর্নি এম আলমগীর, উদিয়ন সংগঠনের সিইও রেদয়ান চৌধুরী, সাংবাদিক অ্যান্থনি পিউস গোমেজ, বিসিসিডিআই এর সাবেক সভাপতি মিজানুর ভুঁইয়া এবং প্রকৌশলী এম এ রশিদ, আলেকজান্দ্রা স্ট্যাব্লারসহ আরও অনেকে নারী অধিকার সংক্রান্ত বক্তব্য রাখেন। যেখানে উঠে আসে সব কাজে নারীরা আজ পুরুষের সহযোদ্ধা হিসেবে অবদান রাখছে।

মাহমুদুন নবী বাকি বলেন, এখান থেকে যারা চাকরি পেয়ে আজ স্বাবলম্বী তাদের গল্প শুনে খুবই ভালো লেগেছে। প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশ ও বাংলাদেশি কমিউনিটির জন্য অনেক কিছু করছে। নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ একটি উজ্জল দৃষ্টান্ত। আমাদের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা একজন নারী, সংসদ এবং মন্ত্রিসভায়ও প্রধান হিসেবে দায়িত্বরত আছেন অনেক নারী নেত্রী।  

এছাড়া অ্যাটর্নি আলমগীর ‘পিপল অ্যান্ড টেক’কে অভিনন্দন জানান এবং তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, তারা শুধু আইটিতেই লিডার নয় নারীদের ট্রেনিংয়ের মাধ্যমে স্বাবলম্বী করে তুলতে তাদের অবদান অনস্বীকার্য।

অনুষ্ঠান সমাপ্ত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক আয়োজন দিয়ে, এ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন নাফিসা নওসিন হানিপ ও ভিক্টোরিয়া হো। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের অভিবাসীরা ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ইথিওপিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের অনেকে।

বাংলাদেশ সময়:০৮১৬ ঘণ্টা, মার্চ ১৫, ২০১৭/আপডেট: ২০১২ ঘণ্টা
আইএ/জেডএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa