bangla news

‘ওবামা, ট্রুডো, মোদির সঙ্গে আরেক বিশ্বনেতা...’

সৈয়দ আনাস পাশা, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬-০৫-২৯ ৩:২৮:৪১ পিএম

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্হিবিশ্বে মর্যাদা পাচ্ছেন বিশ্বনেতার। তার নাম এখন উচ্চারিত হচ্ছে ওবামা, ট্রুডো ও মোদির পাশাপাশি।

লন্ডন: বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্হিবিশ্বে মর্যাদা পাচ্ছেন বিশ্বনেতার। তার নাম এখন উচ্চারিত হচ্ছে ওবামা, ট্রুডো ও মোদির পাশাপাশি।

সদ্য শেষ হওয়া জি-৭ সামিটে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের পরামর্শ চাওয়ার জবাবে আসন্ন গণভোটে ব্রিটেনের ইউরোপিয়ান ইউনিয়নে থাকার বিষয়ে যে মন্তব্য করেছিলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, তাই এখন ছবিসহ ফলাও করে প্রচার হচ্ছে।

ব্রিটেনকে ইইউতে রাখার পক্ষের ক্যাম্পেইন সংগঠনগুলো শেখ হাসিনার এই মন্তব্য তার ছবিসহ ব্যাপক প্রচার করছে। ইইউ পক্ষের শীর্ষ টুইটার ক্যাম্পেইনার স্ট্রংগারইন স্থানীয় সময় বিকেল ২টা ৫৪ মিনিটে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ছবিসহ তার মন্তব্য উদ্ধৃত করে এক টুইটে বলেছে 'ইয়েট এনাদার ওয়ার্ল্ড লিডার জয়েনিং ওবামা, ট্রুডো অ্যান্ড মোদি বেকস ব্রিটেন রিমেইনিং (#strongerIn Europe)। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত স্ট্রংগারইনের টুইটটি রিটুইটও হচ্ছে ব্যাপকভাবে। 

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর ছবির সঙ্গে তার মন্তব্য 'I feel Britain should remain in the EU, you should not come out. The British people are beneficiaries of the EU' উদ্ধৃত করে করা টুইটটি ব্রিটেনের সিনিয়র মেম্বর অব ইউরোপিয়ান পার্লামেন্ট (এমইপি) চার্লস টেনক তার ফেসবুক পেজে শেয়ার দিয়ে বলেছেন, 'আশা করছি বাংলাদেশের দীর্ঘ সময়ের প্রধানমন্ত্রীর আহ্বান ব্রিটিশ-বাংলাদেশীরা বিবেচনায় নেবেন'।

শুক্রবার জি-৭ সামিটের ফাঁকে ব্রিটিশ প্রাধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের সঙ্গে একান্ত বৈঠক হয় শেখ হাসিনার। বৈঠকে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তার দেশ ইউরোপীয় ইউনিয়নভূক্ত থাকবে কি না এ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিতে শেখ হাসিনার পরামর্শ চান। 

জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এ সিদ্ধান্ত পুরোপুরি ব্রিটিশ জনগণ নেবে। তবে তিনি মনে করেন, বিশ্ব যখন আরও একীভূত হওয়ার পক্ষে, পারস্পরিক যোগাযোগ ও সহযোগিতার সম্পর্ক বৃদ্ধির লক্ষ্যে বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে, তখন একটি কার্যকর জোট থেকে ব্রিটেনের সরে যাওয়া উচিত হবে না। ক্যামেরনের সঙ্গে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর এ বৈঠক গুরুত্ব সহকারে প্রচার করে ব্রিটিশ মিডিয়া। 

লন্ডনের জনপ্রিয় সান্ধ্য দৈনিকে এ বিষয়ে দু’টো প্রতিবেদন প্রকাশ করে। ব্রেক্সিট উড ‘রেক দ্যা ইকোনমি’: ডেভিড ক্যামেরন কামস আউট ফাইটিং অন ইইউ ভোট’ এবং ‘ক্যামেরন এপিল: লিসেন টু আওয়ার ফ্রেন্ডস, ইন জি-৭ অ্যান্ড ভোট টু স্টে’ দু’টোতেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কথোপকথনরত ছবি ব্যবহার করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ০১২০ ঘণ্টা, মে ৩০, ২০১৬
এসএইচ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2016-05-29 15:28:41