bangla news

প্রবাসের ৪টি চিঠি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১-০৪-১৭ ৬:১৪:৪০ এএম

কিছুদিন আগেই দেশে ব্যাপক সমাগমের মধ্য দিয়ে বর্ষবরণ উৎসব উৎযাপন করা হলো। বর্ষবরণের এই ধুন্ধুমার আয়োজন কেবল দেশের ভেতরেই সীমাবদ্ধ থাকেনি, তার উত্তাপ এখন ছড়িয়ে পড়েছে ইউরোপ-আমেরিকার দেশে দেশে। নিউইয়র্ক, প্যারিস, ওন্টারিও ও জেদ্দা থেকে বিভিন্ন বিষয়ের চারটি চিঠি পাঠকের উদ্দেশে।

পাশ্চাত্যে বাঙালি সংস্কৃতি লালন ও বিকাশের প্রত্যয়

রানা রায়হান
সত্য ও সুন্দরের মাঝে হাজার বছরের ঐতিহ্যমণ্ডিত বাঙালি সংস্কৃতি লালন ও বিকাশের প্রত্যয়ে উত্তর আমেরিকায় বসবাসরত বাঙালিরা প্রাণের উচ্ছ্বাসে বরণ করলেন বাংলা নতুন বছরকে।

বিশ্বের রাজধানী হিসেবে খ্যাত নিউইয়র্ক সিটির বাংলাদেশী অধ্যুষিত কুইন্স ও ব্রুকলিনে পান্তা-ইলিশের আমেজে বাঙালি প্রাণের মিলনমেলা ঘটেছিল।

বিশেষ ঘোষণা

আগ্রহী প্রবাসী বাংলাদেশিরা বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এর প্রবাসের চিঠি বিভাগে লিখতে পারবেন। আপনাদের স্বপ্ন, অনুভূতি, গল্প-কবিতা, ঘটনা, অনুষ্ঠানসহ নানা বিষয় এতে স্থানে পাবে। লেখা পাঠাবার ঠিকানা: probasherchithi@banglanews24.com অথবা ranaraihan82@gmail.com

অলি-গলিতে বাঙালি সাজে পোশাক পরে নারী-পুরুষের আনাগোনা ভিন্ন এক আমেজ সৃষ্টি করে। সবকিছুকে ছাপিয়ে যায় উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশীদের বাণিজ্যিক রাজধানী হিসেবে খ্যাত জ্যাকসন হাইটসে বৈশাখ বরণের শোভাযাত্রা।

বাঙালি ঐতিহ্যের নানা শিল্পকর্মসহ ছেলে-মেয়েরা এসো হে বৈশাখ এসো এসো-গান গাইতে গাইতে এ শোভাযাত্রায় সামিল হয়। কম্যুনিটির সাংস্কৃতিক সংগঠক, কবি, সাহিত্যিক, শিল্পীরা একাকার হয়ে যান সুর ও ছন্দ এবং বাংলাদেশ ক্লাবের ব্যানারে। এসময় জ্যাকসন হাইটসের ভিন্ন ভাষাভাষীর মানুষেরা বাঙালিদের অদ্ভূত এ আয়োজনে অভিভূত হন, থমকে দাঁড়ায় সবধরনের যানবাহন। শোভাযাত্রার পর শুরু হয় পান্তা-ইলিশের আসর।

বাংলাদেশ সোসাইটি অব নিউইয়র্কের উদ্যোগে অনন্ত ঢাকা ক্লাবে বসে বৈশাখ বরণের আরেকটি বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান। কম্যুনিটির বিভিন্ন স্তরের লোকজনের বিপুল সমাগম ঘটে। এনটিভি মিলনায়তনেও বৈশাখ বরণের বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান হয়।

নিউজার্সী, ফ্লোরিডা, আটলান্টা, আটলান্টিক সিটি, মিশিগানের ডেট্রয়েট, বস্টন, হিউস্টন, ওয়াশিংটন, লসএঞ্জেলেস এবং শিকাগোতেও বাংলা নতুন বছরকে বরণের নানা কর্মসূচি নেওয়া করা হয়।


প্যারিসে শিগগির মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিসৌধ

ফ্রান্সের প্যারিসে স্মৃতিসৌধ নির্মাণের ঘোষনা দিয়েছেন প্যারিসের মেয়র জ্যাকলিন রুইও। গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ফ্রান্স-এর অভিষেক অনুষ্ঠানে তিনি এ ঘোষণা দেন।

গত শনিবার প্যারিসের সান্তয়ার বারবারা হলে গ্রেটার সিলেট কাউন্সিল ফ্রান্স-এর উদ্যোগে আয়োজিত মহান বিজয় দিবসের আলোচনা ও জিএমসির নতুন কার্যকরী কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্যারিস মেয়র বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানানোর জন্য ফ্রান্সে অভিলম্বে একটি স্মৃতিসৌধ নির্মাণ করা হবে।

জিএমসির নবনির্বাচিত সভাপতি হাজী মুহাম্মদ হাবিবের সভাপতিত্বে এবং খান ইকবাল ও সাহারা জসিমের যৌথ পরিচালনায় আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জিএসসি ইউকে-এর চেয়ারপার্সন মনছব আলী, স্থানীয় কাউন্সিল আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের প্রধান বাগারুকু।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সৈয়দ সাইফুর রহমান, ড আব্দুল মালিক, এমএ মুমিন, রমজিদ আলী, শাহ জামান, নিজাম উদ্দিন, বজলূর রশীদ চৌধুরী, আব্দুল মালেক, মাসুম রহমান, লেছু মিয়া, নুরুল ওয়াহিদ প্রমুখ।

 

কানাডার এমপির কাছে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি
 

মতিউর রহমান লিটু
বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে কানাডার এমপি স্টিফেন উডওর্থের সঙ্গে আলোচনা করেন নবদ্বীপ সোসাল ডেভেলপমেন্ট সংস্থার নেতারা।

Canadaগত ১২ এপ্রিল সকালে ওন্টারিও শহরের কিচনার সেন্টারে এ আলোচনা হয়।

এম এইচ মামুনের নেতৃত্বে প্রায় ৪৫ মিনিটের এই বৈঠকে বাংলাদেশে মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা নিয়ে বিস্তারিত তথ্য হাজির করা হয়। বিচার বহির্ভুত হত্যাকাণ্ড, বিচার বিভাগে সরকারি দলের নগ্ন হস্তক্ষেপ, বিরোধী দলের নেতা কর্মীদের প্রতি দমনপীড়ন, সাধারণ মানুষের প্রতি সরকারি বাহিনীর চাঁদাবাজী, টেন্ডারবাজী, এমনকি সরকারের বিরুদ্ধে কথা বলায় জাতীয় দৈনিক আমারদেশ পত্রিকার সম্পাদককে নির্যাতন করা হয় বলে জনাব মামুন উল্লেখ করেন।

এমপি স্টিভেন সব ঘটনা মনোযোগ দিয়ে শোনেন এবং আনুষ্ঠানিকভাবে লিখিত কপিটি নেন। তিনি বলে, কানাডা বাংলাদেশের মানবাধিকার উন্নয়নে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে, সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগগুলো তিনি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠাবেন এবং প্রাথমিক তদন্তে সত্য প্রমাণিত হলে কানাডা সরকারের মাধ্যমে এর প্রতিকারের কার্যকরী ব্যবস্থা নেবেন। কানাডায় বসবাসরত বাংলাদেশীদের সব প্রয়োজনে তিনি পাশে থাকবেন বলেও উল্লেখ করেন।


প্রবাসীদের জন্য পৃথক ব্যাংকের ঘোষণা প্রধানমন্ত্রীর: স্বাগত জানাল সৌদি প্রবাসীরা

শারমীনা ইসলাম

Saudi Arabia

প্রবাসীদের বৈধপথে সহজে টাকা পাঠানোর সুবিধার্থে চলতি বছরের ২০ এপ্রিল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক উদ্বোধনের ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়েছেন সৌদি আরব প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

এক বিবৃতে মক্কার পালং প্রবাসী কল্যাণ সংস্থার নেতারা বলেন, প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণা বিশ্বের সব প্রবাসীদের উজ্জীবিত করেছে। আমরা প্রধানমন্ত্রীর এ ঘোষণাকে স্বাগত জানাই ।

তারা বলেন, প্রধানমন্ত্রী মক্কার একটি জনসভায় সর্বপ্রথম এ ঘোষণা দেন। এ জন্য আমরা গর্ববোধ করছি । কক্সবাজার জেলা ও পুরো দেশের বিপুল সংখ্যক প্রবাসী সৌদি আরব থেকে ব্যাংকিং ব্যবস্থা ছাড়া হুন্ডির মাধ্যমে দেশে রেমিটেন্স পাঠান ।

প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠা হলে এই অবৈধ প্রবণতা রোধ করা সম্ভব হবে। এই ব্যাংক গ্রাহকদের সঠিক সেবা দিতে সক্ষম হলে দেশের অর্থনীতি অনেক উপকৃত হবে। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন জনকল্যাণমুখী কার্যক্রমের মধ্যে এ ব্যাংক প্রতিষ্ঠা একটি মাইলফলক হিসেবে দেখছেন নেতারা।

প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়ে বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন, পালং প্রবাসী কল্যান সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা ও মক্কা বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাবেক সহসভাপতি, বিশিষ্ট সংগঠক সরওয়ার কামাল সিকদার, সংস্থার আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ও লন্ডন প্রবাসী তাসির চৌধুরী ছোটন, সংস্থাটির উপদেষ্টা ও টেকনাফ উপজেলার বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ আলহাজ্ব দীল মোহাম্মদ দিলু এবং সহ আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক হাজী জাফর আলমসহ অন্য নেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০১১

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2011-04-17 06:14:40