bangla news

মালয় নারীর তুডং সৌন্দর্য

5984 |
আপডেট: ২০১৪-০৭-১৯ ৬:১৮:০০ এএম

পেতালিং জায়া বাসস্টপেজে দাঁড়িয়ে আছি। কিছুক্ষণ পর এসে থামলো বাস। চালক ও হেলপার দু’জনই নারী। পরনে সুন্দর স্কার্ফ। বেশ ফিটফাট। ছেলেদের থেকে কম নয় তারা।

কুয়ালালামপুর (মালয়েশিয়া): পেতালিং জায়া বাসস্টপেজে দাঁড়িয়ে আছি। কিছুক্ষণ পর এসে থামলো বাস। চালক ও হেলপার দু’জনই নারী। পরনে সুন্দর স্কার্ফ। বেশ ফিটফাট। ছেলেদের থেকে কম নয় তারা।

কয়েকটি স্টপেজ পর সারিবদ্ধভাবে স্কুলছাত্রীরা বাসে উঠলো। ভীষণ সুন্দর তাদের ইউনিফর্ম। পরিপাটি। কিছুক্ষণ পর দেখা মিললো হাসপাতালের নার্সদের। তাদের ইউনিফর্মও অনেক গোছানো। যেমন স্মার্ট তেমন পোশাকে সুন্দর রঙের মিল।

শুধু স্কুলের ইউনিফর্ম অথবা বাসের চালকের পরিপাটি পোশাক নয়, মালয় নারীদের কাছে স্কার্ফ, তুডং বা হিজাব হলো তাদের সৌন্দর্যপ্রকাশক সংস্কৃতির অংশ। একজন মুসলিম নারী পোশাকে কতটা সুন্দর হতে পারেন তার প্রতিফলন এটি।

খুব ছোটবেলা থেকেই এ অভ্যাস গড়ে ওঠে মালয় নারীদের। তাই স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় পেরিয়ে কর্মজীবনেও এর শোভা পায় তাদের তুডং। পার্টি, বিয়েতেও হিজাব রেখেই তাদের বিভিন্ন ফ্যাশনের পোশাক বানানো হয়। খেলাধুলার সময়ও তারা স্কার্ফ পরেন।

এবার ঈদ সামনে রেখে বিশাল জমজমাট ঈদ মেলা শুরু হয়েছে মালয়েশিয়ায়। ঈদ বাজারে কথা হয় স্থানীয় নারী নাবিলাহ ফারহানা আহমেদের সঙ্গে।

তিনি বলেন, স্কার্ফ বা তুডং আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে জড়িত। অন্য দেশের মতো সরকারি আইনে এর কোনো প্রভাব নেই। তবে আমরা মুসলিম সংস্কৃতি বেশি পছন্দ করি। এ পোশাকে আমরা সাচ্ছন্দ্যবোধ করি বেশি।

মেয়েদের প্রথম পছন্দ বাজু কুরং এবং ছেলেদের পছন্দ বাজু মালয়। বাংলাদেশের মতো এখানেও সবাই শেষ ১০ রমজানে কেনাকাটা করতে ব্যস্ত। বিভিন্ন রঙের পোশাকের সমাহার চারিদিকে। উৎসবের আমেজে ম্লান হয়ে গেছে সব ক্লান্তি।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৫৪১ ঘণ্টা, জুলাই ১৯, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2014-07-19 06:18:00