ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ জুলাই ২০১৯
bangla news

অন্যায় দণ্ডে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশির ক্ষতিপূরণ মামলা

886 |
আপডেট: ২০১৪-০৪-১২ ৪:০১:০০ এএম
ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি : বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও অন্যায়ভাবে দণ্ড প্রদান এবং কারাগারে অকথ্য নির্যাতন চালানোর ঘটনায় মালয়েশীয় সরকারের বিরুদ্ধে অর্ধ কোটি মালয়েশীয় রিংগিট বা ১২ কোটি ৬০ লাখ টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা করেছেন মালয়েশিয়ায় প্রবাসী শ্রমিক আলামিন শেখ বাদশা।

ঢাকা: বৈধ কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও অন্যায়ভাবে দণ্ড প্রদান এবং কারাগারে অকথ্য নির্যাতন চালানোর ঘটনায় মালয়েশীয় সরকারের বিরুদ্ধে অর্ধ কোটি মালয়েশীয় রিংগিট বা ১২ কোটি ৬০ লাখ টাকার ক্ষতিপূরণ মামলা করেছেন মালয়েশিয়ায় প্রবাসী শ্রমিক আলামিন শেখ বাদশা।
 
আলামিন শেখের বিরুদ্ধে নিম্ন আদালতের দেওয়া রায় মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষ কার্যকর করলেও পরে দেশটির উচ্চ আদালত এ-রায় রদ করেন।

কারাগারে তাকে মালয়েশিয়ার কুখ্যাত ‘রোতান’ পদ্ধতিতে বেত্রাঘাত করা হয়। নির্যাতনের কারণে আলামিন শেখ এখন পঙ্গুত্ব এবং পুরুষত্বহীনতার সম্মুখীন বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী এস রাভিন থারান।
 
২৮ বছর বয়সী আলামিন শেখ মালয়েশীয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে তাকে করা তিনটি ‘রোতান’ বেত্রাঘাতের বিপরীতে ৩০ লাখ মালয়েশীয় রিংগিট এবং ৯০ দিন অন্যায়ভাবে জেলে রাখার কারণে আরও সাড়ে বাইশ লাখ মালয়েশীয় রিংগিট ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন।

পাশাপাশি অন্যায়ভাবে দণ্ডভোগের কারণে তিনি সামাজিক, মানসিক, পারিবারিক এবং আর্থিক ও শারীরিকভাবে যেসব ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন তার জন্য ক্ষতিপূরণ দাবি করেছেন।

মামলার বিবাদীরা হলেন, মালয়েশিয়ার ‍অভিবাসন কর্তৃপক্ষের পাসপোর্ট ও সিকিউরিটি ডিভিশনের কর্মকর্তা রিজওয়ান ইউসূফ, অভিবাসন কর্তৃপক্ষের মহাপরিচালক আলয়ে মামাত, তদন্তকারী কর্মকর্তা সারজা মাহাউ জুহায়রি ইয়াদি জুকুরি, পেনাং পুলিশের প্রধান দাতু আব্দুল রাহিম হানাফি এবং মালয়েশীয় পুলিশের আইজি তান শ্রী খালিদ আবু বকর।

গত ২০ মার্চ দাখিল করা ক্ষতিপূরণের আবেদনপত্রে আলামিন জানান, তিনি মালয়েশিয়ায় বৈধভাবে কাজ করে আসছিলেন। তার ওয়ার্ক পারমিটের মেয়াদ ছিলো আগামী ১৯ জুলাই পর্যন্ত। নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বুকিত মেরতাজামে মাসে ১৩শ’ রিংগিট বেতনে কাজ করতে চুক্তিবদ্ধ ছিলেন তিনি। ওয়ার্ক পারমিটের মেয়াদ থাকা সত্ত্বেও ২০১৩ সালের জুন মাসের ২৮ তারিখে তাকে আটক করে তিনমাসের জেল এবং তিন বার ‘রোতান’ বেত্রাঘাতের দণ্ড দেয়া হয়।

তবে ২৫ অক্টোবর উচ্চ আদালতে এর বিরুদ্ধে আবেদন করা হলে হাইকোর্ট দণ্ডের কার্যকারিতা স্থগিত করেন। কিন্তু তার আগেই দণ্ড কার্যকর করা হয়।

শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশিয়ায় আলামিনের আইনজীবী এস রাভিনথারান এ সব তথ্য তুলে ধরে জানান হাইকোর্ট তাদের ক্ষতিপূরণের আবেদন গ্রহণ করে আগামী ১৮ এপ্রিল মামলার কার্যক্রম শুরুর তারিখ নির্ধারণ করেছেন।

কারাবাসের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর আলামিন বর্তমানে মালয়েশিয়ার লাংকাপ ইমিগ্রেশন ডিপোতে আটক আছেন। মামলা শেষ হওয়া পর্যন্ত দেশে ফেরত না পাঠানোর জন্য আবেদন করেছেন তার আইনজীবী।

আইনজীবী রাভিন থারান দাবি করেন, সঙ্গে না থাকলেও আলামিনের মালিকের কাছেই তার সব বৈধ কাগজপত্র ছিলো। এছাড়া চার্জ গঠনের সময় আলামিনকে চার্জ বোঝানো হয়নি বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ১২, ২০১৪বাংলাদেশ সময়: ১৩৫৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ১২, ২০১৪

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

প্রবাসে বাংলাদেশ বিভাগের সর্বোচ্চ পঠিত

Alexa
cache_14 2014-04-12 04:01:00