ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

প্রবাসে বাংলাদেশ

যুক্তরাজ্যে বিদেশি শিক্ষার্থীরা স্বজনদের সঙ্গে রাখতে পারবেন না

মনোয়ার জাহান চৌধুরী, অতিথি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৭ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩
যুক্তরাজ্যে বিদেশি শিক্ষার্থীরা স্বজনদের সঙ্গে রাখতে পারবেন না

যুক্তরাজ্য: যুক্তরাজ্যের অভিবাসন সেক্টর নড়েচড়ে বসেছে। অ-গবেষণা কোর্সে বিদেশি স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন অভিবাসন নিষেধাজ্ঞার অধীনে পরিবারের সদস্যদের আনা যাবে না।

ফলে আরও কঠিন হচ্ছে ডিপেনডেন্টদের জন্য যুক্তরাজ্যে আসার বিষয়টি।  

২০২৪ সালের জানুয়ারি থেকে এ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হচ্ছে। হোম অফিস সূত্রে এমনটাই জানা গেছে।

আনুষ্ঠানিক পরিসংখ্যানে এ বছর বৈধ অভিবাসন রেকর্ড ৭ লাখ ছুঁয়েছে বলে প্রত্যাশিত হওয়ার দু’দিন আগে এ ঘোষণা করা হয়েছে। গত বছর ১ লাখ ৩৫ হাজার ৭৮৮টি ভিসা বিদেশি শিক্ষার্থীদের ডিপেনডেন্ট হিসেবে দেওয়া হয়েছিল, যা ২০১৯ সালের সংখ্যার প্রায় ৯ গুণ।

যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক মন্ত্রীদের বলেছেন, এই পদক্ষেপ অভিবাসন কমাতে সাহায্য করবে।

তিনি মন্ত্রিসভাকে বলেছিলেন, ২০২৪ সালের জানুয়ারিতে শুরু হওয়া পরিবর্তনটি উল্লেখযোগ্য পার্থক্য তৈরি করবে। গত সপ্তাহে তিনি বলেন, মন্ত্রীরা অভিবাসন কমিয়ে আনতে বিভিন্ন বিকল্প বিবেচনা করছেন, তবে গ্রহণযোগ্য স্তর কী তা বলতে অস্বীকার করেছিলেন।

কনজারভেটিভরা আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে, বছরে ১ লাখের নিচে নেট মাইগ্রেশন আনা হবে। কিন্তু বারবার তা পূরণ করতে ব্যর্থ হওয়ার পর ২০১৯ সালের নির্বাচনের আগে এটি বাতিল করা হয়।

ঘোষণার অধীনে, গবেষণা প্রোগ্রাম হিসাবে মনোনীত কোর্সে অধ্যয়নরত ব্যক্তি ব্যতীত স্নাতকোত্তর শিক্ষার্থীদের পার্টনার এবং সন্তানদের কোর্স চলাকালীন যুক্তরাজ্যে বসবাসের জন্য আর আবেদন করার অনুমতি দেওয়া হবে না। গত বছর, ডিপেনডেন্টদের দেওয়া ১ লাখ ৩৫ হাজার ৭৮৮টি ভিসা প্রদত্ত সমস্ত স্পনসর করা অধ্যয়ন সম্পর্কিত ভিসার এক পঞ্চমাংশেরও বেশি, যা ২০১৯ সালে ৬% ছিল।  

স্বরাষ্ট্র সচিব সুয়েলা ব্র্যাভারম্যান বলেছেন, ভিসা মঞ্জুর করা ডিপেন্ডেন্টদের সংখ্যা বৃদ্ধি ‘অভূতপূর্ব’। অভিবাসনের সংখ্যা কমানো নিশ্চিত করার জন্য আমাদের আরও কঠোর হওয়ার সময় এসেছে।

ইউনিভার্সিটিজ ইউকে (ইউইউকে) ব্রিটিশ বিশ্ববিদ্যালয়গুলির জন্য একটি গ্রুপ। তারা বলেছে, ডিপেন্ডেন্ট ভিসার সংখ্যা বৃদ্ধি কখনও কখনও পারিবারিক আবাসন এবং স্কুলের বিষয়ে স্থানীয় চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি করছে।  

এর পরিপ্রেক্ষিতে কিছু লক্ষ্যযুক্ত পদক্ষেপ যুক্তিসঙ্গত হতে পারে বলে উল্লেখ করেছেন ইউইউকের আন্তর্জাতিক শাখার পরিচালক জেমি অ্যারোস্মিথ।
 
তিনি পরিবর্তনগুলোর প্রভাব নিরীক্ষণের জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর সঙ্গে কাজ করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।  

বিশ্ববিদ্যালয় এবং কলেজ ইউনিয়ন (ইউসিইউ), যা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীদের প্রতিনিধিত্ব করে, এটিকে একটি ‘প্রতিশোধমূলক পদক্ষেপ’ বলে অভিহিত করেছে, যা সেক্টরের মধ্যে ‘গভীর উদ্বেগ’ বাড়িয়েছে। যারা যুক্তরাজ্যে বিদেশি ছাত্রদের সঙ্গে আসেন তারা ‘আমাদের সমাজের জন্য বিশাল মূল্য নিয়ে আসেন। অধ্যয়নের সময় প্রিয়জনদের পাশে থাকার অধিকার ছাত্রদের আছে, বলে দাবি করেন ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জো গ্র্যাডি।

ছাত্র সংখ্যা
একটি শিক্ষা ডেটা গ্রুপ এইচইএসএ অনুসারে- ২০২১-২০২২ সালে যুক্তরাজ্যে ৬৭৯,৯৭০ জন আন্তর্জাতিক ছাত্র ছিল। এর মধ্যে ৩০৭,৪৭০ জন আন্ডারগ্রাজুয়েট ছিলেন, যারা ইতিমধ্যেই তাদের কোর্স চলাকালীন পরিবারের সদস্যদের যুক্তরাজ্যে আনতে পারেননি। সেখানে ৭২,৫০০ জন স্নাতকোত্তর ছিলেন, যাদের মধ্যে ৪৬,৩৫০ জন গবেষণা কোর্সে রয়েছেন, তাদের বেশিরভাগই পিএইচডির জন্য, অল্প সংখ্যক গবেষণা-ভিত্তিক মাস্টার্স ডিগ্রিসহ।

ভিসা নিয়ে যুক্তরাজ্যে আসা শিক্ষার্থীদের ডিপেন্ডেন্টের সাথে তাদের সম্পর্ক প্রমাণের নথি প্রদান করতে হয়, যাদের ভিসার জন্য ৪৯০ পাউন্ড দিতে হয়। ডিপেন্ডেন্টদের অভিবাসন স্বাস্থ্য সারচার্জ দিতে হয়, এনএইচএস পরিষেবাগুলোর জন্যও অর্থ দিতে হয়।  

বাংলাদেশ সময়: ২১১২ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।