ঢাকা, বুধবার, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১০ শাবান ১৪৪৫

প্রবাসে বাংলাদেশ

ইতালিতে প্রবেশের জন্য প্রস্তুত ৯ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী

সাইফুল ইসলাম, অতিথি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪৭ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
ইতালিতে প্রবেশের জন্য প্রস্তুত ৯ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী

চলতি বছরের গ্রীষ্মকালে ভূমধ্যসাগরের তীরবর্তী দেশ লিবিয়া ও তিউনিশিয়া থেকে অবৈধভাবে সাগর পাড়ি দিয়ে ইতালিতে প্রবেশের জন্য প্রায় ৯ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী প্রস্তুত রয়েছে বলে ধারণা করছে ইতালি সরকার।  

সম্প্রতি দেশটির প্রথম সারির পত্রিকা ‘ইল মেসাজ্জেরো’র এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

 

পত্রিকার রিপোর্টে বলা হয়, লিবিয়া ও তিউনিশিয়াসহ আশেপাশের দেশগুলোতে প্রায় ৯ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী অবস্থান করছেন। গ্রীষ্মকালে আবহাওয়া ভালো থাকায় সমুদ্র শান্ত থাকে। এই সুযোগে তারা সাগর পাড়ি দিয়ে ইতালিতে প্রবেশ করবেন।  

এ বিষয়ে ইতালির সমুদ্র নীতিমালা বিষয়কমন্ত্রী মুসুমেচি সাংবাদিকদের বলেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যে সিচিলিয়ার বুকে ৯ লাখ অভিবাসন প্রত্যাশী আসতে যাচ্ছে। এর মধ্যে মাত্র দশ শতাংশ সত্যিকার যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ থেকে আসবে, বাকিরা আসবে নিজেদের কর্মের খোঁজে। এ বিষয়ে আমাদের দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ।  

ইতালির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তথ্যমতে এ বছরের প্রথম তিন মাসেই লিবিয়া ও তিউনিশিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালিতে প্রবেশ করেছে প্রায় ১৯ হাজার অবৈধ অভিবাসী, যা গত বিগত দুই বছরের একই সময়ের প্রায় তিনগুণ বেশি। এদের মধ্যে মাত্র পাঁচ শতাংশ অভিবাসী এসেছে যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ থেকে।  

সম্প্রতি লিবিয়ায় সরকার সংকট ও তিউনিশিয়ায় অর্থনৈতিক সংকট থাকায় অবৈধভাবে যাত্রা শুরু করার জন্য এ দেশ দুটিকেই বেছে নিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবপাচারকারী সংগঠনগুলো। সম্প্রতি তিউনিশিয়ান কোস্টগার্ড জানিয়েছে, শুধু চলতি মাসেই তারা ভূমধ্যসাগরে পঁচিশটি অভিযান পরিচালনা করে এক হাজারেরও বেশি অভিবাসন প্রত্যাসীকে উদ্ধার করেছে। এদের মধ্যে বেশিরভাগ সাহারা অঞ্চলের নাগরিক।  

এদিকে ক্ষমতা গ্রহণের পরপরই ইতালিতে অবৈধ অভিবাসনের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী জর্জা মেলোনি। বৈধ অভিবাসীদের স্বাগত জানিয়ে অবৈধপথে ইতালিতে প্রবেশের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারি দিচ্ছে বর্তমান সরকার।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৭ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
নিউজ ডেস্ক

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।