ঢাকা, রবিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৮, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

পল্লী বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিলে দিশেহারা গ্রাহক

এইচ এম লাহেল মাহমুদ, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০০৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১
পল্লী বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিলে দিশেহারা গ্রাহক

পিরোজপুর: পিরোজপুরের নাজিরপুরে পল্লী বিদ্যুতের ভুতুড়ে বিলে দিশেহারা হয়ে পড়েছে হাজার হাজার গ্রাহক। তাদের অভিযোগ কোনো মাসে পূর্বের মাসের দ্বিগুন আবার কোনো মাসে তার অর্ধেক বিল ধার্য করা হয়।

উপজেলার মালিখালী ইউনিয়নের উত্তর ঝনঝনিয়া গ্রামের বাবলু তালুকদার জানান, তার বাড়িতে বিদ্যুৎ ব্যবহার বাবদ প্রতিমাসে সাধারণত ৩৫০ থেকে ৪০০ টাকা বিল হয়। কিন্তু গত জুলাই মাসে ১৫৯০ এবং আগস্ট মাসের বিদ্যুৎ বিলের কাগজে ধরা হয়েছে ২৭৩৭ টাকা।  

একই অভিযোগ একই গ্রামের টিপু মোল্লার। তিনি জানান, তার বাড়িতে ব্যবহৃত বিদ্যুতের খরচ হিসাবে প্রতিমাসে ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা বিদ্যুৎ বিল হলেও গত আগস্ট মাসে তার বিদ্যুৎ বিল ধরা হয়েছে এক হাজার টাকা। স্থানীয়দের অভিযোগ বিদ্যুৎ বিলের জন্য বিদ্যুৎ ব্যবহার করার পরিমাণ দেখার লোক প্রতিমাসে ঠিকমত মিটারের কাছে না এসে বিল করায় এমন ঘটনা ঘটছে।  

উপজেলার শ্রীরামকাঠী ইউনিয়নের মধ্য জয়পুর গ্রামের মো. কামাল হোসেন মল্লিক জানান, তিনি
প্রতিমাসে তার বাড়িতে গড়ে ১৫-২০ ইউনিট বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হলেও বিলের কাগজে দেওয়া হয় ৪০০ থেকে ৪৫০ টাকা করে। একই অভিযোগ উপজেলার বিভিন্ন এলাকার পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকদের।

শ্রীরামকাঠী বাজারের বেকারি মোড় এলাকার মোবাইল ব্যাকিংয়ের মাধ্যমে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধকারী মো. আরিফুর রহমান সবুজ বাংলানিউজকে জানান, প্রায়ই গ্রাহকরা বিল পরিশোধের করতে এসে অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল হয়েছে বলে অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে নাজিরপুর পল্লী বিদ্যুতের সহকারী জেনারেল ম্যানেজার ফুয়াদ আল আরেফীন বাংলানিউজকে বলেন,  কোনো গ্রাহকের এমন অতিরিক্ত বিদ্যুৎ বিল হলে ভুক্তভোগী গ্রাহককে অফিসে লিখিত অভিযোগ দিতে হবে। মিটার পরীক্ষাসহ মিটারের আগের ও পরের ব্যবহৃত ইউনিট দেখে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৪ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa