ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ আশ্বিন ১৪২৮, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ সফর ১৪৪৩

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ থাকবে: নসরুল হামিদ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫২ ঘণ্টা, জুলাই ২৪, ২০১৯
ঈদে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ থাকবে: নসরুল হামিদ বক্তব্য রাখছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ। ছবি: ডিএইচ বাদল

ঢাকা: কোরবানির ঈদে সারাদেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ থাকবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

বুধবার (২৪ জুলাই) দুপুরে রাজধানীর বিদ্যুৎভবনে ইউনিক মেঘনাঘাট পাওয়ার লিমিটেডের ৫৮৪ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড, বিপিডিবি ও অন্যান্য সরকারি সংস্থার মধ্যে চুক্তি সই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি বলেন, সারাদেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

ডিসেম্বর মধ্যে শতভাগ বিদ্যুতায়ন হয়ে যাবে জানিয়ে বিদ্যুৎপ্রতিমন্ত্রী বলেন, পাওয়ার সেক্টরগুলো দেশে প্রফেশনাললি কাজ করছে। তাই আমরা আশা করছি, শুধু শহরগুলো তো নয়, গ্রামগুলোতেও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে অতীতেও সঙ্গে ছিল আগামীতেও থাকবে।

চুক্তি সই অনুষ্ঠানে বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. আহমদ কায়কাউস বলেন, সারাদেশে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ অব্যাহত থাকবে। দেশে ছেলেধরা নামে একটি গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, এসব গুজবে কেউ কান দেবেন না। বিভ্রান্তিকর তথ্য থেকে বিরত থাকার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে ইউনিক মেঘনাঘাট পাওয়ার লিমিটেডের (ইউএমপিএল) ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাফিজ সরাফত বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার যে অঙ্গীকার করেছেন, সেটা বাস্তবায়নে ইউনিক মেঘনাঘাট বিদ্যুৎকেন্দ্র গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। বাংলাদেশের বিদ্যুৎখাতে ইউনিক গ্রুপ একটা শক্ত অবস্থান তৈরি করতে যাচ্ছে। মেঘনাঘাট সেই অবস্থানেরই প্রমাণ। জাতীয় গ্রিডে বিদ্যুৎ সরবরাহের মাধ্যমে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি বাংলাদেশের অবকাঠামোগত উন্নয়নে অবদান রাখবে বলেও তিনি জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক আবুল কালাম আজাদ, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, পিডিবির চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদ, তেল, গ্যাস ও খনিজসম্পদ করপোরেশনের (পেট্রোবাংলা) চেয়ারম্যান মো. রুহুল আমীন, ইউএমপিএলের চেয়ারম্যান নূর আলী, ব্যবস্থাপনা পরিচালক চৌধুরী নাফিজ সরাফতসহ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তারা।

ইউএমপিএল নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে ৫৮৪ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করতে যাচ্ছে। নারায়ণগঞ্জের মেঘনাঘাটে ১৯ একর জমিতে নির্মিত হচ্ছে এই প্রকল্প। ব্যয় হবে ৫২০ মিলিয়ন ডলার। প্রাকৃতিক গ্যাসভিত্তিক কম্বাইন্ড সাইকেল এই বিদ্যুৎকেন্দ্র এলএনজিতেও চলবে। এটা হবে দেশের অন্যতম সবচেয়ে বড় বিদ্যুৎকেন্দ্র যারা গ্যাসের মাধ্যমে বিদ্যুৎ উৎপাদন করবে। যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানি জিই টার্ন-কি বেসিসে বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণ করবে।

চুক্তি অনুযায়ী আগামী তিনবছরের মধ্যে এই চুক্তি বাস্তবায়ন হবে অথবা কেন্দ্রটি উৎপাদনে যাবে। চুক্তির মেয়াদ ২২ বছর। এইদিন প্রকল্প বাস্তবায়ন চুক্তি, বিদ্যুৎ ক্রয় চুক্তি ও গ্যাস সরবরাহ চুক্তি হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫১ ঘণ্টা, জুলাই ২৪, ২০১৯
এসএমএকে/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa