ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ ফিরেছে

উপজেলা করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০১৬
বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ ফিরেছে ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

পার্বতীপুর (দিনাজপুর): দিনাজপুরের পার্বতীপুরে বড়পুকুরিয়া তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে সম্প্রসারিত ৩ নম্বর ইউনিটের আন্দোলনরত নির্মাণ শ্রমিকরা কাজ ফিরেছে।

শনিবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে শ্রমিকরা কাজে যোগদান করে।



শুক্রবার বিকেলে বেতন বৃদ্ধি, সাপ্তাহিক ছুটি, যখন তখন শ্রমিক ছাটাই বন্ধসহ ১৪ দফা দাবিতে ৩ নম্বর ইউনিটের প্রায় ৫শ নির্মাণ শ্রমিক একযোগে কাজ বন্ধ করে দেয়।

পার্বতীপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদুল আলম বাংলানিউজকে জানান, কর্তৃপক্ষকে আগাম কিছু না জানিয়ে হঠাৎ করে কাজ বন্ধ করে দেওয়া শ্রমিকদের ঠিক হয়নি। বিষয়টি শ্রমিকদের বোঝানো হয় এবং নিয়মতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় দাবি আদায়ের জন্য বলা হয়।

এছাড়া তাদের কী কী দাবি রয়েছে, তা লিখিতভাবে স্মারকলিপির মাধ্যমে কর্তৃপক্ষকে জানাতে বলা হয়।

তিনি আরও জানান, এরপর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান যদি তা মেনে না নেয় তখন আন্দোলনের বিষয়টি আসবে। যেহেতু ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ এবং ৩ নম্বর ইউনিট নির্মাণ প্রকল্পের পিডি (প্রকল্প পরিচালক) ঢাকায় আছেন, সেহেতু তারা না আসা পর্যন্ত শ্রমিকদের কাজ চালিয়ে যাওয়ার অনুরোধ করা হয়। শ্রমিকরা বিষয়টি বুঝতে পারে এবং কাজে যোগ দেন।

বড়পুকুরিয়া কয়লা খনি থেকে আহরিত কয়লা জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করে খনিমুখে ২৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতার একটি বিদ্যুৎ কেন্দ্র গড়ে তোলা হয়। বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিতে দুটি ইউনিট রয়েছে। প্রতিটির উৎপাদন ক্ষমতা ১২৫ মেগাওয়াট করে। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটিকে সম্প্রসারণ করে ২৭৫ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ৩ নম্বর ইউনিট স্থাপন করা হচ্ছে।

৩ নম্বর ইউনিটটি বাস্তবায়ন শেষে উৎপাদনে গেলে বড়পুকুরিয়া কয়লা ভিত্তিক তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের ক্ষমতা ৫২৫ মেগাওয়াটে গিয়ে দাঁড়াবে। ৩ নম্বর ইউনিট নির্মাণের কাজ শুরু হয় ২০১৫ সালের আগস্ট মাসে। এটি নির্মাণ করছে চায়নিজ ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান জয়েন্ট ভেঞ্চার হারবিন ইলেকট্রিক ইন্টারন্যাশনাল এবং সিসিসি ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০১৬
এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।