bangla news

৪ শীর্ষ জামায়াত নেতার মামলার চার্জশিট দাখিলে পুলিশের বিলম্ব

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১০-০৯-২০ ৭:২৫:৫৬ এএম

জামায়াতের ৪ শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে দায়ের করা বিভিন্ন মামলার চার্জশিট দিতে পুলিশের বিলম্ব হচ্ছে।

ঢাকা: জামায়াতের ৪ শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে দায়ের করা বিভিন্ন মামলার চার্জশিট দিতে পুলিশের বিলম্ব হচ্ছে।

তদন্ত কাজে ধীরগতি, তদন্ত কর্মকর্তা পরিবর্তন, থানার মামলা ডিবিতে স্থানান্তর ও রাজনৈতিক কারণে চার্জশিট দাখিলে বিলম্ব হচ্ছে বলে জানা গেছে।

সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, তদন্ত এখনও চলছে। আদালতে চার্জশিট দাখিলে আরোও সময় লাগবে। তবে কবে নাগাদ চার্জশিট প্রস্তুত হবে, তা তারা নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।


২৭ জুন বিএনপির ডাকা হরতালে গাড়ি পোড়ানো, ১৭ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতির চলাচলে বাধা সৃষ্টি, পুলিশের ওপর বেপরোয়া হামলা এবং পুলিশের কাজে বাধা দেওয়ার অভিযোগে জামায়াতের ৪ শীর্ষ নেতা মতিউর রহমান নিজামী, সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মাদ মুজাহিদ ও দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের বিরুদ্ধে পল্টন থানায় পৃথক ৩টি ও রমনা থানায় ১টি মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

এরপর তাদের দফায় দফায় রিমাণ্ডে এনে ডিবি’র কার্যালয়ে একটানা ১৬ দিন জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি পল্টন এলাকায় রাষ্ট্রপতির চলাচলে বাধা সৃষ্টির মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহ আলম বাংলানিউজকে জানান, ‘এ মামলায় প্রায় শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আরো আসামি ধরতে পুলিশি অভিযান চালানো হচ্ছে।’

তবে কবে নাগাদ মামলাটির চার্জশিট প্রস্তুত করে আদালতে পাঠানো হবে, তা তিনি জানাতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘রাজনৈতিক মামলার তদন্ত কাজ শেষ করতে একটু বেশি সময়ই লাগে।’

শুরুতে মামলাটির তদন্তভার ছিল পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক শামসুর রহমানের ওপর। সম্প্রতি, তিনি অন্যত্র বদলি হওয়ায় বর্তমানে মামলাটির তদন্তভার পেয়েছেন উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ শাহ আলম।  
   
পুলিশের কাজে বাধা দেয়া সংক্রান্ত আরেক মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক জিল্লুর রহমান বলেন, ‘রাজনৈতিক মামলার চার্জশিট প্রদানে সময়সীমার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই। কবে নাগাদ তদন্ত কাজ শেষ করে চার্জশিট দেওয়া হবে- এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘তদন্ত কাজ শেষ হলেই চার্জশিট দেওয়া হবে।’

আরেকটি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পল্টন থানার উপ-পরিদর্শক মোজাফ্ফর বলেন, ‘চার্জশিট প্রদানে কোনো সময়সীমা প্রদান করা হয়নি। তদন্ত চলছে, তদন্ত শেষ হলেই চার্জশিট দেওয়া হবে।

২৭ জুন হরতালের আগের রাতে গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়ায় ফারুক হোসেন নামে এক যুবক নিহত হয়। গাড়ি পোড়ানো ও ফারুক হত্যার ওই অভিযোগে রমনা থানায় দায়ের করা হয় একটি মামলা। প্রথমে মামলার তদন্তভার ছিল রমনা থানার ওপর। পরে তা দেওয়া হয় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের কাছে।

এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশ পরিদর্শক সৈয়দ জিয়াউজ্জামান বাংলানিউজকে বলেন, ‘মামলা তদন্তাধীন। তদন্ত কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত চার্জশিট দেওয়া যাচ্ছে না।’
 
গত ২৯ জুন জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামী,  সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ ও নায়েবে আমির  দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীকে গ্রেফতার করে পুলিশ। একই মামলার আসামি হিসেবে ঢাকা মহানগর জামায়াতের আমীর রফিকুল ইসলাম খানকে গ্রেফতার করা হয় ২৫ আগস্ট।

বাংলাদেশ সময়: ১১৬৪৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১০

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
db 2010-09-20 07:25:56