ঢাকা, সোমবার, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৯, ০৮ আগস্ট ২০২২, ০৯ মহররম ১৪৪৪

রাজনীতি

ইবরাহিমের যে বক্তব্য ৫ ভাষায় শোনানো হয়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৫, ২০২১
ইবরাহিমের যে বক্তব্য ৫ ভাষায় শোনানো হয় সভায় বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক। ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির ১৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রোববার (৫ ডিসেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে শুভেচ্ছা বিনিময় ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

ওই অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দলের নেতারা বক্তব্য দেন।

সবার শেষে সভাপতির বক্তব্য দেন দলটি চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক। তার বক্তব্যের একটি অংশ অন্য পাঁচ জন ব্যক্তি পাঁচটি ভাষায় অনুবাদ করে আগত অতিথিদের শুনিয়েছেন।

ভাষাগুলো হলো- ইংরেজি, আরবি, চাইনিজ, জাপানিজ, টার্কিশ ও রাশিয়ান।

মেজর জেনারেল (অব.) ইবরাহিমের বক্তব্যের ওই অংশটুকু বাংলানিউজের পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো।

জেনারেল ইবরাহিম বলেন, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি একটি কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে চায়। কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে গেলেই আমাদের দেশের ভেতরে কিছু গুরুত্বপূর্ণ কাঠামোগত পরিবর্তন করতেই হবে। সংস্কারের জন্য অপেক্ষমান এই রূপ অনেক বিষয়ের মধ্যে মাত্র পাঁচটি উল্লেখ করছি।

প্রথম: সাংবিধানিক ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ তথা কেবিনেট ও পার্লামেন্টর মধ্যে ক্ষমতার ভারসাম্য আনয়ন, ভৌগলিকভাবে ও ভার্টিকাল স্তরে প্রশাসনিক ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ, বিচার বিভাগকে সাংবিধানিকভাবেই বিকেন্দ্রীকরণ, এসএসসি সমমান পর্যন্ত নারী শিক্ষা বাধ্যতামূলক ও বিনামূল্যেকরণ, দুর্নীতি দমন সংক্রান্ত আইনে আমূল পরিবর্তন আনয়ন।

দ্বিতীয়ত: কল্যাণ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করতে গেলেই রাজনীতির অঙ্গণে একটি অন্তর্ভুক্তিমূলক রাজনৈতিক সমাজ গড়ে তুলতে হবে। পঞ্চাশ বছর বয়সী বাংলাদেশের জন্য এর কোনো বিকল্প নেই। বাংলাদেশের জনসংখ্যার শতকরা ৬৫ শতাংশই বাংলাদেশি প্রজন্ম। ধর্ম, বর্ণ, ভাষা ও মতাদর্শ নির্বিশেষে এ প্রজন্মের সবাইকে রাজনীতি করার সুযোগ দিতে হবে।

তৃতীয়ত: চৌদ্দ বছর ধরে রাজনীতির অঙ্গণে পদচারণার পর, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির সময়োপযোগী আকাঙ্খা ও সিদ্ধান্ত হলো আমরা নিজেদের অধিকতর প্রস্ফুটিত করবো, অধিকতর দর্শনীয় করবো, অধিকতর শ্রবণীয় করবো এবং অধিকতর কর্তব্য পালনীয় হতে হবে। এটা দেশের ভেতরের জন্য যেমন, দেশের বাইরের জন্যও তেমনই প্রযোজ্য। পৃথিবীর বহু দেশেই এইরূপ রাজনৈতিক দৃষ্টান্ত আছে, যেখানে জনবলে ক্ষুদ্র কিন্তু মেধা ও গুণাবলীতে বৃহৎ হওয়ার কারণে কোনো রাজনৈতিক দল রাজনীতিতে প্রভাবশালী হয়ে ওঠে এবং অনুঘটকীয় ভূমিকা নিয়ে রাজনীতির গতিপথ জনমুখী করেছে, কল্যাণমুখী করেছে। অতএব বাংলাদেশেও আমাদের দল এই ভূমিকা নিতে আগ্রহী এবং প্রস্তুত।

চতুর্থত: আন্তর্জাতিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের স্বকীয়তা পুনরুদ্ধারের জন্য এবং বহুপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে ভারসাম্য আনয়নের জন্য কল্যাণ পার্টি কাজ করবে। কল্যাণ পাটি বাংলাদেশ বান্ধব বিদেশি রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে বন্ধুত্ব সুদৃঢ় করবে।

পঞ্চমত: বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি বাংলাদেশের বাইরে অবস্থানরত বাংলাদেশি জনগোষ্ঠীর কল্যাণের প্রতি বিশেষ নজর দেবে।

তিনি বলেন, আমি এগুলোর ব্যাখ্যা দেব সেটা বাংলা ভাষায় দেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪১ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৫, ২০২১
এমএইচ/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa