ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

কোটি টাকায় সিলেট ছাত্রলীগের কমিটি!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৩৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০২১
কোটি টাকায় সিলেট ছাত্রলীগের কমিটি! সিলেটের সাবেক ও বর্তমান ছাত্রলীগ নেতাদের সংবাদ সম্মেলন

সিলেট: অছাত্র, বিতর্কিতদের নিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি দেওয়া হয়েছে। এ জন্য সভাপতি, সম্পাদকসহ চারটি পদের জন্য এক কোটি ২০ লাখ টাকা নিয়েছেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সভাপতি ও সম্পাদক।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) বিকেলে সিলেটে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেন জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক-বর্তমান নেতারা।

এ সময় লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শাহরিয়ার আলম সামাদ। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সংগঠন, শত ঐতিহ্যের ধারক ও বাহক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটি কর্তৃক দীর্ঘ প্রতিক্ষার পর ইতোমধ্যে সিলেট জেলা ও মহানগর ইউনিট কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘অত্যন্ত দু:খের সঙ্গে জানাচ্ছি, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক উভয়ে এক কোটি ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে অছাত্র, দেশজুড়ে আলোচিত সিলেট এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ মামলার আসামিদের গডফাদার, বিভিন্ন চেক ডিজওনার মামলার আসামি, বিশেষ করে ফ্রিডম পার্টির নেতার নাতিকে নিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। এতে আমরা সিলেট ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা লজ্জিত, চরম হতাশ এবং বিব্রত। আমরা ঘোষিত এই কমিটি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করছি। ’  

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের অভিভাবক সংগঠন সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি/সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কোনো প্রকার যোগাযোগ ছাড়া বা অবহিত না করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ টাকার বিনিময়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের যে কমিটি ঘোষণা করেছে, সিলেট ছাত্রলীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মী ঘৃণাভরে তা প্রত্যাখ্যান করেছে। আমরা কোনোভাবেই অর্থের বিনিময়ে অছাত্র, অপরাধ রাজ্যের গডফাদার, বিভিন্ন চেক ডিজওনার মামলার আসামি, বিশেষ করে ফ্রিডমপার্টির নেতার নাতি ঘোষিত জেলা ও মহানগর কমিটি মেনে নেবো না। কমিটিতে স্থান করে দেওয়া হয়েছে ফ্রিডম পার্টির নেতা কাওছার আহমদের নাতি কিশওয়ার জাহান সৌরভকে, আমেরিকাতেও তার নাগরিকত্ব রয়েছে। সংগঠনের গঠনতন্ত্র মতে তিনি দলের পদ-পদবিতে থাকতে পারেন না। ’

অন্যদিকে, জেলা ছাত্রলীগে নতুন দায়িত্বপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজের শিক্ষাগত যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে সামাদ বলেন, ‘আমি সভাপতি থাকাকালীন তার শিক্ষাগত যোগ্যতা না থাকায় গোলাপগঞ্জ উপজেলাতেও তাকে পদ-পদবি দিতে পারিনি। ’ 

অবিলম্বে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের ‘বিতর্কিত কমিটি’ বাতিলের দাবি জানিয়ে জেলার সাবেক ছাত্রলীগ নেতারা বলেন, বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টোবর) থেকে কমিটি বাতিল না করা পর্যন্ত লাগাতার আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে।  
তারা ঘোষিত কমিটি বাতিল করে প্রকৃত, ত্যাগী ও গ্রহণযোগ্য ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের মূল্যায়নের দাবি জানান এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রধান অভিভাবক আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপও কামনা করেন।

এ সময় ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতাকর্মীদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- সৌরভ জায়গীরদার, শাক্কুর আহমদ জনি, নাঈম চৌধুরী, তোফায়েল আহমদ সানি, কামরান হোসেন খান, আশরাফুল ইসলাম বাপ্পী, দীপঙ্কর টিপু, আশফাক আহমদ মাসুদ, মুহিবুর রহমান, মাজেদ তালুকদার, ইমরান আহমদ, আবিদ আল আজাদ মুন্না, দ্বীপরাজ দিপিয়ান, ইমন ইবনে সম্রাজ, হাফিজ আহমদ, অলিউর রহমান, সাহেদ আহমদ প্রমুখ।

বিগত দিনে বিতর্কিত কর্মকাণ্ডে এবং বিস্তর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৪ সালে দেওয়া সর্বশেষ জেলা ছাত্রলীগের কমিটি ২০১৭ সালের অক্টোবরে বিলুপ্ত করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রলীগের কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য কমিটির অনুমোদন দেন।

নতুন কমিটিতে সিলেট জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি পদে নাজমুল ইসলাম এবং সাধারণ সম্পাদক পদে রাহেল সিরাজকে এবং মহানগর ছাত্রলীগের সভাপতি পদে কিশওয়ার জাহান সৌরভকে এবং মো. নাঈম আহমদকে সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া সিলেট থেকে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সদস্য পদে যুক্ত করা হয়েছে জাওয়াদ ইবনে জাহিদ খান, বিপ্লব কান্তি দাস, মুহিবুর রহমান মুহিব ও কনক পাল অরুপকে এবং মহানগর ছাত্রলীগ থেকে হুসাইন মোহাম্মদ সাগর ও সঞ্জয় পাশী জয়কে কেন্দ্রীয় সদস্য করা হয়েছে।

কিন্তু কেন্দ্রে পদ পেলেও অসন্তোষ থেকে পদ প্রত্যাখ্যান করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগে স্থান পাওয়া জাওয়াদ ইবনে জাহিদ খান ও মুহিবুর রহমান মুহিব। এরপর মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) বিকেল ৪টায় নগরের তেলিহাওর থেকে কমিটি বিরোধী বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নগরের জিন্দাবাজার পৌঁছালে পুলিশি বাধার মুখে পড়ে। পরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের সামনে সড়ক অবরোধ করে টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ ও ঝাড়ু প্রদর্শন করে কমিটি বাতিলের দাবি জানানো হয়। এরই জের ধরে বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে নতুন কমিটি ও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ তুলে কমিটি বাতিলের দাবি জানান সিলেট ছাত্রলীগের সাবেক ও বর্তমান নেতারা।

বাংলাদেশ সময়: ২০৩০ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০২১
এনইউ/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa