ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ কার্তিক ১৪২৮, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

নোয়াখালীতে আ’লীগের ৩ গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২১
নোয়াখালীতে আ’লীগের ৩ গ্রুপের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া

নোয়াখালী: নোয়াখালী জেলা শহর মাইজদীতে আওয়ামী লীগের তিন গ্রুপের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচিকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের নেতাকর্মীদের মধ্যে দফায় দফায় ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় ভাঙচুর করা হয় তিনটি মোটরসাইকেল।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে সহিংসতা এড়াতে জেলা শহর মাইজদীতে সোমবার (০৬ সেপ্টেম্বর) সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন।  

রোববার (৫ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে ১৪৪ ধারা জারির বিষয়টি নিশ্চিত করে জেলা প্রশাসক মো. খোরশেদ আলম খান জানান, সোমবার ভোর ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত নোয়াখালী পৌর এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি থাকবে।  

জেলা প্রশাসকের স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পৌর শহর (মাইজদী, দত্তেরহাট, সোনাপুর) এ আদেশ বহাল থাকবে। এসব এলাকায় ব্যক্তি, সংগঠন, রাজনৈতিক দল কোনো প্রকার গণজমায়েত, সভা, সমাবেশ, মিছিল, র‌্যালি, শোভাযাত্রা করতে পারবে না, বন্ধ থাকবে সকল ধরনের অনুষ্ঠান।

এরআগে, রোববার বিকেলে শহরের টাউন হল মোড়ে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে মিছিল নিয়ে সভা করে নোয়াখালী-৪ আসনের সংসদ সদস্য একরামুল করিম চৌধুরীর সমর্থিত নেতাকর্মীরা। সভা চলাকালে জেলা শহরের দক্ষিণ পাশ থেকে মোটরসাইকেল র‌্যালি নিয়ে আসেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট শিহাব উদ্দিন শাহীনের নেতাকর্মীরা। র‌্যালিটি টাউন হলের মোড়ে পৌঁছালে উভয় পক্ষ মুখোমুখি হলে তাদের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। নেতাকর্মীরা একে অন্যকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে।  

এসময় তারা সড়কের পাশে থাকা তিনটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসময় প্রায় এক ঘণ্টা জেলা শহর মাইজদীর সঙ্গে যান চলাচল বন্ধ থাকে।

অপরদিকে, শহরের উত্তর পাশ থেকে পৌর মেয়র শহিদ উল্যাহ খান সোহেলের নেতাকর্মীরা একটি মিছিল নিয়ে টাউন হলের মোড়ে আসার সময় পুলিশের বাধার মুখে পড়ে।

স্থানীয়রা জানায়, আওয়ামী লীগের জেলা কমিটি বিলুপ্তি ও নতুন আহ্বায়ক কমিটি গঠনের খবরে উত্তপ্ত হয়ে পড়ে নোয়াখালী। পুরোনো কমিটি থেকে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ একরামুল করিম চৌধুরী বাদ পড়ছে এমন গুঞ্জন রটে জেলায়। এতে নোয়াখালী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল ওয়াদুদ পিন্টুর নেতৃত্বে এমপির সমর্থকরা সোমবার সকাল ১০টায় জেলা আওযামী লীগ কার্যালয়ের সামনে ২০১৯ সালের ২০ নভেম্বর ঘোষিত কমিটির পূর্ণাঙ্গ অনুমোদন দেওয়ার দাবিতে সমাবেশের ডাক দেয়।

এদিকে, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শিহাব উদ্দিন শাহিন টাউন হল মোড়ে সোমবার সকালে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে জনসমাবেশের ডাক দেয়।  

অপরদিকে, আগামী পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে নোয়াখালী পৌরসভা চত্বরে মেয়র ও পৌরসভা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শহিদ উল্যাহ খান সোহেল এক কর্মী সমাবেশের ডাক দেয়।

জেলা পুলিশ সুপার মো. শহীদুল ইসলাম বাংলানিউজকে জানান, শহরের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ শর্টগানের ৯ রাউন্ড রাবার বুলেট ছুঁড়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, পরিস্থিতিও শান্ত।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৯ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০৫, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa