ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ কার্তিক ১৪২৮, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

স্বাস্থ্যে বরাদ্দের বিশাল অংশই লুটপাট হচ্ছে: জিএম কাদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯১৬ ঘণ্টা, জুলাই ১৪, ২০২১
স্বাস্থ্যে বরাদ্দের বিশাল অংশই লুটপাট হচ্ছে: জিএম কাদের

ঢাকা: জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের এমপি বলেছেন, লকডাউন নয়, চিকিৎসা ব্যবস্থা উন্নত করতে হবে। সরকারের অবহেলায় করোনার এমন ভয়াবহ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।

সারা বিশ্ব যখন জিডিপির ৫ থেকে ৬ ভাগ চিকিৎসা ব্যবস্থায় খরচ করে, তখন আমরা মাত্র ১ ভাগ খরচ করছি। স্বাস্থ্য খাতে বরাদ্দের বিশাল অংশই লুটপাট হচ্ছে। তাই আমাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা উন্নত হচ্ছে না।

বুধবার (১৪ জুলাই) দুপুরে জাতীয় পার্টি কেন্দ্রীয় কার্যালয় কাকরাইল চত্বরে পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের দ্বিতীয় মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে আয়োজিত ১০ হাজার মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি কাদের এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, সরকার শুধু আশ্বাস দিয়ে বলে করোনার টিকা আসছে। কিন্তু কখন আসবে, কিভাবে আসবে বা কোথা থেকে আসবে তা বলতে পারছে না। তাই করোনার টিকা নিয়ে দেশবাসীর মাঝে হতাশা বিরাজ করছে। সারা বিশ্ব যখন ভ্যাকসিন দিয়ে করোনা মোকাবেলা করছে, তখন আমাদের দেশ লকডাউন দিয়ে করোনা মোকাবেলা করতে চাচ্ছে। এটা কখনোই যুক্তিযুক্ত নয়। করোনা পরিস্থিতি দিন দিন ভয়াবহ রূপ নিচ্ছে।  

তিনি আরো বলেন, দেশের মানুষ চিকিৎসা পাচ্ছে না। জেলা উপজেলা থেকে করোনা রোগী বিভাগীয় শহর ও রাজধানীতে ভীড় করছে। কিন্তু সরকারি হাসপাতালগুলোতে সিট না থাকায় রোগীরা বেসরকারি হাসপাতালে লাখ লাখ টাকা খরচ করে চিকিৎসা নিচ্ছে। আর যাদের টাকা নেই তারা টাকার অভাবে মা-বাবাসহ প্রিয়জনদের বিসর্জন দিচ্ছেন। এমন করুন পরিণতির দেশ আমরা কখনোই চাইনি। দেশের মানুষ এখন পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কথা স্মরণ করছেন। ৮৮ বন্যায় পানি ভেঙে মানুষের ঘরে খাবার পৌঁছে দিয়ে পল্লীবন্ধু যে নজির স্থাপন করেছেন তা বাংলাদেশে ইতিহাস হয়ে আছে। নতুন বাংলাদেশ গড়তে পল্লীবন্ধু জীবদ্দশা বেশ কিছু কল্যাণকর কর্মসূচি বাস্তবায়ণ করতে পেরেছিলেন। তার রেখে যাওয়া কর্মসূচি বাস্তবায়ন করে আমরা নতুন বাংলাদেশ গড়বো।  

এ সময় জাতীয় পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ব্যরিষ্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এমপি বলেন, সরকারি হিসেবে প্রতি ডোজ ৩০ থেকে ৩৫ ডলার খরচ করে ১ কোটি টিকা আমদানি করেছে সরকার। এ নিয়ে গণমাধ্যমে ব্যাপক লেখালেখি হচ্ছে। কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোনো জবাব নেই।  

জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেছেন, করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতিতেও মন্ত্রীরা উদ্ভট কথা বলছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলছেন, করোনার বিস্তার রোধ করা নাকি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কাজ নয়। আর একবছর আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেছিলেন আমরা নাকি করোনার চেয়েও শক্তিশালী। তিনি বলেন সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে এক সাাথে নিয়ে করোনা মোকাবেলা করতে হবে।  

সভাপতির বক্তব্যে জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি বলেছেন, বর্তমান স্বাস্থ্যমন্ত্রী হচ্ছেন বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যর্থ মন্ত্রী। স্বাধীনতার পর এমন ব্যর্থ মন্ত্রী আর ইতিহাসে নেই।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯১১ ঘণ্টা, জুলাই ১৪, ২০২১
এসএমএকে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa