ঢাকা, সোমবার, ২ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

রাজনীতি

‘৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছিল’

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০০ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
‘৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্রকে হত্যা করা হয়েছিল’ ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান

ঢাকা: জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সভাপতি ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান বলেছেন, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের নামে প্রহসন করা হয়েছিল। সারা দেশের কোথাও দিনের বেলা কোনো নির্বাচন হয়নি, নির্বাচন হয়েছে রাতের আঁধারে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষের ভোটাধিকার হরণ করা হয়েছিল। তাই বাংলাদেশের ইতিহাসে লেখা থাকবে—২৯ ডিসেম্বরের রাত ভোট ডাকাতির কালো রাত আর ৩০ ডিসেম্বর দিন গণতন্ত্রকে হত্যা করার দিন।

মঙ্গলবার (৩০ ডিসেম্বর) গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে জাগপা সভাপতি আরও বলেন, গণমাধ্যমের মাধ্যমে জেনেছি একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আয়োজনে ইসি খরচ করেছে ৭০০ কোটি টাকা। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য ৪০০ কোটি টাকা এবং বাকি ৩০০ কোটি টাকা নির্বাচন পরিচালনার জন্য।

ব্যারিস্টার তাসমিয়া প্রধান বলেন, রাতের আঁধারে ভোট ডাকাতি করে, ভোটের আগেই যে নির্বাচনে ভোটের ফলাফল তৈরি করে রাখা হয় সেই ভোটে ৭০০ কোটি টাকা খরচ করা হয়। এই টাকা কোথাও থেকে উড়ে আসেনি। আমার দেশের সাধারণ মানুষের কষ্টে অর্জিত ভ্যাট-ট্যাক্সের টাকা প্রহসনের নির্বাচনে উড়িয়ে দেওয়ার ক্ষমতা আপনাদের কে দিয়েছে?

তিনি আরও বলেন, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে আমাদের অন্যতম প্রধান দাবি ছিল ভোট ও ভাতের অধিকার, গণতন্ত্রের অধিকার, ন্যায়বিচারের অধিকার। স্বাধীন দেশের ৫০ বছর পূর্তির দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আজও আমাদের ভোট, ভাত, গণতন্ত্র ও ন্যায়বিচারের অধিকারের জন্য কথা বলতে হয়। এর দায় এর লজ্জা আপনাদের এই বাংলার মাটিতেই একদিন পেতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০
এমএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।