ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৬ আগস্ট ২০২০, ১৫ জিলহজ ১৪৪১

বিএনপি

সরকারের দৃষ্টি শুধু প্রবাসীদের রেমিটেন্সের প্রতি: রিজভী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৭-১০ ১২:৪৪:৫৩ পিএম
সরকারের দৃষ্টি শুধু প্রবাসীদের রেমিটেন্সের প্রতি: রিজভী রুহুল কবির রিজভী

ঢাকা: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ইতালিতে পৌঁছার পর ১৫২ জন বাংলাদেশিকে এয়ারপোর্ট থেকে ফেরত দেওয়ার ঘটনা প্রমাণ করে ক্ষমতাসীন সরকার দেশের জনগণের স্বার্থের প্রতি কতটা উদাসীন।

তিনি বলেন, সরকারের দৃষ্টি শুধুই যেন প্রবাসীদের পাঠানো রেমিটেন্সের প্রতি, প্রবাসীদের স্বার্থের প্রতি নয়।

শুক্রবার (১০ জুলাই) দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে ভিডিও কনফারেন্সে এসব কথা বলেন রিজভী।

তিনি বলেন, আমরা বারবার বলে আসছি, করোনাভাইরাস ট্রেস-টেস্ট এবং ট্রিটমেন্ট নিয়ে সরকার কী করছে, কী ধরনের পদক্ষেপ নিচ্ছে—এগুলো জনগণকে জানাতে হবে। এমনকি করোনা মোকাবিলায় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর পক্ষ থেকে প্রয়োজনে একটি জাতীয় কমিটি গঠন করার জন্যও সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়েছিল। সরকার সেই দাবি কানে নেয়নি। বরং এখন খবর বেরুচ্ছে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনা মোকাবিলায় জেকেজি হেলথ কেয়ার এবং রিজেন্ট হাসপাতাল নামের কিছু ভুয়া প্রতিষ্ঠানকে করোনা টেস্ট ও ট্রিটমেন্টের অনুমোদন দিয়েছে। তাদের একমাত্র যোগ্যতা ছিল, এইসব ভুয়া প্রতিষ্ঠানের কর্ণধাররা ক্ষমতাসীন দলের নেতা কিংবা ঘনিষ্ঠ।

রিজভী আরও বলেন, অনুমোদন পেয়ে এইসব প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতিবাজরা টাকার বিনিময়ে হাজার হাজার মানুষকে রক্ত পরীক্ষা না করেই করোনামুক্ত সার্টিফিকেট ইস্যু করতো। এদের সার্টিফিকেট নিয়ে প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গিয়ে আটক কিংবা ফেরত আসতে শুরু করায় এখন সরকারের টনক নড়েছে।

বিএনপির এই নেতা বলেন, কখনো হলমার্ক কেলেঙ্কারি, কখনো রিজার্ভ ফান্ড লুট, কখনো ক্যাসিনো কেলেঙ্কারি আর এখন করোনা পরীক্ষা এবং চিকিৎসা নিয়ে কেলেঙ্কারি চলছে। প্রতিটি কেলেঙ্কারির হোতা সরকারি দলের পদ-পদবীধারী নেতা কিংবা সরকারের বিশেষ আনুকূল্যপ্রাপ্ত দুর্নীতিবাজরা। ভোট ডাকাত, ব্যাংক ডাকাত, দুর্নীতিবাজ, চাঁদাবাজ, করোনার ভুয়া প্রত্যয়নপত্রবাজে এখন দেশ ভরে গেছে।

তিনি বলেন, ছাত্রদলের সাবেক কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ও বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আকরামুল হাসান মিন্টুকে বৃহস্পতিবার নরসিংদী জেলা
শহরের নিজ বাসভবন থেকে গ্রেফতার করার ঘটনায় আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। এছাড়া নোয়াখালী জেলাধীন বেগমগঞ্জ থানার চন্দ্রগঞ্জ আলাইয়াপুর ইউনিয়নের সাবেক ছাত্রদল নেতা মো. টিটু হায়দারকে গত তিনদিন আগে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তুলে নিয়ে গেছে। এখনো তার কোন হদিস দিচ্ছে না। তার পরিবার ভয় ও আতঙ্কের মধ্যে দিন কাটাচ্ছে। তাকে ক্রসফায়ারে দেয় কিনা তা নিয়ে পরিবারের সদস্যরা গভীর উদ্বেগের মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। আমি অবিলম্বে টিটু হায়দারকে জনসমক্ষে হাজির করে তার পরিবারের কাছে ফেরত দেওয়ার জোর আহ্বান জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪৩ ঘণ্টা, জুলাই ১০, ২০২০
এমএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa