bangla news

করোনা: লক্ষণ দেখা দিলে পরীক্ষার দাবি গণসংহতি আন্দোলনের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০৪-০২ ১০:০০:৪৮ পিএম
গণসংহতি আন্দোলনের লোগো।

গণসংহতি আন্দোলনের লোগো।

ঢাকা: করোনার লক্ষণ দেখা দিলেই রোগীর নিশ্চিত পরীক্ষা, করোনা রোগীদের চিকিৎসায় বিশেষ হাসপাতাল এবং সব ডাক্তার-স্বাস্থ্যকর্মীদের পারসোনাল প্রোটেক্টিভ ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) সরবরাহের দাবি জানিয়েছে গণসংহতি আন্দোলন।

বৃহস্পতিবার (০২ এপ্রিল) গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি ও নির্বাহী সমন্বয়কারী (ভারপ্রাপ্ত) আবুল হাসান রুবেল এ দাবি জানান।

এতে বলা হয়, করোনা এমন একটি রোগ যা মানুষ থেকে মানুষে ছড়ায়। ফলে যে হাসপাতালে করোনা রোগীর চিকিৎসা হচ্ছে সেখানে অন্য রোগীরও চিকিৎসা হলে তার সংক্রমণের আশঙ্কা বৃদ্ধি পায়। ফলে আমরা প্রথম থেকেই দাবি করে আসছিলাম করোনার জন্য এক বা একাধিক হাসপাতাল নির্দিষ্ট করে সেখানে করোনা রোগীদের চিকিৎসা দেওয়ার ব্যবস্থা করা। কিন্তু আমরা এখনো পর্যন্ত সেই উদ্যোগ দেখতে পাচ্ছি না। জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসা প্রয়োজন এমন অনেক রোগীও চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। যা চরম উদ্বেগের এবং মৌলিক মানবাধিকারের পরিপন্থি।

আরেকটি উদ্বেগের বিষয় ডাক্তারসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা। সরকারের ঘোষণা সত্ত্বেও এখনও বহু ডাক্তারের কাছেই তাদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী (পিপিই) পৌঁছায়নি। তাই অবিলম্বে সব ডাক্তার, নার্স, ক্লিনারসহ স্বাস্থ্যসেবায় নিয়োজিত মানুষের জন্য পিপিই নিশ্চিত করতে হবে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনা নিয়ন্ত্রণে পরীক্ষার ওপর সবচেয়ে বেশি জোর দিলেও আমরা দেখছি বাংলাদেশে পর্যাপ্ত পরীক্ষা করা হচ্ছে না। পরীক্ষাকে নানাভাবে নিরুৎসাহিত করা হচ্ছে। করোনা নির্ণয় ও তার আইসোলেশনই কেবল এর বিপুল বিস্তার থেকে আমাদের রক্ষা করতে পারে। অথচ সে পথে না গিয়ে যতদূর সম্ভব কম পরীক্ষার নীতি আমাদের মহামারির ঝুঁকি বাড়িয়ে দিচ্ছে। অবিলম্বে করোনা পরীক্ষার বহুগুণে বর্ধিত করা দরকার। যেখানে করোনা রোগের লক্ষণযুক্ত রোগী দেখা যাবে সেখানেই পরীক্ষার নীতি নিতে হবে। দেশের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে এর জন্য সক্ষমতা সৃষ্টি করতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২২০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ০২, ২০২০
আরকেআর/এইচএডি

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   করোনা ভাইরাস
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-04-02 22:00:48