bangla news

সরকার ভাষার বারোটা বাজিয়ে দিয়েছে: আলাল

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০-০২-২০ ৬:৪২:৫২ পিএম
সভায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ দলটির নেতারা, ছবি: বাংলানিউজ

সভায় বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলালসহ দলটির নেতারা, ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেছেন, যে ভাষাই বলেন না কেন, এই সরকার সব ভাষার বারোটা বাজিয়ে ছেড়ে দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জাতীয় সংসদে দাঁড়িয়ে বলেছিলেন ‘এক কেজি বেগুন আমি দুই কেজি লবণ দিয়ে পাক করব, এটা আমার ইচ্ছা, কার কে?’ আর খালেদা জিয়ার ভাষা যদি তুলনা করেন, তবে তিনি সর্বশেষ যেদিন জাতীয় সংসদে বক্তৃতা দিয়েছেন সেদিনও শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান বীর উত্তমের নামের আগে অত্যন্ত সম্মানের সহিত মরহুম শেখ মুজিবুর রহমান সাহেবের নাম উচ্চারণ করেছেন। এখানে হচ্ছে ভাষা দিবসের তাৎপর্য।

বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সুপ্রিম কোর্ট বার মিলনায়তনে একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, ভাষা কৃষ্টি-কালচার ও রাজনীতি সবদিক থেকে সবচাইতে নিকৃষ্ট রাজনৈতিক দল হচ্ছে আওয়ামী লীগ। আর আওয়ামী লীগের ইতিহাসে সবচেয়ে নিকৃষ্ট সরকার হচ্ছে বর্তমান সরকার।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগে অনেক সিনিয়র নেতা থাকা সত্ত্বেও ঢাকা উত্তরে একজন ব্যবসায়ীকে এনে মেয়র প্রার্থী মনোনয়ন দিয়েছে। আরেকজন ব্যবসায়ীকে ধরে এনে ঢাকা-১০ আসনে মনোনয়ন দিয়েছে। মোজাফফর হোসেন পল্টুর মতো ঐতিহ্যবাহী আওয়ামী লীগার ঢাকায় রয়েছেন। মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন ৯০ এর গণআন্দোলনের অন্যতম সৈনিক, তার মতো নেতৃত্ব যেখানে রয়েছে। ছাত্রলীগ থেকে রাজনীতি করে আসা জাহাঙ্গীর কবির নানকদের মতো নেতৃত্ব যেখানে রয়েছে, সেখানে শফিউল ইসলাম মহিউদ্দিনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ সেই সিরাজউদ্দৌলার কাহিনী। কাশিমবাজার কুঠিতে গিয়ে সিরাজউদ্দৌলা হাতেনাতে ধরলেন, সবাইকে ধমকালেন, সবাইকে শাসন করলেন কিন্তু জগৎ সেঠের সামনে গিয়ে কাঁধে হাত দিয়ে বললেন জগৎ সেঠকে আমি কিছু বলব না, কারণ টাকা আমারও দরকার।

তিনি বলেন, আজকে এই সরকার সবকিছুকে বিসর্জন দিয়েছে। দেশের ঐতিহ্য, দেশের স্বাধীনতা, ভাষা দিবসের মহত্ত্ব, তাৎপর্য, গণতন্ত্র ও শহীদদের আত্মত্যাগ সবকিছু বিসর্জন দিয়ে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে সেটাকে হালাল করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এই হালাল করার চেষ্টা প্রতিহত করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য নিজেকে যতটা নিয়োজিত করতে হবে, তা করব। আর এরমধ্যেই মাতৃভাষা দিবসের মূল তাৎপর্য খুঁজে পাব।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২০, ২০২০
এমএইচ/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   রাজনীতি বিএনপি সরকার
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2020-02-20 18:42:52