bangla news

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াই জরুরি: সিপিবি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১২-২৫ ৮:৫৭:৩৭ পিএম
সভায় সিপিবি সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমসহ নেতাকর্মীরা, ছবি: বাংলানিউজ

সভায় সিপিবি সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমসহ নেতাকর্মীরা, ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ভারতের সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের (সিএএ) বিরুদ্ধে দক্ষিণ এশিয়ার জনগণের ঐক্যবদ্ধ লড়াই জরুরি হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম।

বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) রাজধানীর পুরান পল্টনের মুক্তিভবনের সিপিবি কার্যালয়ে দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত জাতীয় পরিষদের সভায় তিনি এ কথা বলেন।

কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম বলেন, আমরা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে কঠিন সময়ের সম্মুখীন। বিশ্ব সাম্রাজ্যবাদের পাশাপাশি ভারতের বৃহৎ পুঁজির আগ্রাসী আধিপত্য আমাদের ওপর চেপে বসছে। ভারতের বৃহৎ পুঁজি সাম্প্রদায়িকতাকে বহন করছে। নরেন্দ্র মোদীর হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির পৃষ্ঠপোষক আম্বানি, আদানিরা। অপরদিকে, মোদী ভারতের জনগণকে নিরঙ্কুশ শোষণ করার পথ করে দিচ্ছেন।

ভারতের নাগরিকত্ব আইন প্রসঙ্গে সেলিম বলেন, নাগরিকত্ব আইন ও নাগরিকত্ব তালিকা (এনআরসি) ভারতীয় সমাজ ও রাজনীতিতে সাম্প্রদায়িক বিভাজন সৃষ্টি করবে। ভারত ক্রমান্বয়ে হিন্দু রাষ্ট্রে পরিণত হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে ভারতে গণপ্রতিরোধ চলছে।

তিনি বলেন, ভারতের নাগরিকত্ব আইন দক্ষিণ এশিয়াতেও সাম্প্রদায়িক বিভাজনের রাজনীতির সৃষ্টি করবে। তাই এটা শুধু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়। এর বিরুদ্ধে দক্ষিণ এশিয়ার জনগণের ঐক্যবদ্ধ লড়াই জরুরি হয়ে পড়েছে।

তিনি দেশে চলমান দুঃশাসন হটানোর পাশাপাশি, বিদ্যমান ব্যবস্থার পরিবর্তন করতে বাম বিকল্প শক্তি গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছেন।

মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে সভায় রিপোর্ট উত্থাপন করেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহাম্মদ শাহ আলম।

জাতীয় পরিষদের সভায় আরও বক্তব্য রাখেন, শিবনাথ চক্রবর্তী, শ ম কামাল হোসেন, অশোক সাহা, মোতালেব মোল্লা, শহীদউদ্দিন বাবুল, দিলীপ পাইক, নিসার আহমেদ, সাজিদুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল, আনোয়ার হোসেন রেজা, মোজাহারুল হক, রেখা চৌধুরী, মেহেদী হাসান নোবেল, মোস্তাফিজুর রহমান মিলন, মাসুম ইবনে শফিক, হাফিজ আদনান রিয়াদ, আবু হোসেন, ওয়াহেদুজ্জামান মতি, অরুণ কুমার শীল, আব্দুল হালিম প্রমুখ।

বাংলাদেশের সময়: ২০৫৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৫, ২০১৯
আরকেআর/টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   রাজনীতি ভারত
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-12-25 20:57:37