ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ১১ আগস্ট ২০২০, ২০ জিলহজ ১৪৪১

অন্যান্য দল

নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বাসদের বিক্ষোভ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২, ২০১৯
নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে বাসদের বিক্ষোভ

ঢাকা: বিদ্যুতের মূল্যবৃদ্ধি এবং সিপিবি নেতা মঞ্জুরুল আহসান খানসহ সারাদেশে বাম নেতা-কর্মীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) ঢাকা মহানগর শাখা।

রোববার (০১ ডিসেম্বর) বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তারা এই প্রতিবাদ সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করে। বাসদ ঢাকা মহানগর শাখার আহ্বায়ক বজলুর রশীদ ফিরোজের সভাপতিত্বে আয়োজিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- মহানগর শাখার সদস্য সচিব জুলফিকার আলী, সদস্য খালেকুজ্জামান লিপন ও আহসান হাবিব বুলবুল।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, গ্যাস-বিদ্যুতের মূল্য নিয়ে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) গণশুনানি গণতামাশায় পরিণত হয়েছে। গণশুনানিতে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) লোকসানের অজুহাত দেখিয়ে বিদ্যুতের দাম ২৩ দশমিক ২৭ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করেছে। ওই গণশুনানিতে অংশ নেওয়া নাগরিক, জ্বালানি বিশেষজ্ঞ, রাজনৈতিক নেতারা মূল্য বাড়ানোর প্রস্তাবকে অযৌক্তিক বলে তা প্রত্যাখ্যান করেছেন।

‘বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, রেন্টাল ও কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্র বন্ধ করে দিলে দেড় হাজার কোটি টাকা সাশ্রয় হবে। কিন্তু মুষ্টিমেয় বিদ্যুৎ ব্যবসায়ীদের মুনাফার স্বার্থে উৎপাদন না করেও বসিয়ে বসিয়ে রেন্টাল, কুইক রেন্টাল বিদ্যুৎকেন্দ্রকে তাদের ক্যাপাসিটি চার্জ হিসেবে টাকা দিচ্ছে। এ মুনাফা-লুটপাটের অর্থ যোগান দিতেই বারে বারে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হচ্ছে। ইতোমধ্যে পেঁয়াজ, চাল, সয়াবিন তেল, আদা, রসুনসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধিতে জনগণ যখন দিশেহারা, ঠিক তখন বিদ্যুতের মূল্য বাড়ানো জনগণকে আরও দুর্ভোগে ফেলবে। ’

তারা বলেন, বর্তমান সরকারের এই অনিয়ম, দুর্নীতি, লুটপাট, দুঃশাসন ও মূল্যবৃদ্ধির বিরুদ্ধে বাসদসহ বামপন্থিরা সারাদেশে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ করছে। জনগণের প্রতিবাদ-বিক্ষোভকে দমন করতে জামালপুর, শেরপুর, টাঙ্গাইল, বরগুনা, কুমিল্লা, ঢাকার সূত্রাপুর, শান্তিনগরসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সন্ত্রাসী ও পুলিশ বাহিনী হামলা চালাচ্ছে।

‘সিপিবির বর্ষীয়ান নেতা মঞ্জুরুল আহসান খানসহ অসংখ্য নেতা-কর্মীকে আহত করেছে তারা। আমরা এর তীব্র নিন্দা জানাই এবং সন্ত্রাসী ও পুলিশের শাস্তি দাবি করি। ’

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল প্রেসক্লাব, তোপখানা রোড, পল্টন, সেগুনবাগিচা এলাকা প্রদক্ষিণ করে দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০১, ২০১৯
এইচএমএস/এসএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa