bangla news

জামায়াতের কারণে বিএনপি জনগণের আস্থা হারিয়েছে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-৩০ ৩:২১:৫৪ পিএম
বক্তব্য রাখছেন শাহরিয়ার কবির। ছবি: বাংলানিউজ

বক্তব্য রাখছেন শাহরিয়ার কবির। ছবি: বাংলানিউজ

মানিকগঞ্জ: একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেছেন, বিএনপি-জামায়াতের মুখে গণতন্ত্রের কথা মানায় না। আমরা ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়াত জোটের গণতন্ত্র দেখেছি। তখন তাদের কর্মীরা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়সহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের লোকজনকে হত্যা নির্যাতন করেছে। জামায়াতের কারণে আজ বিএনপি জনগণের আস্থা হারিয়ে ফেলেছে।

শনিবার (৩০ নভেম্বর) দুপুরে মানিকগঞ্জ শহরের উদীচী কার্যালয় প্রাঙ্গণে জেলা একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নারী-ছাত্র ও আইনজীবী ফ্রন্টের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

শাহরিয়ার কবির বলেন, সাতজনের মৃত্যুদণ্ডের রায়ের মধ্য দিয়ে দেশে জঙ্গি নির্মূল হয়েছে এটা ভাবার কোনো কারণ নেই। জামায়াতের রাজনীতি দেশে থাকবে আর দেশ থেকে জঙ্গিবাদ নির্মূল হবে এটা ভাবারও কোনো সুযোগ নেই। জঙ্গিবাদের কারখানা নির্মল করে জঙ্গিবাদের প্রশয়দাতা ও মদতদাতাদের বিচারের আওতায় নিয়ে আসতে হবে। সেই সঙ্গে জামায়াতের রাজনীতি বন্ধ করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, নানা প্রতিবন্ধকতার কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে দল ও দেশ গঠন করতে চান সেভাবে পারছেন না। আওয়ামী লীগের নেতারা কে কি বললো তাতে কান না দিয়ে শেখ হাসিনার পাশে সব সময় আমাদের থাকা উচিত।

নারী নেত্রী লক্ষী চ্যার্টাজির সভাপতিত্বে সম্মেলনে আরও বক্তব্য রাখেন- একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মহীউদ্দীন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় সদস্য ব্যারিস্টার তুরীন আফরোজ, মানিকগঞ্জ পৌরসভার মেয়র গাজী কামরুল হুদা সেলিম, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির জেলার সভাপতি অ্যাডভোকেট দীপক ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াৎ হোসাইন, অধ্যক্ষ উর্মিলা রায় প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ৩০, ২০১৯
এনটি

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-30 15:21:54