ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

রাজনীতি

না’গঞ্জের সাখাওয়াতকে বহিষ্কারের আবেদন তারেকের কাছে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩০৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০১৯
না’গঞ্জের সাখাওয়াতকে বহিষ্কারের আবেদন তারেকের কাছে

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সিটি করপোরেশনের বিগত নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানকে ‘ষড়যন্ত্রকারী’ উল্লেখ করে তাকে বহিষ্কারের দাবিতে দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমান বরাবর আবেদন করা হয়েছে।

লিখিত এ আবেদন শুক্রবার (২৯ নভেম্বর) সকাল ৯টায় দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দুপুর ১২টায় সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদের হাতে পৌঁছে দেন মহানগর শাখার নেতারা। এসময় উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিক, যুগ্ম-সম্পাদক আব্দুস সবুর খান সেন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক আবু আল ইউসুফ খান টিপু, কোষাধ্যক্ষ সোলায়মান সরকার ও দপ্তর সম্পাদক ইসমাইল মাস্টার।

 

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল চিঠি দেওয়ার বিষয়টি বাংলানিউজকে নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করার কারণে, মূল দলসহ অঙ্গ সংগঠনে গ্রুপিং এবং মহাসচিবের বিরুদ্ধে মামলা করে দলকে আইনগতভাবে বেকায়দায় ফেলার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত থাকার কারণে অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেনের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার আবেদন করেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি।  

ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন বরাবর অভিযোগপত্রটিতে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির পক্ষে স্বাক্ষর করেন সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল।

অভিযোগপত্রটিতে উল্লেখ করা হয়, সরকারি দলের সঙ্গে আঁতাত করে আদালতের মাধ্যমে দলীয় কর্মকাণ্ড ও কর্মসূচি বন্ধ করার এবং দলকে আদালতে আইনের মারপ্যাঁচে ফেলে সাংগঠনিক কার্যক্রমকে ব্যাহত করার ষড়যন্ত্রে থাকার যে নীলনকশা সাখাওয়াত হোসেন খান নিয়েছেন, তাতে দল সরকারবিরোধী আন্দোলন করতে বাধা পাচ্ছে। এটা মহানগর বিএনপিকে সাংগঠনিকভাবে দুর্বল করার হীন চক্রান্ত। তাই নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপিকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করার স্বার্থে দলীয় শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনার জন্য নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির কার্যকরী কমিটির সভায় গৃহীত অনাস্থা প্রস্তাব বাস্তবায়ন করে সাখাওয়াত হোসেন খানকে বহিষ্কারের জোর অনুরোধ করছি।

এদিকে বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির কমিটি ও কার্যক্রমে স্থগিতাদেশ দিয়েছেন আদালত। গত ১১ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র সহকারী জজ শিউলী রানী দাসের আদালতে মহানগরের ১০ নং ওয়ার্ড বিএনপির সাবেক সভাপতি গোলজার খান ও একই ওয়ার্ডের সাবেক যুগ্ম-সম্পাদক (পৌরসভাকালীন) নূর আলম শিকদার বাদী হয়ে মামলা করলে এই স্থগিতাদেশ দেওয়া হয়। মামলায় বিবাদী করা হয়েছে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহমুদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামালকে।

অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান বিএনপির প্রার্থী হিসেবে গত নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। তিনি দলের বর্তমান মহানগর কমিটির সিনিয়র সহ-সভাপতি, সাবেক নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জের আলোচিত সাত খুনের মামলার আইনজীবী। দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচিতে তাকে সক্রিয় দেখা গেলেও মহানগর বিএনপির সঙ্গে একত্রে কোনো কর্মসূচি পালন করতে দেখা যায় না সাখাওয়াতকে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৪ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৯, ২০১৯
এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa