bangla news

‘ভাসানীর খামোশ আজ বড্ড প্রয়োজন ছিল’ 

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-১৯ ৪:৪০:৫০ পিএম
অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান বলেছেন, দেশে যখন লুটপাট আর দুর্নীতির ভয়াবহতা চলছে, দ্রব্যমূল্যের চরম ঊর্ধ্বগতি তখন মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর ঐতিহাসিক 'খামোশ' উচ্চারণ আজ জাতি মর্মে মর্মে উপলব্ধি করছে। তার এই খামোশের বড্ড প্রয়োজন ছিল আজ। 

মঙ্গলবার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর খিলক্ষেতে দলীয় কার্যালয়ে মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে জাগপা আয়োজিত স্মরণসভা ও দোয়া অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জাগপা সম্পাদক বলেন, মওলানা ভাসানী আধিপত্যবাদ বিরোধী সংগ্রামের জাতীয় ঐক্যের প্রতীক। জাতির প্রয়োজনে দেশের প্রয়োজনে তার প্রদর্শিত পথে এগিয়ে যেতে হবে।

ভারতের অব্যাহত আগ্রাসন প্রসঙ্গে বলেন, আমরা বন্ধুত্ব চাই সমমর্যাদার ভিত্তিতে। বন্ধুত্বের নামে কোন দাসত্ব আমরা মেনে নিতে পারি না। মওলানা ভাসানী জীবনের শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত লড়াই করেছেন আগ্রাসনের বিরুদ্ধে।

জাগপা সাধারণ সম্পাদক বলেন, মজলুম জননেতা মওলানা ভাসানীর আপোষহীন রাজনীতি ভিত কাঁপিয়ে দিয়েছিল অত্যাচারী শাসক শ্রেণীর। স্বদেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ ও সাহসী করে তুলেছিল সাধারণ মানুষকে। আজীবন হিন্দু-মুসলমান নির্বিশেষে অধিকার আদায়ে মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার সংগ্রাম করেছেন তিনি। 

তিনি বলেন, ‘আজকের রাজনীতির মানচিত্র পরিবর্তন হয়ে গেছে। সামাজিক মূল্যবোধ ধ্বংসের পথে। আর এর জন্য দায়ী আওয়ামী শাসকগোষ্ঠী। আওয়ামী লীগ আজ নীতিহীন রাজনীতির পৃষ্টপোষক।’

জাগপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খন্দকার আবিদুর রহমানের সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান খোকনের সঞ্চলনায় আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন জাগপা সহ-সভাপতি আ স ম মিজবাহউদ্দিন, রকিবউদ্দিন চৌধুরী মুন্না, মাহবুবুল আলম মজুমদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. আওলাদ হোসেন শিল্পী, সালাউদ্দিন মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিন্সিপাল হুমায়ূন কবির, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক এম এ হাফিজ, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক বাদল প্রধান, নির্বাহী সদস্য অধ্যাপক শামসুজ্জোহা, সাইফুল আলম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩৫ ঘণ্টা,  নভেম্বর ১৯,  ২০১৯
এমএইচ/এমএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   রাজনীতি
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-19 16:40:50