bangla news

সিলেট বিএনপিতে গণপদত্যাগের হুমকি

নাসির উদ্দিন, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১১-০৩ ৩:৪৯:১২ এএম
বিএনপির লোগো 

বিএনপির লোগো 

সিলেট: বিতর্কিত কর্মীদের নিয়ে জেলা ও মহানগর যুবদলের কমিটি গঠন করায় ক্ষুব্ধ সিলেট বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা। নতুন কমিটিতে দলের ত্যাগী, পরীক্ষিত, জেলজুলুম সহ্য করা নেতাকর্মীদের ঠাঁই না হওয়ায় কেন্দ্রের ওপর নাখোশ হয়ে পদত্যাগের হুমকি দিয়েছেন নেতারা । 

এরই মধ্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য ও সিলেট সিটি কর্পোরেশনের (সিসিক)  মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, ডা. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় বিএনপির ক্ষুদ্র ঋণ বিষয়ক সহ-সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সহ-সম্পাদক অ্যাডভোকেট সামসুজ্জামান জামানের পদত্যাগের গুঞ্জন উঠেছে। কেবল এ চার নেতাই নয়, যুবদল ইস্যুতে বৃহত্তর সিলেটের হাজারও নেতাকর্মীর পদত্যাগের  ঘোষণা আসতে পারে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।    
 
শনিবার (২ নভেম্বর) রাতে এ ইস্যুতে বৈঠকের কথা জানান সিসিক মেয়র। এর আগে শুক্রবার (১ নভেম্বর) রাতেও দফায় দফায় বৈঠক করে নেতাকর্মীরা। তাতে যুবদলের নতুন কমিটি বাতিল না করলে গণপদত্যাগের সিদ্ধান্ত হয়।
 
এ প্রসঙ্গে বাংলানিউজকে সিসিক মেয়র বলেন, যারা দলের জন্য জেলজুলুম সহ্য করেছে, দুর্দিনে বিএনপির চেয়ারপারসনকে কারামুক্ত করতে আন্দোলন করে যাচ্ছে, নির্বাচনে আমাকে পাস করাতে রাতদিন পরিশ্রম করেছে, সেসব নেতাকর্মীদের কমিটিতে রাখা হয়নি। এমনকি সাবেক কমিটির কেউ স্থান পায়নি এ কমিটিতে। যারা স্থান পেয়েছে,তারা দলের দুর্দিনে ছিল না। একটি ব্যবসায়ী বলয়ের সুবিধাভোগী কর্মীদের নিয়ে এ কমিটি করা হয়েছে।

আরিফুল হক চৌধুরী জানান, এরই মধ্যে তিনিসহ চার নেতা পদত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ঘোষিত কমিটি বাতিল করে পুনরায় কমিটি না দিলে কেন্দ্রে পদত্যাগপত্র পাঠাবেন তারা। এরপর বিভাগ জুড়ে গণপদত্যাগের সিদ্ধান্ত আসতে পারে।

এদিকে দলীয় সূত্র জানায়, এ প্রতিক্রিয়া জানার পর নড়েচড়ে বসেছে বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি। তারা বিষয়টি সুরাহার উদ্যোগ নিচ্ছে।
 
এ বিষয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট বিভাগের সমন্বয়ক ডা. শাখাওয়াত হাসান জীবন বলেন, আমি ৩ দিন ধরে হবিগঞ্জ এলাকায়। যুবদলের কমিটি নিয়ে সিলেট বিএনপিতে অস্থিরতা  বিরাজ করার কথা আজকেই শুনেছি। বিষয়টি ভালো ভাবে জেনে কেন্দ্রের সঙ্গে আলাপ করা হবে। 
 
বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এম এ হকের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ ব্যাপারে আমার কোনো ক্ষোভ নেই, প্রতিক্রিয়াও নেই।
 
এদিকে যুবদলের নতুন কমিটির নেপথ্যে থাকার অভিযোগ উঠেছে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদিরের দিকে। মোবাইলে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি। 
  
শুক্রবার বিকেলে যুবদলের সভাপতি সাইফুল ইসলাম নিরব ও সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহ উদ্দিন টুকু সিলেট জেলা ও মহানগর শাখার কমিটি ঘোষণা করেন। 

এ কমিটিতে জেলার আহ্বায়ক করা হয়েছে- বিতর্কিত কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান পাপলুকে। এছাড়া সাবেক ছাত্রনেতা নজিবুর রহমান নজিবকে মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক করা হয়েছে। জেলা শাখায় সদস্য সচিব করা হয়েছে- জেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মকসুদ আহমদকে। অন্যদিকে মহানগর শাখার সদস্য সচিব করা হয়েছে- শাহ নেওয়াজ বক্ত তারেককে। এছাড়া জেলা শাখার ২৯ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ও মহানগর যুবদলের ২৭ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
 
বাংলাদেশ সময়: ০৩৪৮ ঘন্টা, নভেম্বর ০৩, ২০১৯
এনইউ/এইচজে 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   বিএনপি
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-11-03 03:49:12