ঢাকা, সোমবার, ৬ আশ্বিন ১৪২৭, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২ সফর ১৪৪২

বিএনপি

আপেলের চেয়ে পেঁয়াজের দাম বেশি হয়ে গেছে: খসরু

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২০ ঘণ্টা, অক্টোবর ৩১, ২০১৯
আপেলের চেয়ে পেঁয়াজের দাম বেশি হয়ে গেছে: খসরু

ঢাকা: পেঁয়াজসহ বিভিন্ন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, কোরবানির পর পেয়াঁজের দাম ৬০ থেকে শুরু হয়ে বাড়তে বাড়তে এখন ১৪০ টাকায় ঠেকেছে। আপেলের চেয়ে পেঁয়াজের দাম বেশি হয়ে গেছে। অথচ মশকরা করে অনেকেই বলছেন, এত দাম দিয়ে পেয়াজ খাওয়ার কী দরকার?

বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১-এর কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে ‘প্রতিহিংসার রাজনীতি ও দেশনেত্রী খালেদা জিয়া’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন আমীর খসরু মাহমুদ।

পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি নিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন বক্তব্য ও ভূমিকার সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এ সদস্য বলেন, তাহলে কাল ডিমের দাম বেড়ে গেলে ডিম খাবেন না, তেলের দাম বেড়ে গেলে তেল খাবেন না, চালের দাম বেড়ে গেলে চাল খাবেন না।

এর চেয়ে সহজ পন্থা পৃথিবীতে কী আর কিছু আছে? 

‘দেশ কোথায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে। জনগণকে কোনো তোয়াক্কা না করেই এসব কাজ করা হচ্ছে। ব্যাপারটা এমন যে, আমরা (সরকার) জনগণের তোয়াক্কা করি না, তোমাদের ভোটের দরকার নেই। যাদের জনগণের কাছে কোনো জবাবদিহিতা নেই, যারা জনগণের মালিকানা নিয়ে (রসিকতা করছে) তাদের কাছে কে পেঁয়াজ খেতে পারলো, আর কে পেঁয়াজ খেতে পারলো না, এ নিয়ে কোনো মাথা ব্যথা নেই। ’

সভায় কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকর ব্যাপারে সরকার ষড়যন্ত্র করছে মন্তব্য করে আমীর খসরু মাহমুদ বলেন, খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা না দিয়ে জেলখানায় রেখে তিলে তিলে মারার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। খুনের আসামি জামিন পাচ্ছে, ধর্ষক জামিন পাচ্ছে কিন্তু খালেদা জিয়া জামিন পাচ্ছেন না। দেশের মানুষের কাছে দিনের আলোর মতো পরিষ্কার হয়ে গেছে যে, সবাই জামিন পাবে, কিন্তু খালেদা জিয়া জামিন পাবেন না।  

বর্তমান বিচার ব্যবস্থার সমালোচনা করে বিএনপি নেতা বলেন, দেশে কোনো বিচার ব্যবস্থা নেই। সরকারের মন্ত্রীরা বলে দেয়,  মামলার রায় কবে হবে। দশ দিনে বিচার হবে নাকি ১৫ দিনে হবে, এটা কি তারা বলতে পারেন? এর শাস্তি হয়ে যাবে, ওর শাস্তি হয়ে যাবে, এসব তারা বলে দেন। দেশের বিচার ব্যবস্থার একটি ধারা আছে- ডিউ প্রসেস অব ‘ল’। এই প্রক্রিয়ায় কার কী হবে সেটা বিচার বিভাগ সিদ্ধান্ত নেবে। কিন্তু এখন সব আগে থেকেই বলা হয়ে যাচ্ছে।

‘যে দেশে প্রধান বিচারপতিকে জোর করে অপসারণ করা হয়। মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে দেশ ত্যাগে বাধ্য করা হয়। যে দেশে তারেক রহমানের পক্ষে রায় দেওয়ার কারণে বিচারপতিকে চাকরিচ্যুত হতে হয়। যে দেশে মন্ত্রীরা কার কী বিচার হবে আগেভাগে বলে দেয়, সেখানে আপনারা কীভাবে বিচার আশা করেন?’

বিএনপির নেতাকর্মী ও জনতার উদ্দেশ্যে বিএনপি নেতা বলেন, খালেদা জিয়া বিচার পাবেন না। আপনাদেরকে প্রস্তুত থাকতে হবে, দেশবাসীকে প্রস্তুত থাকতে হবে, দেশের মালিকানা আপনাদের হাতে তুলে নিতে হবে। আপনারা যখন দেশের মালিকানা তুলে নেবেন তখন বিচার হবে।

জাতীয়তাবাদী প্রজন্ম ৭১-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি  ঢালী আমিনুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, নিপুন রায় চৌধুরী, সাবিরা নাজমুল, তাঁতী দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, কৃষকদল নেতা এম জাহাঙ্গীর আলম, সংগঠনের সহ-সাধারণ সম্পাদক শামিম ভূইয়া প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময় : ১৬১৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ৩১, ২০১৯
এমএইচ/এইচজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa