bangla news

দলের নাম ভাঙিয়ে অন্যায় করতে দেবেন না মেয়র সাদিক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৭ ৩:৪২:০১ এএম
বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহসহ অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মেয়র সাদিক আবদুল্লাহসহ অতিথিরা। ছবি: বাংলানিউজ

বরিশাল: আওয়ামী লীগের নাম ভাঙিয়ে কাউকে কোনো অন্যায় করতে দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দলটি থেকে নির্বাচিত বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের (বিসিসি) মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ। তিনি বলেছেন, দেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে যারা এখনো অন্যায়ের সঙ্গে যুক্ত আছেন, তাদের উচিত হবে দল ছেড়ে দেওয়া। আমি কোনো অন্যায়ের দায়ভার নেবো না এবং কাউকে দলের নাম ভাঙিয়ে কোনো অন্যায় করতে দেবো না।

মেয়র বুধবার (১৬ অক্টোবর) নগরের মুক্তিযোদ্ধা পার্ক সংলগ্ন মেরিন ওয়ার্কশপ মাঠে বরিশাল আন্তর্জাতিক জামদানি, তাঁতবস্ত্র রপ্তানি মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে একথা বলেন।

বিসিসির ১০ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও বরিশাল চেম্বারের পরিচালক এটিএম শহীদুল্লাহ কবিরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মেয়র আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন সেই অভিযানকে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন ও বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আগেই সাধুবাদ জানানো হয়েছে। অনেক অপরাধী আজ কিন্তু ইঁদুরের গর্তে যেতে বাধ্য হয়েছে।

অতীত থেতে নিজেও অনেক শিক্ষা নিয়েছেন উল্লেখ করে মেয়র বলেন, ভুলত্রুটি শুধরে আমাদেরকে সামনে এগিয়ে যেতে হবে। প্রধানমন্ত্রীর ভিশন বাস্তবায়নে আমাদের একত্রে কাজ করতে হবে।

’৭৫ এর ১৫ আগস্ট শহীদ হওয়া দাদা আবদুর রব সেরনিয়াবাতকে স্মরণ করে মেয়র সাদিক বলেন, চারটি মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী থাকার পরও তিনি মারা যাওয়ার পর তার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে মাত্র ১১০০ টাকা পাওয়া গিয়েছিল। রব সেরনিয়াবাত তার পরিবারের জন্য অর্থ রেখে যেতে না পারলেও আদর্শ রেখে গেছেন। আমরা আদর্শ বুকে ধারণ করে রাজনীতি করি। কোনো কিছু পাওয়ার আশায় রাজনীতি করি না। অর্থ দিয়ে কিছুই হয় না। আমিও ১৫ আগস্টে মরে যেতে পারতাম। আমাদের বিবেক জাগ্রত রেখে একজন মানুষ হয়ে মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। কারণ মহান সৃষ্টিকর্তা আমাদের বিবেক দিয়ে তৈরি করেছেন সৃষ্টির সেরা জীব হিসেবে।

মেয়র আরও বলেন, বরিশাল সিটি কর্পোরেশন হবে একটি পরিষ্কার গ্লাসের মতো। যেখানে জনগণের কাছে জবাবদিহিতা থাকবে। আমি এ লক্ষ্যে কাজ করছি। যেসব সাবেক ও বর্তমান কাউন্সিলর নামে-বেনামে অগণিত স্টল নিয়েছেন তাদের তালিকা আমার হাতে রয়েছে। আমি আগেও বলেছি বিসিসির কোনো কাউন্সিলর কর্পোরেশনের কোনো ঠিকাদারি কাজে যুক্ত থাকতে পারবেন না।

পুলিশের সব ভালো কাজে সহযোগিতা করার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, আমি দায়িত্ব নেওয়ার পূর্বেই এই নগর থেকে মদ-জুয়াসহ সব অশ্লীলতা বন্ধ করে দিয়েছি।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বরিশাল মেট্টোপলিটন পুলিশ কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান এ ধরনের একটি মেলার আয়োজনে পৃষ্ঠপোষকতা করার জন্য মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর প্রশংসা করে বলেন, একটি সুন্দর ও অপরাধমুক্ত নগর গড়তে প্রশাসনের পক্ষ থেকে মেয়রকে সব ধরনের সহায়তা করা হবে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি-সাউথ) মোয়াজ্জেম হোসেন ভুইয়া, বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ২ নং প্যানেল মেয়র রফিকুল ইসলাম খোকন, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক নিরব হোসেন টুটুল, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা হুমায়ুন কবির চৌধুরী প্রিন্স প্রমুখ।

পরে মেয়র প্রধান অতিথিসহ অন্যদের সঙ্গে নিয়ে মেলার বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন। এর আগে মেয়র বেলুন ও শান্তির প্রতীক পায়রা উড়িয়ে মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৩৩৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
এমএস/এইচএ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-17 03:42:01