ঢাকা, বুধবার, ৩০ আশ্বিন ১৪২৬, ১৬ অক্টোবর ২০১৯
bangla news

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের কর্মসূচি আসছে রোববার

মহসিন হোসেন, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-১৩ ১২:০৬:২৯ এএম
ঐক্যফ্রন্টের লোগো।

ঐক্যফ্রন্টের লোগো।

ঢাকা: জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বর্ষপূর্তি ঘিরে গণজমায়েত ও বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। 

রোববার (১৩ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবে এ গণজমায়েত ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। সমাবেশ থেকে ঐক্যফ্রন্টের নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলেও জোট সূত্র জানায়। 

আগামীকাল সমাবেশ থেকে কী ধরনের কর্মসূচি দেওয়া হবে তা ঠিক করতে শনিবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে বৈঠকে বসেন ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা। সেখান থেকে বর্তমানে দেশের বাইরে অবস্থান করা বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সঙ্গেও টেলিফোনে কথা বলেন তারা। পরে সিদ্ধান্ত হয় আগামী ১৮ অক্টোবর ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতারা কুষ্টিয়ায় আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করতে যাবেন। এছাড়া ২২ অক্টোবর ঢাকায় আবরার স্মরণে নাগরিক শোকসভার আয়োজন করা হবে। 

২০১৮ সালের ১৩ অক্টোবর জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের মধ্য দিয়ে গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন জাতীয়  ঐক্যফ্রন্টের  নাম ঘোষণা করেন। মূলত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখেই সে সময় এ জোট গঠন করা হয়। 

সে সময় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় ড. কামাল হোসেন এ ফ্রন্টের  নেতৃত্ব নেন। পরবর্তীতে গঠিত হয় জোটের স্টিয়ারিং কমিটি।  পরে এ জোট নির্বাচনে অংশ নেয়। কিন্তু ভোটের মাঠে তেমন সুবিধা করতে পারনি তারা। 

একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ভরাডুবির পর নির্বাচন প্রত্যাখান করে কারচুপির অভিযোগ আনে এ জোট। সে সময় তারা সংসদে যাবে না বলেও ঘোষণা দেয়।  তবে সরকার তাদের অভিযোগ আমলে না নেওয়ায় নানা নাটকীয়তার পর জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত আট সংসদ সদস্য সংসদে যোগ দেন।  এরপর অনেক দিন এ জোটের কোনো কার্যক্রম ছিল না।

গত ২ সেপ্টেম্বর রাজধানীর রমনায় ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে বিএনপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীরআলোচনা সভায় যোগ দিয়ে গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া বলেন,  ঐক্যফ্রন্ট শেষ হয়ে যায়নি। শিগগিরই দেখতে পাবেন ঐক্যফ্রন্ট কী করে। 

এরই ধারাবাহিকতায় নতুন করে এ জোটের কার্যক্রম শুরু হয়। গত কয়েকদিনে তারা বেশ কয়েকটি বৈঠকও করে। ১৩ অক্টোবর প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও ৩০ ডিসেম্বর সরকারের বর্ষপূর্তিতে ঢাকায় বড়সমাবেশ করারও ঘোষণা দেওয়া হয় জোটের পক্ষ থেকে। 

অন্যতম শরীক দল জেএসডি’র সাধারণ সম্পাদক আবদুল মালেক রতন বাংলানিউজকে বলেন, ১৮ অক্টোবর কুষ্টিয়ায় আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত ও ২২ অক্টোবর ঢাকায় নাগরিক শোকসভার আয়োজন করা হবে। শনিবার রাতে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতাদের বৈঠকে নতুন এ কর্মসূচি ঠিক করা হয়।

ড. কামাল হোসেন কুষ্টিয়া যাবেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, উনিতো অসুস্থ। যদি যেতে পারেন তাহলে যাবেন। না পারলে অন্যরা যাবেন।  

বাংলাদেশ সময়: ০০০৪ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৩, ২০১৯
এমএইচ/এইচজে

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-13 00:06:29