bangla news

ভারত সফরে কিছুই পায়নি বাংলাদেশ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-১০-০৭ ৭:১৯:১২ পিএম
বক্তব্য রাখছেন জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান। ছবি- বাংলানিউজ  

বক্তব্য রাখছেন জাগপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান। ছবি- বাংলানিউজ  

ঢাকা: সরকার প্রধানের ভারত সফর নিয়ে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সাধারণ সম্পাদক খন্দকার লুৎফর রহমান বলেছেন, ভারতকে সবই দিয়ে এলেন, কিছু আনলেন না। বাংলাদেশ কিছুই পায়নি। 

সোমবার (৭ অক্টোবর) রাজধানীর একটি হোটেলে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) ২ দিনব্যাপী বর্ধিত সভার দ্বিতীয় দিনে এসব কথা বলেন লুৎফর রহমান।

জাগপা নেতা বলেন, তিস্তার বিষয়ে মীমাংসা না করে উল্টো ভারতকে ফেনী নদীর পানি প্রত্যাহার ও বন্দর ব্যবহারের সুযোগ দিয়ে সরকার দেশের স্বার্থের বিরুদ্ধেই অবস্থান গ্রহণ করেছে। দুদেশের বন্ধুত্ব যখন শিখরে অবস্থানের দাবি করা হচ্ছে, তখন ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির নেতারা নাগরিকপঞ্জিকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে উগ্র ও উস্কানিমূলক সাম্প্রদায়িক প্রচারণা অব্যাহত রেখেছে। এসব বৈরী ও শত্রুতামূলক প্রচারণা বন্ধ করার ব্যাপারেও দুই নেতার শীর্ষ বৈঠক থেকে কিছু পাওয়া যায়নি। সরকার ভারতকে সবই দিয়ে এলেন, কিছু আনলেন না। 

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখা প্রসঙ্গে সরকারের সমালচনা করে  করে  লুৎফর রহমান বলেন, আপোষ নয়, সংগ্রামের মধ্য দিয়েই দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। দেশনেত্রী আপোস, সরকারের সঙ্গে সমঝোতা বা প্যারোলে মুক্তি নেবেন না। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে তিনি মুক্তি লাভ করবেন।

জাগপার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি খন্দকার আবিদুর রহমানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন- দলের সহ-সভাপতি আ স ম মেজবাহ উদ্দিন, মাহবুব আলম মজুমদার, যুগ্ম সম্পাদক ডা. আওলাদ হোসেন শিল্পী, সালাউদ্দিন মিঠু, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহজাহান খোকন, প্রিন্সিপাল হুমায়ূন কবির, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক এম এ হাফিজ, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মো. শাহাদাত হোসেন, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আক্তারুজ্জামান স্যান্ড, ত্রাণ ও সমাজসেবা বিষয়ক সম্পাদক মো. মফজুলুর রহমান, প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম বকুল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জাকিউল আলম সাকি প্রমুখ।

সভায় নভেম্বরের ১৯ তারিখের মধ্যে জাগপার জাতীয় কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সে লক্ষ্যেই দলের সহ-সভাপতি আ স ম মেজবাহ উদ্দিনকে আহ্বায়ক করে ১১ সদস্য বিশিষ্ট সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠন করা হয়। এ কমিটিই দেশের সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে সম্মেলনের তারিখ, জায়গা ও অতিথি নির্ধারণ করবেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ০৭, ২০১৯
এমএইচ/এইচজে

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-10-07 19:19:12