bangla news

জাপার কেন্দ্রীয় কাউন্সিল ২১ ডিসেম্বর: জিএম কাদের

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-১১ ৫:২১:৩৫ পিএম
সভায় জাপার চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরসহ অন্যরা। ছবি: বাংলানিউজ

সভায় জাপার চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদেরসহ অন্যরা। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: জাতীয় পার্টির (জাপা) কেন্দ্রীয় কাউন্সিল আগামী ২১ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে বলে জানিয়েছেন দলটির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।

বুধবার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ'র (আইইবি) পুরাতন ভবনের সেমিনার হলে ‌জাতীয় ছাত্র সমাজ কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি আয়োজিত সাংগঠনিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা জানান জাপা চেয়ারম্যান।

এর আগে ৩০ নভেম্বর আইইবিতে জাপার জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হওয়ার দিন নির্ধারণ করা হয়েছিল। কিন্তু সে সময় জায়গা না পাওয়ায় তারিখ পেছানো হয়েছে উল্লেখ করে জি এম কাদের বলেন, আমরা সবসময় আইইবি এলাকায় কাউন্সিল করেছি। এবারও এই এলাকাতেই করতে চাই। 

আগামীতে জাতীয় পার্টি বাংলাদেশের রাজনীতিতে আরও শক্তিশালী হিসেবে আবির্ভূত হবে দাবি করে জাপা নেতা বলেন, যারা বলেছিলেন জাতীয় পার্টির প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের অবর্তমানে জাতীয় পার্টি ভেঙে যাবে, তাদের ধারণা মিথ্যে প্রমাণিত হয়েছে। জাতীয় পার্টি বরং আরও সুশৃংখল ও শক্তিশালী হয়ে বাংলাদেশের রাজনীতির মাঠে থাকবে।

‘রাজনীতিতে শূন্যতা বিরাজ করছে। সংগঠিত থাকলে, মানুষের আশা পূরণ করতে পারলে এ দল জাতীয় রাজনীতিতে বড় ভূমিকা রাখবে। এতদিন নিয়ামক শক্তি ছিলাম, ভবিষ্যতে রাজনীতির চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করবে জাপা।’

ছাত্র সমাজের কেন্দ্রীয় সম্মেলন প্রসঙ্গে জিএম কাদের বলেন, অক্টোবরের মধ্যে ছাত্র সমাজের কাউন্সিল করতে হবে। আর নির্বাচনের মাধ্যমে সংগঠনটির কমিটি গঠন করা হবে। এতে শুধু ছাত্ররাই অংশ নিতে পারবে কমিটির বাইরের কেউ নয়। ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে উঠে কাজ করবে জাতীয় পার্টি। তরুণদের সিদ্ধান্ত ব্যক্তিগত স্বার্থের ঊর্ধ্বে। আমরা ছাত্র সমাজকে পৃষ্ঠপোষকতা করবো, তবে লেজুড়বৃত্তি করার জন্য নয়, লাঠিয়াল বাহিনী তৈরি করবো না। ছাত্র সমাজকে এলাকার পাশাপাশি ক্যাম্পাসভিত্তিক রাজনীতি করতে হবে।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে জাপা মহাসচিব ও বিরোধী দলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা বলেন, আমাদের মধ্যে কিছু সংকট ও মতবিরোধ দেখা দিয়েছিল। তবে সেই সংকট ও মতভেদ  কেটে গেছে। যারা ষড়যন্ত্র করেছিলেন তারা ব্যর্থ হয়েছেন। ২০২৩ সালের নির্বাচনকে সামনে রেখে জাতীয় পার্টি আরো শক্তিশালী হচ্ছে বলে জানান তিনি। এ ছাড়া জাতীয় পার্টির যে সব নেতার সন্তানরা জাতীয় ছাত্র সমাজ করে না, তারা আগামীতে কোনো নির্বাচনেই পার্টি থেকে মনোনয়ন পাবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি। 

আগামীতে দলের করণীয় প্রসঙ্গে রাঙ্গা বলেন, জাতীয় পার্টি সংসদে বিরোধী দলের অবস্থানে আছে। আমরা সরকারের সঙ্গে এক হয়ে নির্বাচন করেছি, তাই তাদের সঙ্গে আমাদের একটা সুসম্পর্ক আছে। তাই বলে সরকার যা বলবে জাতীয় পার্টি তা করবে না। জাতীয় পার্টি স্বচ্ছ বিরোধী দল হিসেবে বাংলাদেশে রাজনীতি করবে। 

ছাত্র সামজের উদ্দেশ্যে জাপা নেতা আরও বলেন, এরশাদ ছিলেন একজন পরিষ্কার মানুষ, তাই জাতীয় ছাত্র সমাজের সবাইকে পরিষ্কার মানুষ হতে হবে।

জাতীয় ছাত্র সমাজের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক মো. জামাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভুইয়া, ভাইস চেয়ারম্যান আদেলুর রহমান এমপি, যুগ্ম মহাসচিব গোলাম মোহাম্মদ রাজু, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হামিদ ভাসানী প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন সদস্য সচিব ফয়সাল দিদার দিপু।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১১, ২০১৯
এসএমএকে/ এইচজে 

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   জাতীয় পার্টি
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-09-11 17:21:35