ঢাকা, বুধবার, ২১ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৫ আগস্ট ২০২০, ১৪ জিলহজ ১৪৪১

রাজনীতি

বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হলে জিয়াকে মরতে হতো না

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৯-০১ ১২:৩৬:১৫ এএম
বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হলে জিয়াকে মরতে হতো না

পিরোজপুর: গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বাধীনতার পরাজিত শক্তিরা জাতির পিতাকে হত্যা করেছিলো। আর এ হত্যার প্রধান কারণ ছিলো আন্তর্জাতিক চক্র। 

শনিবার (৩১ আগস্ট) বিকেলে বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে নাজিরপুর ইউনিয়ন আ’লীগ আয়োজিত আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।  

মন্ত্রী বলেন, জিয়াউর রহমান ১৯৭৯ সালের ৬ এপ্রিল অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার যাতে না হয় সেজন্য আইন করেছিলেন।

আর আল্লাহর কী নির্মম বিচার, তিনিও (জিয়াউর রহমান) ঘাতকের হাতে নিহত হন।  

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবার কোনো দুর্নীতি করেন না। তিনি দুর্নীতিকে জিরো টলারেন্স করেন। তার পরিবার কখনো কোনো অবৈধ তদবির করে না। খালেদা জিয়া দুর্নীতির দায়ে আজ দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাভোগ করছেন।

নাজিরপুর সদর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি সাইফুদ্দিন বাদশার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই শোক সভার আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাকিম হাওলাদার, পিরোজপুরের পৌর মেয়র হাবিবুর রহমান মালেক, সিনিয়র সহসভাপতি শাহজাহান খান তালুকদার, নাজিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অমূল্য রঞ্জন হালদার, জেলা আ’লীগের সহসাধারণ সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি আক্তারুজ্জামান ফুলু, উপজেলা আ’লীগ সাধারণ সম্পাদক মোশারেফ হোসেন খান, কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আতিয়ার রহমান চৌধুরী নান্নু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান রঞ্জু, উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক চঞ্চল কান্তি বিশ্বাস, ছাত্রলীগ সভাপতি তরিকুল ইসলাম চৌধুরী তাপস প্রমুখ।
 
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জিয়াউল আহসান গাজী, জেলা পরিষদের সদস্য সুলতান মাহমুদ খান, যুবলীগের কেন্দ্রীয় নেতা আক্তারুজ্জামান ফুলু, ঢাকা দক্ষিণ ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুদ্দিন সাইফ, পিরোজপুর সদর উপজেরা ভাইস চেয়ারম্যান এসএম বায়েজিদ হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার অলিউর রহমান, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহারিয়ার রুনা, নাজিরপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ নজরুল ইসলাম, মটিভাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ অধ্যক্ষ আব্দুস সালাম প্রমুখ।  

এর আগে মন্ত্রী ওই দিন সকালে উপজেলার ৮টি মন্দির সংস্কারের জন্য অনুদানের চেক বিতরণ করেন। এ সময় মন্ত্রী বলেন, আ’লীগ ক্ষমতায় এলে এদেশে সব ধর্মের লোকজন সুখে শান্তিতে বসবাস করে। অন্য দল ক্ষমতায় থাকলে তাদের জান-মালের কোনো নিরাপত্তা থাকে না। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে হিন্দুধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে এ চেক বিতরণ করা হয়। এসময় উপজেলার ৮টি মন্দিরে ৮৫ হাজার টাকার চেক বিতরণ করা হয়।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অমূল্য রঞ্জন হালদারের সভাপতিত্বে উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরি মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত চেকবিতরণ অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক আবু আলী মো. সাজ্জাদ হোসেন, পুলিশ সুপার (এসপি) হায়াতুল ইসলাম খান, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি অধ্যক্ষ বিপুল বিহারী হালদার।

পরে মন্ত্রী দরিদ্র পরিবারের মধ্যে বাংলাদেশ জাতীয় সমাজ কল্যাণ পরিষদের অনুদানের চেক বিতরণ করেন। এ সময় ২০ জনকে ৬ হাজার টাকা করে মোট ১ লাখ ২০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করা হয়েছে।
এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পিরোজপুর এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী সুশান্ত কুমার সাহা, পিরোজপুর গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বিশ্বনাথ বনিক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রোজি আক্তার প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ৩১, ২০১৯
এসএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa