bangla news

মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে সিপিবির শোক

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৮-২৪ ১:১১:০৬ এএম
অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ, ছবি: সংগৃহীত

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ, ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: প্রবীণ রাজনীতিবিদ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির (ন্যাপ) একাংশের সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে শোক ও গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম।

শুক্রবার (২৩ আগস্ট) রাতে এক বিবৃতিতে সিপিবি নেতৃদ্বয় বলেন, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা, মুক্তিযুদ্ধে ন্যাপ-কমিউনিস্ট পার্টি-ছাত্র ইউনিয়নের বিশেষ গেরিলা বাহিনীর অন্যতম সংগঠক ছিলেন।

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সিপিবি নেতৃদ্বয় আরও বলেন, ন্যাপ সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ সারাজীবন এদেশের শ্রমিক-কৃষক-মেহনতী মানুষের মুক্তির লড়াইয়ে নেতৃত্ব দিয়েছেন। গণতান্ত্রিক অধিকার আদায়ের সংগ্রামেও তার অবদান অনন্য। মহান মুক্তিযুদ্ধে ন্যাপ-কমিউনিস্ট পার্টি-ছাত্র ইউনিয়নের বিশেষ গেরিলা বাহিনী পরিচালনাসহ সমাজতান্ত্রিক বিশ্বের দেশগুলোকে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে সমর্থন প্রদানে তার ভূমিকা চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের মৃত্যুতে দেশ একজন প্রকৃত দেশপ্রেমিক হারাল। 

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় তার শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

শুক্রবার রাত পৌনে ৮টার দিকে রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন ৯৭ বছর বয়সী এই প্রবীণ রাজনীতিবিদ।

অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিবনগর সরকারের উপদেষ্টা ছিলেন। এছাড়া ব্রিটিশবিরোধী আন্দোলন, ভাষা আন্দোলন, স্বাধীনতাযুদ্ধে তার ভূমিকা অবিস্মরণীয়।

তার জন্ম ১৯২২ সালে। ১৯৩৭ সালে রাজনীতিতে অংশ নেন। এই রাজনীতি করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের চাকরি ছেড়ে দিয়েছিলেন তিনি।

১৯৫৪ সালে যুক্তফ্রন্টের প্রার্থী হিসেবে মোজাফফর আহমদ দেবীদ্বার থেকে নির্বাচনে অংশ নিয়েছিলেন। তদানীন্তন মুসলিম লীগের শিক্ষামন্ত্রী মফিজুল ইসলামকে বিপুল ভোটের ব্যবধানে পরাজিত করে নজির সৃষ্টি করেছিলেন তিনি।

১৯৬৮ সালে ন্যাপ দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে যায়। একভাগ মাওলানা ভাসানীর সঙ্গে থাকলেও অন্য অংশ অধ্যাপক মোজাফফর আহমদের নেতৃত্বে আলাদা হয়ে যায়। 

রাজনীতিতে অধ্যাপক মোজাফফর আহমদ সততাকে ব্রত করেছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ০১০৪ ঘণ্টা, আগস্ট ২৪, ২০১৯
এসকে/ওএইচ/

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-08-24 01:11:06