ঢাকা, শুক্রবার, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৯ জুলাই ২০১৯
bangla news

চ্যালেঞ্জ পেরিয়েই বাজেট বাস্তবায়ন করা হয়: কাদের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৬-১৫ ১:৫২:১৮ পিএম
সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি: বাংলানিউজ

সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: বাজেট বাস্তবায়নে সব সময়ই চ্যালেঞ্জ থাকে উল্লেখ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, এই চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করেই প্রতিবছর বাজেট বাস্তবায়ন করা হয়, এবারও করা হবে।

সরকার ঘোষিত ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট নিয়ে শনিবার (১৫ জুন) আওয়ামী লীগ আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কাদের এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগ সভাপতির ধানমণ্ডির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। 

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, বাজেট বাস্তবায়নে সব সময়ই একটা চ্যালেঞ্জ থাকে। তবে এই চ্যালেঞ্জ আমরা গ্রহণ করেছি। চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করেই প্রতিবছর আমরা বাজেট বাস্তবায়ন করছি, এবারও বাস্তবায়ন করবো। 

বাজেট নিয়ে বিএনপির সমালোচনা প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, গত ১০ বছর ধরে বিএনপি প্রত্যেকটি বাজেটেরই একই ধরনের সমালোচনা ও মনোভাব প্রকাশ করেছে। কিন্তু প্রত্যেক বছরই সরকার বাজেট বাস্তবায়ন করে অর্থনৈতিক অগ্রগতি অর্জন করে আসছে। এবারও বিএনপি বাজেট নিয়ে একই ধরনের নেতিবাচক রাজনৈতিক মনোবৃত্তির বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে। 

বাজেট নিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের প্রতিক্রিয়া প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, গত নির্বাচনে তিনি নির্বাচিত হয়ে শপথ নেননি। আবার উপ-নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী দিয়েছেন। এটা তাদের নেতিবাচক রাজনীতির বহিঃপ্রকাশ। 

ওবায়দুল কাদের বলেন, নেতিবাচক রাজনৈতিক মনোভাব থেকেই বিএনপি বাজেট নিয়ে মিথ্যাচার করে চলেছে। দেশবাসী ভুলে যায়নি গত ১০টি বাজেট ঘোষণার পর বাজেট বাস্তবায়ন হবে না, এ রকম নানা ধরনের মন্তব্য করেছে। অতীতেও করেছে, এখনো করছে। আসলে বিএনপি ৫০ হাজার কোটি টাকার বাজেট দিয়েছে, শেখ হাসিনার সরকার ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকার বাজেট দিয়েছে; এই বিশাল বাজেটের ব্যাপ্তি অনুধাবন করা বিএনপির পক্ষে সম্ভব নয়। বিরোধী দল বিএনপি প্রত্যেকটি বাজেটেই এই মনোভাব প্রকাশ করেছে। কিন্তু সরকার বাজেট বাস্তবায়ন করে উন্নয়নের নানা সোপান অতিক্রম করে বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে পরিণত করেছে। দেশকে উন্নত দেশের পথে এগিয়ে নিয়ে এসেছে।

এক প্রশ্নের উত্তরে ওবায়দুল কাদের বলেন, এই বাজেটে কোথাও নেতিবাচক কিছু নেই। এটি জনবান্ধব ইতিবাচক বাজেট। এখানে হতাশার কিছু নেই। দেশের জনগণের স্বপ্ন ও প্রত্যাশা পূরণে এই বাজেট অনন্য সাফল্যের দলিল। এই বাজেট নেতিবাচক কিছু তারা দেখে, যারা আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার সব কিছুই নেতিবাচকভাবে দেখে। আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনার প্রতি নেতিবাচক মনোভাব দেখাতে হবে, এজন্যই বাজেট নিয়ে নেতিবাচক বলতে হবে, এমন মনোবৃত্তি তাদের। নির্বাচনী ইশতেহারের সঙ্গে মিলিয়ে যারা এই বাজেটের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করছে, তাদের বুঝতে হবে এই বাজেট এক বছরের জন্য, সরকারের পাঁচ বছরের জন্য এই বাজেট প্রণীত হয়নি। নির্বাচনী ইশতেহার পাঁচ বছরের কর্মসূচি এটা বুঝতে হবে। 

বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, এই বাজেট দেশের জনগণের স্বপ্নপূরণের ভারসাম্যপূর্ণ বাজেট। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালকে ধন্যবাদ জানাই। আওয়ামী লীগ মনে করে এই বাজেট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ে তোলা এবং আওয়ামী লীগের নির্বাচনী ইশতেহার বাস্তবায়নে সহায়ক হবে। আর্থ-সামাজিক নিরাপত্তা ও প্রবৃদ্ধি সুদৃঢ় করবে। এবারের বাজেট বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের রাষ্ট্রের মর্যাদা লাভ করবে এবং ক্রমান্বয়ে উন্নত রাষ্ট্রের দিকে এগিয়ে যাবে। 

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, সংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, দপ্তর সম্পাদক ড. আব্দুস সোবহান গোলাপ, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলি প্রমুখ। 

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪২ ঘণ্টা, জুন ১৫, ২০১৯ 
এসকে/এইচএ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন :   ওবায়দুল কাদের
        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-06-15 13:52:18