bangla news

আমাদের স্বাধীনতা পরাধীনতার শামিল: মান্না

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-০৩-২৭ ২:৫৪:১৮ পিএম
নাগরিক ঐক্য আয়োজিত আলোচনা সভার বক্তারা | ছবি: শাকিল আহমেদ

নাগরিক ঐক্য আয়োজিত আলোচনা সভার বক্তারা | ছবি: শাকিল আহমেদ

ঢাকা: ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে আমরা যে স্বাধীনতা পেয়েছি তা বর্তমান সময় এসেছে পরাধীনতার শামিল হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

বুধবার (২৭ মার্চ) জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘স্বাধীনতা ও সাম্প্রতিক রাজনীতি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি। 

নাগরিক ঐক্য আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মান্না বলেন, “আমাদের স্বাধীনতা পরাধীনতার শামিল। আমাদের ব্যাংকের গ্যারান্টি নাই, জীবনের নিরাপত্তা নাই। আর এসবের মাঝে ক্ষমতাসীন দল বোঝাতে চাইছে যে, আমাদের জীবনযাত্রা উন্নত হচ্ছে। মূলত স্বাধীনতার পর থেকেই এই স্বাধীনতা হরণ করার প্রক্রিয়া শুরু হয়। তখনই মানুষ প্রতিবাদ করেছিলো। আর তা রুদ্ধ করার জন্য মাত্র ১১ মিনিটে সংসদে রেজুলেশন করে বাকশাল পাস করা হয়। আর বর্তমান সরকারের নেতারা এখন সেই বাকশালের প্রশংসা করছেন।”

দেশ জিডিপিতে উন্নতি করলেও কার্যত তা উন্নতি নয় দাবি করে মান্না বলেন, “আমাদের দেশে উন্নতি মানে শুধু জিডিপির অংক। এটা জবলেস জিডিপি। আমাদের বুঝতে হবে যে, এটা শুধু একটা পরিসংখ্যান ও সংখ্যা। জিডিপির উন্নতি দিয়ে দেশ ও জাতির উন্নতি হয় না।”

এ সময় ডাকসু নির্বাচন সম্পর্কে মান্না বলেন, “কোটা আন্দোলন করে একটি ছেলে ডাকসুর ভিপি হয়েছে। সে (নুরুল হক নুর) জিতেছে কারণ সে  আন্দোলন করেছে। আর সেই আন্দোলনে আপনারা (সরকার) তাকে অত্যাচার করেছেন। সে তো আমাদের চাকরির কথা বলেছে। তাই সে জিতেছে।”

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে মান্না আরো বলেন, রাত ১২টা পর্যন্ত যে ভোট গণনা হয়েছে, ভোর ৩ টা পর্যন্ত ভোট গণনার টেনে না নিয়ে যদি তখনই ফল ঘোষণা করা হতো তাহলে জিএস সহ অন্যান্য পদেও কোটা আন্দোলনের নেতারা বিজয়ী হতো। 

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের জোট এখনো টিকে আছে দাবি করে মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, “ঐক্যফ্রন্ট টিকবে। কিছু সমালোচনা হয়েছে। তবে পরস্পরের প্রয়োজনে, লড়াই-সংগ্রামের তাগিদে এই জোট চলবে। নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসতে না পারায় কিছু হতাশা অনেকের মধ্যে কাজ করেছে। কেউ কেউ খুব নেতিবাচক কথা বলেছেন। তবে এই ঐক্য টিকবে। সামনের দিনগুলোতে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলনের কর্মসূচি নিয়ে আসব।”

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহদীন মালিক। তিনি বলেন, “ঐ দল ক্ষমতায় এসেছে; এই কথাটি ঠিক নয়। সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রের সকল ক্ষমতার মালিক জনগণ। তাই অন্য কেউ ক্ষমতায় আসতে পারে না। একটি দল সরকার গঠন করে মাত্র। আমার বা জনগণের ফুট-ফরমায়েশ খাটার জন্য। কাজ ভালো না লাগলে পরে নির্বাচনে বের করে দেব। এই বিষয়টি রাজনৈতিক দলগুলো একসময় বুঝবে বলে আমি আশা করি।”

ড. জাহিদুর রহমানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মাঝে আরো বক্তব্য রাখেন নাগরিকনাগরিক ঐক্যের কেন্দ্রীয় কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা ও সদস্যরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫১ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০১৯
এসএইচএস/এমজেএফ

        ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন  

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Alexa
cache_14 2019-03-27 14:54:18