ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭, ০৯ জুলাই ২০২০, ১৭ জিলকদ ১৪৪১

রাজনীতি

নির্বাচনের নামে এতো বড় তামাশা আগে কেউ করেনি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৯-২৪-০৩ ০৫:৪৪:৩০ পিএম
নির্বাচনের নামে এতো বড় তামাশা আগে কেউ করেনি আলোচনা সভায় শামসুজ্জামান দুদুসহ অন্যরা-ছবি-শাকিল আহমেদ

ঢাকা: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেছেন, নির্বাচন করে এ সরকার ক্ষমতায় আসেনি। নির্বাচনের নামে এতো বড় তামাশা আগে কেউ করতে পারেনি। যে দুঃসাহস পাকিস্তানি হানাদার ও ব্রিটিশরাও করেনি, সেটা করেছেন এই সরকার।

রোববার (২৪ মার্চ) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, যুগ্ম মহাসচিব হাবিবুন নবী খান সোহেল ও যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকুসহ সব রাজবন্দিদের মুক্তির দাবিতে দেশ বাঁচাও, মানুষ বাঁচাও আন্দোলন আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।  

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, গত ১২ বছর ধরে ভয়ংকর পরিবেশে আমরা বাস করছি।

দেশে এখন আওয়ামী লীগ বলতে কিছু নেই। পুলিশের ওসি, এসপিরাই এখন আওয়ামী লীগের সভাপতি, সেক্রেটারি। হঠাৎ একদিন দেখবেন, আওয়ামী লীগ ও শেখ হাসিনা নেই। স্বৈরশাসক আইয়ুব খান তিনদিন আগেও জানতেন না, তার পতন হবে। কারণ এখন যে আন্দোলন হবে, সেটা হবে এদেশের ইতিহাসে তৃতীয় গণঅভ্যুত্থান।  

বিএনপির এই ভাইস চেয়ারম্যান বলেন, খালেদা জিয়াকে আজীবন আটকে রাখবেন, এটা কখনই সম্ভব না।  এটা সাময়িক। সময়ের ব্যবধানে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে। এখন আইনের শাসন নেই বলেই বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদেরও অধঃপতন হয়েছে, যেটা ডাকসু নির্বাচন নিয়ে দেখলেন।  

শামসুজ্জামান দুদু বলেন, খালেদা জিয়া আপোষহীন নেতা। ৯০ সালে তার অনেক সহকর্মী স্বৈরাচার এরশাদের হাতে হাত মেলান, কিন্তু তিনি গণতন্ত্রের স্বার্থে ছিলেন আপোষহীন।  

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, রাষ্ট্র ব্যবস্থায় এমন একটা ধস নিয়ে এসেছেন শেখ হাসিনা, সেই জায়গা থেকে শেখ হাসিনা ফিরে আসতে পারবেন না। বিএনপির সামনে সুসময়, কারণ এই রাষ্ট্র ব্যবস্থা স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে খুব বেশি মানুষের প্রয়োজন নেই। ইখতিয়ার উদ্দিন মুহাম্মাদ বিন বখতিয়ার খলজী মাত্র ১৭ জন সেনা নিয়ে বিজয় লাভ করেন, তাই সবাইকে সুশৃঙ্খল হতে হবে।  

তিনি বলেন, দলের ভেতরে সমস্যা আছে, সেটা সময়মত সমাধান না করলে আরও বেশি ক্ষতি হয়ে যাবে। তবে ৭৫ সালে শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার পরে কোনো আওয়ামী লীগকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। সেই তুলনায় আমরা অনেক ভালো, আমাদের দলের নেতাকর্মীদের অবস্থা এখনও ভালো আছে, তারা কেউ দল ছেড়ে যায়নি।  

দেশ বাঁচাও, মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি ও জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের কেন্দ্রীয় সদস্য কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সহ-সভাপতি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ ও ঘিরে দাঁড়াও বাংলাদেশের সভাপতি আব্দুল কাদের সিদ্দিকী প্রমুখ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৪, ২০১৯
টিএম/আরআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa